শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে মামলা, যুক্তরাষ্ট্রকে চীনের হুঁশিয়ারি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
| আপডেট : ১৮ অক্টোবর ২০২০, ১৪:৩৩ | প্রকাশিত : ১৮ অক্টোবর ২০২০, ১৩:৫৮

যুক্তরাষ্ট্রে থাকা চীনা শিক্ষার্থীদের হয়রানির দাবি করে হুঁশিয়ারি দিয়েছে চীন। চীন বলেছে, যুক্তরাষ্ট্রে চীনা শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন আদালতে সেনার তরফে দায়ের হওয়া যেসব মামলা চলছে তা না তুলে নেয়া হলে চীনে থাকা মার্কিন নাগরিকদের আটক করা হবে।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম ওয়াল স্ট্রিট জার্নালে প্রকাশিত একটি রিপোর্টে এই দাবি করা হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রকে সরাসরি হুঁশিয়ারি দিয়েছে বেইজিং।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিভিন্ন মাধ্যমে চীনের তরফে এই বার্তা যুক্তরাষ্ট্রের কাছে পাঠানো হচ্ছে। অনেক মার্কিন সরকারি কর্মকর্তা সেটা জানেন। যদিও কারও নাম সেখানে উল্লেখ করা হয়নি। চীনের তরফে বার্তা দিয়ে জানানো হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন আদালতে চীনের শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে যে মামলা চলছে তা যেন বন্ধ করা হয়। নইলে চীনে বসবাসকারী আমেরিকানদের আইন ভাঙার অপরাধে আটক করা হবে।

এই বিষয়েই গত ১৪ সেপ্টেম্বর মার্কিন স্বরাষ্ট্র দপ্তরের তরফে একটি অ্যাডভাইজরি জারি করে মার্কিন নাগরিকদের চীনে যেতে নিষেধ করা হয়েছিল। সেখানে বলা হয়েছিল, যুক্তরাষ্ট্র ও অন্যান্য দেশের নাগরিকদের আটক করে সেই দেশের উপর চাপ তৈরি করতে পারে চীন।

সম্প্রতি হোয়াইট হাউসের তরফে স্বরাষ্ট্র দপ্তরকে একটি ইমেল করে জানানো হয়েছে, চীনের সরকারের উপর চাপ তৈরি করতে, যাতে চীনে বসবাসকারী আমেরিকানদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ চীন সরকার না নিতে পারে। চীনে বসবাসকারী আমেরিকান ও অন্যান্য দেশের নাগরিকদের দেশ ছাড়ার ক্ষেত্রে যাতে কোনো নিষেধাজ্ঞা জারি না করা যায় এবং সবকিছু পরিষ্কার ও স্বচ্ছভাবে হয়, সেটাই যুক্তরাষ্ট্রের প্রাথমিক বিচার্য বিষয়। যদিও এই বিষয়ে ওয়াশিংটনে থাকা চীনা দূতাবাসের তরফে কিছু জানানো হয়নি।

এর আগে চীনের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের উপর সাইবার হানার অভিযোগ তুলেছিল ট্রাম্প প্রশাসন। অভিযোগ করা হয়েছিল, মার্কিন প্রশাসন ও সেনার অনেক গোপন নথি হাতিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছে বেইজিং। তার জন্য টেকনোলজিকে হাতিয়ার করেছে তারা। তারপরেই টিকটক ও একাধিক চীনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করার দাবি ওঠে। যদিও চীন এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

জুলাই মাসে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই তিন চীনা নাগরিককে গ্রেপ্তার করে। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠে চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মির সদস্য হওয়ার পরে যুক্তরাষ্ট্রের গবেষণার জন্য ভিসার আবেদন করেছিলেন তারা। তাদের বিরুদ্ধে ভিসা জালিয়াতির অভিযোগ আনা হয়েছে। অভিযোগ প্রমাণিত হলে ১০ বছরের জেল ও ২ লাখ ৫০ হাজার মার্কিন ডলার জরিমানা হতে পারে।

গত মাসে যুক্তরাষ্ট্র জানায়, সেখানে পড়তে আসা হাজারের বেশি চীনা শিক্ষার্থীর ভিসা বাতিল করা হচ্ছে। সুরক্ষা নিয়ে সমস্যা হওয়ায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানায় ট্রাম্প প্রশাসন। এই ঘটনাকে মানবাধিকার লঙ্ঘন বলে অভিযোগ করে চীন। এবার সরাসরি হুঁশিয়ারি দিল চীন সরকার।

ঢাকা টাইমস/১৮অক্টোবর/একে

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :