সংবাদ সম্মেলনে কাঁদলেন বাদল রায়

ক্রীড়া ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২০:১৬

আগামী ৩ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে বাফুফে নির্বাচন। সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য মনোনয়নপত্র কিনেছিলেন বাদল রায়। গত শনিবার ছিল মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন। এদিনই সভাপতি পদ থেকে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের আবেদন করেন বাদল রায়। তবে, তিনি নিজে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করার জন্য আসেননি। বাফুফে ভবনে আসেন তার স্ত্রী মাধুরী রায়। তাও আবার নির্ধারিত সময় বিকাল পাঁচটার পরে। নির্ধারিত সময়ের পরে আবেদন করার কারণেই তার মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের আবেদন গৃহীত হয়নি।

তবে, আবারো নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিলেন বাদল রায়। শুক্রবার মোহামেডান ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে জাতীয় দলের সাবেক এই ফুটবলার কান্নাভেজা কণ্ঠে বলেন, ‘আমি দীর্ঘদিন বাফুফের সঙ্গে ছিলাম। ফুটবলের অনেক কিছুর সঙ্গেই জড়িত ছিলাম। আমার কষ্ট লাগছে। ফুটবল ছাড়া আমি বাঁচতে পারব না। তারপরও আমি শারীরিক অসুস্থতার কারণে ফুটবল ফেডারেশনের আসন্ন নির্বাচন থেকে নিজেকে প্রত্যাহার করে নিচ্ছি।’

দ্বিতীয়বার নাম প্রত্যাহারের ঘোষণা দিলেও সভাপতির ব্যালটে নাম থাকছে বাদল রায়ের। কাউন্সিলররা চাইলে তাকে ভোট দিতে পারবেন। নির্বাচনে বিজয়ী হলে সভাপতির চেয়ারেও বসতে হবে তাকে।

বিষয়টি নিয়ে বাদল রায় বলেন, ‘সারা দেশের কাউন্সিলর, ডেলিগেটরাই ফুটবলের ভাগ্য নির্ধারণ করবেন। তৃণমূলের সংগঠকদের জন্য আমি খুব চিন্তা করি। তারা আমাকে খুব ভালবাসতো। তৃণমূলের সংগঠকরা কষ্ট পাবে। আমার কষ্ট লাগছে যে আমি নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াচ্ছি। আমার ব্যক্তিগত সমস্যা। নির্বাচনে দাঁড়িয়ে আমি আমার তৃণমূলের সংগঠকদের সঙ্গে প্রতারণা করতে পারব না। আমার শরীর খারাপ। এটা আমার জানানো দরকার, জানিয়ে দিয়েছি। এখন কাউন্সিলররা সিদ্ধান্ত নেবেন, তারা কি করবেন।’

তিনি বলেন, ‘যারা কাজ করবে না, তাদের দয়া করে আপনারা ভোট দেবেন না। এটাই আমার অনুরোধ।’

বাফুফে নির্বাচনে সভাপতি পদে অন্য দুই প্রার্থীর একজন হলেন বর্তমান সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন। অপরজন হলেন, জাতীয় দলের সাবেক ফুটবলার ও কোচ শফিকুল ইসলাম।

(ঢাকাটাইমস/১৮ সেপ্টেম্বর/এসইউএল)

সংবাদটি শেয়ার করুন

খেলাধুলা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :