অপহরণের ৯ দিন পর মাদ্রাসাছাত্রী উদ্ধার, যুবক গ্রেপ্তার

আলফাডাঙ্গা (ফরিদপুর) প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৭:২৪ | প্রকাশিত : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৬:৪০

ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গায় অপহরণের নয় দিন পর মাদ্রাসাছাত্রীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। অপহরণের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেপ্তার জিয়া ফকিরকে (৩৫) রবিবার সকালে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে শনিবার সন্ধ্যায় মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা থানার এসআই মো. ইউনুচ আলী ও সঙ্গীয় ফোর্স পাশের নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার গোপিনাথপুর এলাকা থেকে ওই মাদ্রাসাছাত্রীকে উদ্ধার ও অপহরণকারী জিয়া ফকিরকে গ্রেপ্তার করে আলফাডাঙ্গা থানায় নিয়ে আসে। জিয়া ফকির পাশের বোয়ালমারী উপজেলার রুপাপাত গ্রামের ছত্তার ফকিরের ছেলে।

গত ১৫ জুলাই এই অপহরণের ঘটনা ঘটে। পরে অনেক খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে ১৯ জুলাই ওই মাদ্রাসাছাত্রীর মাতা জিয়া ফকিরকে একমাত্র আসামি করে আলফাডাঙ্গা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি অপহরণ মামলা করেন।

মামলা ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার পাড়াগ্রামের গোলাম কুদ্দুসের ১৩ বছর বয়সী মেয়ে পাশের শিয়ালদী আদর্শ দাখিল মাদ্রাসার অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী। সে গত ১৫ জুলাই বিকাল ৫টার দিকে ওষুধ কেনার উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে হেলেঞ্চা বাজারে যাচ্ছিল।

পথে টিকোরপাড়া ব্রিজের কাছে পৌঁছলে পেছন থেকে অজ্ঞাত একটি মাইক্রোবাস এসে পরিকল্পিতভাবে মেয়েটির গতিরোধ করে এবং জোর করে মাইক্রোতে উঠিয়ে নিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়। মেয়েটি বাড়িতে না ফিরে না যাওয়ায় তার বাবা-মা অনেক খোঁজাখুঁজি করে জানতে পারে তাদের মেয়েকে অপহরণ করা হয়েছে। পরে আলফাডাঙ্গা থানায় একটি অপহরণ মামলা করা হয়।

অবশেষে অপহরণের নয় দিনের মাথায় শনিবার পুলিশের জালে ধরা পড়ে ভিকটিমসহ অপহরণকারী শফিকুল ইসলাম।

এ বিষয়ে আলফাডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ওয়াহিদুজ্জামান ঢাকাটাইমসকে বলেন, অপহরণকারীকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে এবং ভিকটিমের মেডিকেল পরীক্ষার জন্য ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/২৫জুলাই/কেএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :