করোনায় চলে গেলেন কবি শঙ্খ ঘোষ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
| আপডেট : ২১ এপ্রিল ২০২১, ১২:৪১ | প্রকাশিত : ২১ এপ্রিল ২০২১, ১২:২৬

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন ওপার বাংলার বিখ্যাত বাঙালি কবি শঙ্খ ঘোষ। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৯ বছর।

কয়েক মাস ধরে বার্ধক্যজনিত সমস্যায় ভুগছিলেন ভারতের এই রবীন্দ্র বিশেষজ্ঞ ও সাহিত্য সমালোচক। লকডাউনে একাধিকবার অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন, ভর্তি হতে হয়েছিল হাসপাতালে। তবে করোনার কারণে বেশিরভাগ সময় ঘরেই চিকিৎসা নিয়েছেন ৮৮ বছর বয়সী কবি।

করোনা সংক্রমণ ধরা পরার পর ঝুঁকি না নিয়ে বাড়িতেই নিভৃতবাসে ছিলেন। তিনি নিজেও হাসপাতালে যেতে চাননি। তাই বাড়িতেই চিকিৎসা চলছিল। কিন্তু মঙ্গলবার রাতে আচমকাই তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে শুরু করে। বুধবার সকালে তাকে ভেন্টিলেটরে দেওয়া হয়। বেলা সাড়ে ১১টা নাগাদ ভেন্টিলেটর খুলে নেওয়া হয়।

শঙ্খ ঘোষের আসল নাম চিত্তপ্রিয় ঘোষ। তার পিতা মনীন্দ্রকুমার ঘোষ এবং মাতা অমলা ঘোষ। তিনি বাংলাদেশের বর্তমান চাঁদপুর জেলায় ১৯৩২ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি জন্মগ্রহণ করেন। বংশানুক্রমিকভাবে পৈতৃক বাড়ি বাংলাদেশের বরিশাল জেলার বানারিপাড়া গ্রামে।

প্রখ্যাত এই বাঙালি কবি বড় হয়েছেন পাবনায়। পিতার কর্মস্থল হওয়ায় তিনি বেশ কয়েক বছর পাবনায় অবস্থান করেন এবং সেখানকার চন্দ্রপ্রভা বিদ্যাপীঠ থেকে ম্যাট্রিকুলেশন পাস করেন। ১৯৫১ সালে প্রেসিডেন্সি কলেজ থেকে বাংলায় কলা বিভাগে স্নাতক এবং কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন।

বঙ্গবাসী কলেজ, কলকাতার সিটি কলেজ, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়সহ বহু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষকতা করেন কবি শঙ্খ ঘোষ। তিনি যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৯২ সালে অবসর নেন। ১৯৬০ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আইওয়া রাইটার্স ওয়ার্কশপে অংশগ্রহণ করেন। দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়, শিমলাতে ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ আডভান্স স্টাডিজ এবং বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়েও শিক্ষকতা করেন।

দিনগুলি রাতগুলি, এখন সময় নয়, নিহিত পাতালছায়া, আদিম লতাগুল্মময়, মূর্খ বড় সামাজিক নয়ে, বাবরের প্রার্থনা ছাড়াও ৩৪টির বেশি কাব্যগ্রন্থ রয়েছে শঙ্খ ঘোষের। এছাড়া ৪৮টির বেশি গদ্যগ্রন্থ ও ছোট কিশোরদের জন্য অসংখ্য লেখা লিখেছেন তিনি।

দীর্ঘ সাহিত্যজীবনে ভারতের পদ্মভূষণ, সাহিত্য অ্যাকাডেমি পুরস্কার, রবীন্দ্র পুরস্কার, সরস্বতী সম্মান, জ্ঞানপীঠ পুরস্কারসহ বহু সম্মানে সম্মানিত হয়েছেন কবি শঙ্খ ঘোষ।

ঢাকাটাইমস/২১এপ্রিল/একে

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :