ঈশ্বরগঞ্জে রাতের আঁধারে ধান কেটে নিলো প্রতিপক্ষ

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৮ এপ্রিল ২০২১, ২০:২৮

ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে সিএস খতিয়ান, এসএ খতিয়ান, আরএস খতিয়ান, বিএস খতিয়ান ও পর্চাসহ খাজনা খারিজ নিজের নামে থাকলেও রাতের আঁধারে বোরো ধান কেটে নিলো প্রতিপক্ষের লোকজন। কেনা সূত্রে প্রায় ২৯ বছর ধরে ভোগ করে আসা ফসলি জমি থেকে বুধবার গভীর রাতে ওই ধান কেটে নিয়েছে প্রতিপক্ষের লোকজন। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিক আস্তুম আলী খা।

উপজেলার দরিপাঁচাশি গ্রামের আস্তুম আলী খা প্রায় ২৯ বছর আগে সিএ খতিয়ানের মালিক পবন সর্দারের একমাত্র ছেলে এসএ, আরএস, বিএস খতিয়ানের মালিক মফিজ উদ্দিনের কাছ থেকে ৮৮ শতাংশ জমি সাব কবলা দলিলমূলে কেনেন।

কিন্তু ২০২০ সালে এসে প্রতিবেশী আব্দুল কাদির গংরা ওই জমি তাদের বলে দাবি করেন। বিষয়টি মীমাংসা করতে এলাকার গণ্যমান্য ও ইউনিয়নের পরিষদের মেম্বার ও চেয়ারম্যানকে নিয়ে সালিশ দরবার করলেও তার সমাধান হয়নি। পরে বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাকির হোসেনের কাছে এতে তিনি বিষয়টি উপজেলা সহকারী কমিশনারকে (ভূমি) যাচাই করে ব্যবস্থা নিতে বলেন।

পরে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাঈদা পারভীন কাগজপত্র দেখে জমির মালিক আস্তুম আলী খা কে চিহ্নিত করেন এবং প্রতিপক্ষ আব্দুল কাদির গংদের জমিতে যেতে নিষেধ করেন। কিন্তু সেই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে আব্দুল কাদির গংরা জমি দখলের চেষ্টা করেন। ওই মুহূর্তে জমির মালিক আস্তুম আলী খা বাদি হয়ে ঈশ্বরগঞ্জ সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে চিরস্থায়ী নিশেধাজ্ঞা চেয়ে মামলা করেন।

গত বছরের ৭ সেপ্টেম্বর আদালত অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। পরবর্তীতে প্রতিপক্ষের লোকজন ময়মনসিংহ জেলা জর্জ কোর্টে আপিল করেন। জেলা জর্জ কোর্ট ঈশ্বরগঞ্জ সিনিয়র সহকারী জজ আদালতের রায় বহাল রেখে আপিল খারিজ করেদেন।

ওই পর্যায়ে আব্দুল কাদির গংরা হাইকোর্টে আপিল করেন। হাইকোর্ট আগের দুটি আদেশ ছয় মাসের জন্য স্থগিত করে স্থিতি অবস্থা বজায় রাখার জন্যে আদেশ দেন। কিন্তু হাইকোর্টের আদেশের আগেই জমির মালিক আস্তুম আলী খা জমিতি বোরো ধান রোপণ করে ফেলেন। এমন অবস্থায় ধানক্ষেত পরিচর্যা করে আসছিলেন তিনি। কিন্তু গত বুধবার রাত ১টার দিকে প্রতিপক্ষ আব্দুল কাদির গংরা ওই বোরো জমির ধান কেটে নিয়ে যায়।

এ বিষয়ে আব্দুল কাদিরের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার জমির ধান আমি কেটে নিয়েছি। আপনার জমির ধান রাতে কাটলেন কেন সাংবাদিকদের এমন পশ্নের উত্তরে তিনি এড়িয়ে যান।

বিষয়টি নিয়ে জমির মালিক আস্তুম আলী খা বলেন, আমার ছেলেরা জমিতে ধান রোপণ করে এতোদিন পরিচর্যা করে আসছে এখন আব্দুল কাদির ও তার লোকজন ওই ধান রাতের আধাঁরে কেটে নিয়ে গেছে। আমি এর সুষ্টু বিচার চাই।

ঈশ্বরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল কাদের মিয়া বলেন, রাতে ধান কেটে নিয়ে যাচ্ছে এমন খবরে রাতেই ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

(ঢাকাটাইমস/৮এপ্রিল/কেএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :