‘খালেদার বিষয়ে আইন মন্ত্রণালয়ের মতামত বেআইনি’

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ০৯ মে ২০২১, ২০:১২ | প্রকাশিত : ০৯ মে ২০২১, ২০:১১
ফাইল ছবি

করোনা আক্রান্ত বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে যেতে পারবেন না বলে আইন মন্ত্রণালয় যে মতামত দিয়েছে সেটাকে বেআইনি বলে আখ্যায়িত করেছেন প্রবীণ আইনজীবী ও বিএনপি নেতা খন্দকার মাহবুব হোসেন।

রবিবার দুপুরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জানান, দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি খালেদা জিয়ার বিদেশে গিয়ে চিকিৎসার কোনো সুযোগ নেই বলে আইন মন্ত্রণালয় মতামত দিয়েছে।

এর প্রতিক্রিয়ায় খালেদা জিয়ার আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেন, ‘এটি সম্পূর্ণ বেআইনি। এ আইনে এমন কোনো বিধান নেই যে, কোনো দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি বিদেশে যেতে পারবে না। এ আইন করাই হয়েছে দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদের জন্য।’

প্রবীণ এই আইনজীবী বলেন, ‘চিকিৎসা শেষে ফিরে আসতে হবে-সরকার এই শর্ত দিতে পারত। খালেদা জিয়া তিনবারের প্রধানমন্ত্রী। তার অবস্থা অত্যন্ত জটিল। সরকার মানবিকভাবে দেখতে পারত।’

খালেদা জিয়ার চিকিৎসার ব্যাপারে সরকারের নিজেরই উদ্যোগ নেয়া উচিত বলে মনে করেন খন্দকার মাহবুব হোসেন। তিনি বলেন, ‘অনুমতি না দিয়ে সরকারের এত বড় দায়ভার নেয়া উচিত হয়নি। যদি কোনো অঘটন ঘটে যায় তখন সম্পূর্ণ দায়ভার সরকারের ঘাড়ে পড়বে। আইনকে তো মানবিকভাবে ব্যাখ্যা করতে হবে।’

সম্প্রতি উন্নত চিকিৎসার জন্য খালেদা জিয়াকে বিদেশে নিতে তার ছোট ভাই শামীম এস্কান্দার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে আবেদন করেন। মন্ত্রণালয় আবেদনটি আইন মন্ত্রণালয়ে মতামতের জন্য পাঠায়।

রবিবার আইন মন্ত্রণালয় জানায়, খালেদা জিয়ার ক্ষেত্রে কোনো সুযোগ নেই। বিকালে আবেদনের বিষয়টি নিয়ে কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

দুর্নীতির মামলায় দণ্ড নিয়ে তিন বছর আগে কারাগারে যান খালেদা জিয়া। গত বছর করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দিলে পরিবারের আবেদনে সরকার দণ্ডের কার্যকারিতা স্থগিত করে শর্তসাপেক্ষে বিএনপি প্রধানকে সাময়িক মুক্তি দেয়। মুক্ত থাকার সময় তাকে ঢাকায় নিজের বাসায় থেকে চিকিৎসা নিতে হবে এবং তিনি বিদেশে যেতে পারবেন না শর্তে উল্লেখ করা হয়।

গত ১১ এপ্রিল খালেদা জিয়ার শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। সেদিন তার বাসভবন ফিরোজায় আরও আটজন ব্যক্তিগত স্টাফও করোনা আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হন। ২৪ এপ্রিল দ্বিতীয় দফায় খালেদা জিয়ার করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ আসে। পরে ২৭ এপ্রিল রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয় খালেদা জিয়াকে।

গত সোমবার সকালের দিকে শ্বাসকষ্ট অনুভব করলে চিকিৎসকরা খালেদা জিয়াকে সিসিইউতে স্থানান্তর করেন। এভারকেয়ার হাসপাতালের হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ শাহাবুদ্দিন তালুকদারের তত্ত্বাবধানে ১০ সদস্যের মেডিকেল বোর্ডের অধীনে তিনি চিকিৎসাধীন আছেন।

(ঢাকাটাইমস/০৯মে/কারই/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :