ভারতে ঘূর্ণিঝড়ে নিহত বেড়ে ২১, নিখোঁজ শতাধিক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৮ মে ২০২১, ১৬:৫২ | প্রকাশিত : ১৮ মে ২০২১, ১৬:৪৩

ভারতে ঘূর্ণিঝড় তকতের আঘাতে নিহত মানুষের সংখ্যা বেড়ে ২১ জনে দাঁড়িয়েছে। স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে এই ঘূর্ণিঝড়কে বিগত ৩০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।

বার্তা সংস্থা এএফপির খবরে বলা হয়েছে, ঘূর্ণিঝড় আর বৃষ্টিতে ভূমিধস হয়েছে, বিভিন্ন স্থানে সড়ক পানিতে তলিয়ে গেছে। ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে করোনাভাইরাস মহামারি মোকাবিলায় গৃহীত পদক্ষেপ।

রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, গুজরাটে ঘূর্ণিঝড় থেকে রক্ষায় দুই লাখের বেশি মানুষকে নিরাপদ এলাকায় সরিয়ে নেয়া হয় এবং কয়েকটি বন্দর ও বিমানবন্দর বন্ধ করে দেয়া হয়। ঘূর্ণিঝড়ের সঙ্গে বৃষ্টির কারণে অনেক গাছ ও বিদ্যুতের খুঁটি উপড়ে পড়েছে। এ কারণে বিভিন্ন এলাকা বিদ্যুৎ–বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।

ভারতের আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, গতকাল সোমবার রাত সাড়ে আটটার দিকে গুজরাটে বাতাসের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ১৫৫ থেকে ১৬৫ কিলোমিটার। এ ছাড়া দমকা বাতাসের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ১৮৫ কিলোমিটার পর্যন্ত। এ কারণে সেখানে ভূমিধস দেখা দেয়।

গুজরাটের উপকূলীয় শহর দিউয়ের আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, ঘূর্ণিঝড়ের কারণে সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা ১০ ফুট পর্যন্ত বেড়েছিল। সেখানে বাতাসের গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ১৩৩ কিলোমিটার। রাজ্যটির উপকূলীয় ১২টি জেলায় করোনা রোগীদের চিকিৎসার জন্য প্রায় ৪০০ হাসপাতাল রয়েছে। আর অক্সিজেন প্ল্যান্ট রয়েছে ৪১টি। এসব হাসপাতাল ও অক্সিজেন প্ল্যান্টে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ বজায় রাখতে হিমশিম খাচ্ছে রাজ্য সরকার।

তবে গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রুপানি বলেন, রাজ্যের এক হাজার কোভিড-১৯ হাসপাতালে জেনারেটরের মাধ্যমে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হচ্ছে। ৭৪৪টি স্বাস্থ্যসেবা দল মোতায়েন করা হয়েছে। পরিবহনযোগ্য ১৭৪টি আইসিইউর ব্যবস্থা করা হয়েছে। অ্যাম্বুলেন্সের ব্যবস্থা করা হয়েছে ৬০০টি।

ঘূর্ণিঝড় আঘাত হেনেছে মহারাষ্ট্রে। এ রাজ্যে কমপক্ষে ছয়জন মারা গেছে। এ ছাড়া আহত হয়েছে কমপক্ষে নয়জন। গতকাল সেখানে বৃষ্টি শুরুর পর হাসপাতালের প্রাঙ্গণে যেসব কোভিড-১৯ রোগীকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছিল, তাদের ‘নিরাপদ স্থানে’ সরিয়ে নেয়া হচ্ছে।

মুম্বাই সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ৫৮০ কোভিড-১৯ রোগীকে ফিল্ড হাসপাতাল থেকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। ঘূর্ণিঝড় আঘাত হেনেছে কেরালা রাজ্যেও। সেখানে মারা গেছে সাতজন। এ রাজ্যে কমপক্ষে দেড় হাজার ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/১৮মে/কেআই)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :