যেসব ডাল খেলে দ্রুত ওজন কমে

ফিচার ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৭ অক্টোবর ২০২০, ১১:১৯

আকর্ষণীয় চেহারা কে না চায়। সুস্থ থাকতে হলে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে। শরীরের অত্যধিক ওজন যেমন শারীরিক সৌন্দর্য্য নষ্ট করে, তেমন অন্যদিকে শরীরে বিভিন্ন রোগের বাসাও বাঁধে। শরীরের বাড়তি ওজন কমানোর জন্য অনেকেই অনেক কিছু করছেন। ডায়েট, জিম, যোগা সেন্টার, কিছুই বাদ পড়ছে না। আপনিও কি ওজন কমানোর জন্য ক্রমাগত চেষ্টা করে চলেছেন।

চটজলদি ওজন কমাতে শরীরে যাতে কোনওভাবেই ক্যালরির মাত্রা না বাড়ে, সেদিকে নজর রাখতে হবে। আর ঠিক এই কারণেই তেলেভাজা জাতীয় খাবার যেমন এড়িয়ে চলতে হবে, তেমনই কোল্ড ড্রিঙ্ক, সাদা পাউরুটি, মিষ্টি এবং জাঙ্ক ফুড খাওয়াও চলবে না।

প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় যদি বিভিন্ন ধরনের ডাল রাখতে পারেন, তাহলে তা কেবলমাত্র ওজন হ্রাস করতেই সহায়তা করবে না, পাশাপাশি আপনাকে প্রয়োজনীয় পুষ্টিও সরবরাহ করবে। ঘরে তৈরি ডাল ওজন কমাতে সহায়তা করে এবং ঘরে তৈরি অন্যান্য খাবারে সঙ্গে খাওয়া হলে ফলাফল আরও ভালো হয়। তাই প্রতিদিন খাবার তালিকায় এক বাটি ডাল যোগ করুন। এটা শরীর সুস্থ রাখার পাশাপাশি ওজন কমাতেও সহায়তা করবে।

মসুর ডাল

মসুর ডাল প্রোটিনের আধার বলে একে মাংসের বিকল্প হিসেবেও ধরা হয়। মসুর ডাল শুধু সুস্বাদুই নয় এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে পুষ্টিগুণ। যেমন, খনিজ পদার্থ, আঁশ, খাদ্যশক্তি, আমিষ, ক্যালসিয়াম, লৌহ, ক্যারোটিন, ভিটামিন বি-২ ও শর্করা ইত্যাদি।

মসুর ডাল কার্বোহাইড্রেট ও লো-ফ্যাট যুক্ত। এই ডালে ফাইবার বেশি থাকে। এটি হজমক্ষমতা বৃদ্ধিতে ও দ্রুত ওজন হ্রাস করতে সহায়তা করে।

মসুর ডালে শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় প্রোটিন, ভিটামিন, অ্যামিনো অ্যাসিড, ফাইবার, পটাশিয়াম, আয়রন প্রভৃতি প্রচুর পাওয়া যায়। ১০০ গ্রাম মসুর ডালে ৩৫২ ক্যালোরি ও ২৪.৬৩ গ্রাম প্রোটিন রয়েছে, যা প্রোটিনের দৈনিক মানের ৪৪ শতাংশ।

কাবলি ছোলার ডাল

কাবলি ছোলার ডাল অবশ্য বাঙালির রান্নাঘরে একটু কমই থাকে। কিন্তু এগুলোও সহজে ওজন কমাতে সাহায্য করে। এই জাতীয় ভারী ডাল আপনার পাচনতন্ত্রে হজম হতে একটু বেশী সময় নেয়। ফলে খাওয়ার অনেকক্ষণ পরেও পেট বেশ ভারী ভারী লাগে। অন্যকিছু সাথে সাথে খেতে ইচ্ছে করে না। তাছাড়া এতে রেসিস্ট্যান্স স্টার্চ নামে একধরণের ফ্যাট বার্নিং কার্বোহাইড্রেট থাকে, যা তাড়াতাড়ি ওজন কমাতে সাহায্য করে। সম্প্রতি ন্যাশানাল হেলথ অ্যান্ড নিউট্রিশন এক্সামিনেশন সার্ভের করা পরীক্ষা থেকে জানা গেছে কাবলি ছোলার ডাল যারা নিয়মিত খান, তাদের ওজন কম হয়, ভুঁড়িও কম হয়। তাছাড়া কোলেস্টেরল বা ট্রাইগ্লিসারাইডের মাত্রাও এঁদের অনেক কম থাকে।

অড়হর ডাল

বেশির ভাগ মানুষই খুবই পছন্দ করে। বিভিন্ন ভাবে খুবই সুস্বাদু এই ডাল প্রস্তুত করা হয়। উচ্চ আঁশ ও প্রোটিন সমৃদ্ধ যা পেটভরা রাখে, ক্ষুধা কমায়, ওজন কমায় ও কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সহায়তা করে। এতে আছে ভিটামিন সি, ই, কে এবং বি-কমপ্লেক্স। এছাড়াও এতে নানান রকমের খনিজ যেমন- ম্যাগনেসিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ, ফসফরাস, পটাশিয়াম, সোডিয়াম ও জিংক পাওয়া যায়। আপনার শরীরকে সুস্থ ও সবল রাখতে সাহায্য করে এই ডাল।

মুগ ডাল

উচ্চ আঁশ ও উদ্ভিজ্জ প্রোটিনের ভালো উৎস। এটা কোলেসেস্টোকিনিন হরমোনের কার্যকারিতা বাড়াতে সহায়তা করে। এতে পেট ভরা অনুভূত হয় ও বিপাক বৃদ্ধি পায়। এভাবেই মুগ ডাল ওজন কমাতে সহায়তা করে। সাধারণত বাজারে দুই প্রকারের মুগ ডাল পাওয়া যায়। একটি হলো খোসা ছাড়া হলুদ রঙের, আরেকটি খোসাসহ সবুজ রঙের।

কুলথি ডাল

কুলথি ডাল বাঙালির রান্নাঘরে কম পরিচিত। কুলথি ডাল বা হর্স গ্রাম ওজন কমাতে সাহায্য করে। এই ডাল শরীরে প্রয়োজনীয় পুষ্টি সরবরাহ করে। এই ডালে রয়েছে ভিটামিন, ফাইবার, মিনারেলস। আর এতে ক্যালোরি কম থাকায় ওজন হ্রাসে করে।

(ঢাকাটাইমস/২৭ অক্টোবর/আরজেড)

সংবাদটি শেয়ার করুন

ফিচার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :