আ.লীগ আইন-আদালতকে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে: ফখরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঠাকুরগাঁও
| আপডেট : ১৬ মে ২০২১, ১৮:২০ | প্রকাশিত : ১৬ মে ২০২১, ১৮:১৯

আওয়ামী লীগ আইন ও আদালতকে ক্ষমতায় টিকে থাকার হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, তারা তত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা বাতিল করে দলীয় সরকারের আওতায় নির্বাচন করে ক্ষমতা আঁকড়ে ধরে আছে।

রবিবার বিকালে ঠাকুরগাঁও হাওলাদার কমিউনিটি সেন্টারে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন ফখরুল।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, তত্বাবধায়ক সরকারের বিধান যেটি সংবিধানের সঙ্গে সংযুক্ত ছিলো সেটি বাতিল করে দিয়েছে আদালত। সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপ্রতি খায়রুল হক সাহেব এই রায় দেন। সেই সঙ্গে রায়ে ঘোষণা করা হয় তত্বাবধায়ক সরকারের বিধান এখন আর প্রয়োজন নেই। প্রয়োজনে জাতীয় সংসদে নতুন করে বিল আনা যেতে পারে। বর্তমান সরকার সেই বিষয় নিয়ে সংসদীয় জাতীয় কমিটি গঠন করে। শতভাগ রাজনৈতিক দল মতামত দেয় দেশে তত্বাবধায় সরকার ব্যবস্থা রাখা দরকার। কিন্তু একদিনের মধ্যে সরকার সেটিকে বাতিল করে দিয়ে দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের বিল আনে।

ফখরুল আরও বলেন, বর্তমান সরকার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন তৈরি করে মুক্ত মনা সাংবাদিক ও লেখকদের বিভিন্ন নির্যাতিত করছে। এই আইনের আওতায় ৭ বছরের বাঁচ্চা হতে বৃদ্ধ পর্যন্ত কেউ রেহাই পাচ্ছে না। প্রখ্যাত সাংবাদিক রুহুল আমিন গাজী দীর্ঘ দুই বছর ধরে কারাভোগ করছেন।

বর্তমান সরকারকে ফ্যাসিষ্ট আখ্যা দিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, এই সরকার বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে অমানবিক আচরণ করছে। করোনায় আক্রান্ত খালেদা জিয়ার গুরুতর অবস্থায় তাকে বিদেশে নিয়ে চিকিৎসার জন্য সরকারের কছে আবেদন করলেও সরকার তা বাতিল করে দেয়। ফলে তার অবস্থা এখন অত্যন্ত নাজুক। চিকিৎসকরা তার পরিপূর্ণ চিকিৎসা তাকে দিতে পারছেন।

এসময় বর্তমান সরকার একদলীয় শাসন ব্যবস্থা চালুর চক্রান্ত করছে বলে অভিযোগ করেন ফখরুল। বলেন, ১৯৭৫ সালের আাঙ্গিকে দেশে বাকশালী ব্যবস্থা চালু করতে চায়। তারা মানুষের কথা বলার স্বাধীনতা হরণ করেছে। দেশে এখন গণতন্ত্র বলতে কোনো কিছু নেই। ভীতি ও ত্রাসের রাজত্ব কায়েম হয়েছে।

অ্যাডভোকেট বদিউজ্জামান চৌধুরী বাদলের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি আব্দুল হালিম, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইন্তাজুল হক, জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমুর রহমান, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মাহাবুবুর রহমান তুহিন প্রমূখ। (ঢাকাটাইমস/১৬মে/ইএস)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :