গত তিন মেয়াদের চারজন আইজিপি, কে কী পুরস্কার পেলেন- জেনে নিন বিস্তারিত

সিরাজুম সালেকীন, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১১ মে ২০২১, ১৭:৪৬ | প্রকাশিত : ১১ মে ২০২১, ১২:৪৫

টানা তিন মেয়াদে ক্ষমতায় থাকাকালে আওয়ামী লীগ সরকারকে দফায় দফায় আন্দোলন কর্মসূচি, বিভিন্ন জঙ্গি গোষ্ঠীর অপতৎপরতার মুখোমুখি হতে হয়েছে। এসব তৎপরতা কঠোর হাতে দমন করতে সবসময় তৎপর ছিল আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। বিশেষ করে বর্তমান মেয়াদসহ গত দুই আমলে চারজন পুলিশ মহাপরিদর্শকের নির্দেশনায় জ্বালাও-পোড়াও, নাশকতা এবং জঙ্গি তৎপরতা বন্ধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে পুলিশ।

সন্ত্রাস দমনের পাশাপাশি পুলিশের পেশাগত উন্নয়ন ও সক্ষমতা বৃদ্ধি, অভ্যন্তরীণ প্রশাসনের কল্যাণ নিশ্চিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন এই পুলিশপ্রধানেরা। তাই চাকরি থেকে অবসরের পর পুলিশপ্রধানদের কাজের মূল্যায়ন করে সরকারের পক্ষ থেকে দেয়া হয়েছে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব। কেউ দলীয় মনোনয়ন পেয়ে হয়েছেন আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য, কেউ নিয়োগ পেয়েছেন বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত হিসেবে।

২০০৯ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত আওয়ামী লীগের আমলে পুলিশ বাহিনীতে মহাপরিদর্শক (আইজিপি) পদে চারজন কর্মজীবন শেষ করেন। ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার সময় আইজিপি ছিলেন নূর মোহাম্মদ। ২০১০ সাল পর্যন্ত তিনি দায়িত্ব পালন করেন। একই বছর ২৬তম মহাপরিদর্শক হিসেবে দায়িত্ব নেন হাসান মাহমুদ খন্দকার। তিনি ২০১৪ সালের ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন।

এরপর দায়িত্ব পান এ কে এম শহীদুল হক। ২০১৮ সালের জানুয়ারিতে তিনি অবসরে গেলে ২৯তম আইজিপি হিসেবে দায়িত্ব পান ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী। গত বছরের এপ্রিলে অবসরে যান তিনি।

সাবেক চার আইজিপির মধ্যে এ কে এম শহীদুল হক ছাড়া বাকি তিনজনই হয়েছেন রাষ্ট্রদূত।

আর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের হয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন নূর মোহাম্মদ। ২০১১ সালের ৮ এপ্রিল মরক্কোয় বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত হিসেবে নিয়োগ পান নূর মোহাম্মদ। এর আগে তিনি যুব ও ক্রীড়া সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। একসময়ের জাঁদরেল পুলিশ কর্মকর্তা পরবর্তী সময়ে বনে গেছেন পুরোদস্তুর রাজনীতিক। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কিশোরগঞ্জ-২ আসন থেকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে মনোনীত হওয়ার পর তিন লাখ ৭৭৬ ভোট পেয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন মেধাবী এই পুলিশ কর্মকর্তা।

কিশোরগঞ্জ কটিয়াদীর মানিকখালীতে জন্মগ্রহণ করা নূর মোহাম্মদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ালেখা অবস্থায় ছাত্র রাজনীতির সঙ্গেও যুক্ত ছিলেন। ১৯৭৯-৮০ মেয়াদে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের হাজী মুহম্মদ মুহসীন হলের ছাত্র সংসদের উপ-সভাপতি নির্বাচিত হন। ১৯৮৪ সালে পুলিশ বিভাগে যোগদান করে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে (২০০৭ সালের ২৯ জানুয়ারি) পুলিশের মহাপরিদর্শকের দায়িত্ব গ্রহণ করেন।

পুলিশের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি সময় প্রায় সাড়ে চার বছর মহাপরিদর্শকের দায়িত্ব পালন করেন হাসান মাহমুদ খন্দকার। ২৬তম মহাপরিদর্শক হিসেবে দায়িত্ব পালন করা হাসান মাহমুদ বর্তমানে স্পেনে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত।

রংপুরের পীরগাছায় জন্মগ্রহণ করা হাসান মাহমুদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজিতে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি শেষে করেন। এরপর বিসিএস পুলিশ ক্যাডারে বাহিনীতে যোগ দেন। হাসান মাহমুদ ১৯৮৬ সালে টাঙ্গাইলের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন।

এছাড়া ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার, উপ-কমিশনার, টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার, খুলনা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার, সারদা পুলিশ একাডেমির অধ্যক্ষ, পুলিশ সদরদপ্তরের উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি), অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক এবং পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক পদে দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া তিন বছর র্যা পিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-র্যা বের মহাপরিচালক (ডিজি) হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ভালো কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ বাংলাদেশ পুলিশ পদক এবং রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক পান। আইজিপি থাকাকালে বাংলাদেশ পুলিশ স্বাধীনতা দিবস পুরস্কার পান। ২০১৫ সালে সরকার তাকে স্পেনে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত নিযুক্ত করে।

এ কে এম শহীদুল হক ১৯৮৪ সালের বিসিএসে উত্তীর্ণ হয়ে পুলিশে যোগ দেন। পুলিশ সুপার হিসেবে তিনি চাঁদপুর, মৌলভীবাজার, চট্টগ্রাম ও সিরাজগঞ্জ জেলায়, ডিআইজি হিসেবে পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স, রাজশাহী রেঞ্জ এবং চট্টগ্রাম রেঞ্জে দায়িত্ব পালন করেন। ছিলেন ডিএমপির কমিশনার।

২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বর পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) হিসেবে যোগদানের পর ২০১৮ সালের ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন শহীদুল হক। তিনি ১৯৮৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সমাজকল্যাণে এমএসএস ডিগ্রি লাভ করেন। পরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এলএলবি এবং একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমবিএ ডিগ্রি লাভ করেন। তার বাড়ি শরীয়তপুরের নড়িয়ার নরকলিকাতা গ্রামে।

গুলশানের হোলি আর্টিজান রেস্তোরাঁয় সন্ত্রাসী হামলা পর দেশের জঙ্গিদমনে সাহসী ভূমিকা রাখেন শহীদুল হক। হেফাজতের আন্দোলন মোকাবেলায়ও তার ভূমিকা ছিল।

দেশের কমিউনিটি পুলিশিংয়ের অন্যতম প্রবর্তক হিসেবে তিনি কমিউনিটি পুলিশিং ধারণাকে জনগণের কাছে জনপ্রিয় করে তোলেন। এতে পুলিশ এবং কমিউনিটির মধ্যে সেতুবন্ধন তৈরি করে অপরাধ দমন ও উদঘাটন, জনগণের নিরাপত্তা আইন এবং সমাজের নানা জটিল সমস্যা সমাধানে তিনি কার্যকর পদক্ষেপ নেন।

কর্মজীবনে অসামান্য অবদান ও কৃতিত্বপূর্ণ কাজের স্বীকৃতির জন্য শহীদুল হক বাংলাদেশ পুলিশ পদক (বিপিএম) এবং রাষ্ট্রপতি পুলিশ পদক (পিপিএম) পান। তাছাড়া টকশো’তেও ভালো ভূমিকা রাখেন তিনি। তবে অবসরের পর গুরুত্বপূর্ণ আর কোনো দায়িত্ব পাননি।

পুলিশের ২৯তম মহাপরিদর্শক (আইজিপি) হিসেবে ২০১৮ সালের ৩১ জানুয়ারি আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্ব নেন ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী। বিসিএস পুলিশের ১৯৮৪ ব্যাচের কর্মকর্তা জাবেদ পাটোয়ারী পুলিশ বাহিনীতে যোগ দেন ১৯৮৬ সালে। সম্মিলিত মেধা তালিকায় তার অবস্থান চতুর্থ এবং পুলিশের এই ব্যাচে প্রথম।

জাবেদ পাটোয়ারীর গ্রামের বাড়ি চাঁদপুর সদরে। বঙ্গবন্ধুর জেলজীবনের ওপর লেখা গ্রন্থ ‘কারাগারে রোজনামচার’ বিভিন্ন তথ্যপ্রমাণ সংগ্রহে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। ১৯৪৮ থেকে ১৯৭১ সাল পর্যন্ত এসবির রেকর্ড রুমে বঙ্গবন্ধুর বিষয়ে ৬৬ হাজার ক্লাসিফাইড গোয়েন্দা তথ্য সংরক্ষিত আছে। জাবেদ পাটোয়ারী এসবির শীর্ষ পদে আসার পর গুরুত্বপূর্ণ এই দলিলাদি বিশেষভাবে সংরক্ষণে বিশেষ উদ্যোগ নেন।

২০১৮ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর সংগৃহীত সেসব তথ্য সংকলন করে প্রকাশিত হয় ১৪ খণ্ডের ‘সিক্রেট ডকুমেন্টস অব ইন্টেলিজেন্স ব্রাঞ্চ অন ফাদার অব দ্য নেশন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান’।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সমাজকল্যাণ বিষয়ে স্মাতক সম্মান এবং প্রথম শ্রেণিতে স্মাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন জাবেদ পাটোয়ারী। এরপর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগ থেকে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন। তার গবেষণার বিষয় ছিল কমব্যাটিং টেরোরিজম ইন বাংলাদেশ চ্যালেঞ্জেস অ্যান্ড প্রসপেক্টস।

জঙ্গিবাদ দমনে উল্লেখযোগ্য অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ তিনি দুইবার বাংলাদেশ সরকারের সর্বোচ্চ পুলিশ পদক, বাংলাদেশ পুলিশ মেডেল (বিপিএম) পান। ২০২০ সালের ১৩ এপ্রিল ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারীকে সৌদি আরবে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত নিয়োগ করে সরকার।

(ঢাকাটাইমস/১১মে/এসএস/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিশেষ প্রতিবেদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :