ভালো শেয়ার নির্বাচনের ১০ উপায়

মো. শাহ্ নেওয়াজ মজুমদার
 | প্রকাশিত : ০১ আগস্ট ২০২১, ১৭:২৫

প্রত্যেক বিনিয়োগকারীর একটি সাধারণ লক্ষ্য থাকে পুঁজি নিরাপদ রেখে নিশ্চিত লাভ করা। এ জন্য তাকে সবার আগে ভালো শেয়ার নির্বাচন করতে হবে। ভালো শেয়ার বাছাই করতে গিয়ে বিনিয়োগকারীকে জানতে হবে ওই কোম্পানির অতীত-বর্তমান ইতিহাস, এর সঙ্গে কারা জড়িত, তাদের ব্যবসায়িক সততা, দক্ষতা, কোম্পানির বাজারপরিধি।

ভালো মৌল ভিত্তির শেয়ার নির্বাচনের ক্ষেত্রে যেসব লক্ষণ বিবেচনা করা দরকার, তার মধ্যে ১০টি নিয়ে নিচে আলোচনা করা হলো।

১. ভালো প্রবৃদ্ধি: আমাদের প্রথমেই ভালো প্রবৃদ্ধির কোম্পানিগুলো শনাক্ত করতে হবে। তারপর কোম্পানির বিগত ৫ বছরের আয় ধারাবাহিকভাবে বেড়েছে কি না দেখব। আমাদের আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় দেখতে হবে- কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদ। কারণ দক্ষ পর্ষদ একটি কোম্পানিকে অনেক দূর নিয়ে যেতে পারে। কোম্পানি যেসব পণ্যের উৎপাদন বা ব্যবসা করে তার ভবিষ্যৎ সম্ভাবনা কী এবং কেমন হতে পারে তা অনুমান করতে হবে। এছাড়া কোম্পানির পিই রেশিও, আরএসআই, গ্রোথ ইন অপারেটিং প্রফিট, এনপিএটি এবং ইপিএস দেখলে আমরা নিজেরাই ভালো কোম্পানি শনাক্ত করতে পারব।

২. কম দায়: কোম্পানি নির্বাচনের ক্ষেত্রে দ্বিতীয় গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি হলো কোম্পানির দায়। এই দায় কোম্পানির লাভ খেয়ে ফেলে। ফলে প্রতিষ্ঠান ভালো ব্যবসা করলেও ঋণ দায়ের কারণে ভালো লভ্যাংশ দিতে পারে না। অবশ্যই কোনো কোম্পানির দায় দশমিক ৫০ শতাংশের বেশি হওয়া যাবে না। যদি হয় তাহলে বিনিয়োগ তালিকা থেকে বাদ দিতে হবে।

৩. বড় বাজার: প্রতিষ্ঠানের উৎপাদিত পণ্যের টার্গেট কতটা বড় খেয়াল রাখতে হবে। কোম্পানিটি মোট মার্কেটের কত শতাংশ হোল্ড করে তা দেখতে হবে। ভবিষ্যতে সম্ভাব্য বাজার কত বড় হতে পারে তার দিকে খেয়াল রাখতে হবে। কারণ এসবের ওপর ব্যবসায় অগ্রগতি নির্ভর করে।

৪. উচ্চ রিটার্ন: সর্বদা খেয়াল রাখতে হবে উচ্চ রিটার্ন দেওয়া কোম্পানিগুলোর দিকে। যেসব কোম্পানি বিগত ৫ বছর যাবৎ ভালো ডিভিডেন্ট দিয়ে যাচ্ছে সেসব কোম্পানি নির্বাচন করতে হবে। নিচের পদ্ধতিগুলো দেখে বুঝতে হবে কোনটি উচ্চ রিটার্ন দেওয়া কোম্পানি।

ক। Return on Equity (ROE): এর ক্ষেত্রে অনুপাত ১০ বা তার বেশি হওয়া উচিত।

খ।Return on Equity (ROE): এই পদ্ধতিতে কোম্পানির বর্তমান সম্পদভিত্তিক রিটার্ন কী জানা যায়। মোট আয়কে মোট সম্পদ দ্বারা ভাগ করে বের করতে হয়। একটি কোম্পানি মোট সম্পত্তির তুলনায় কতটা লাভজনক তার সূচক। এ সূচক যত বেশি হবে কোম্পানির অবস্থা তত ভালো।

৫. যোগ্য নেতৃত্ব: অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে কারা কোম্পানি পরিচালনা করছেন। যোগ্য নেতৃত্বের ওপর কোম্পানিটির সফলতা অনেকাংশে নির্ভরশীল। নেতৃত্বের সংকটে থাকা কোম্পানিগুলো কখনো ভালো ফলাফল দিতে পারে না।

৬. প্রতিযোগিতা: বিনিয়োগের আগে জানতে হবে বর্তমান প্রতিযোগিতামূলক বাজারে কোম্পানিটির প্রতিযোগী কারা কারা আছে। পূর্ণ প্রতিযোগিতামূলক বাজারে টিকে থাকার জন্য ভালো গুণগত মানসম্পন্ন পণ্য ও পণ্যের ডাইমেনশন নিয়ে ভাবতে হবে। নির্বাচিত পণ্যের অ্যাডভানটেজগুলো কী কী আছে তা বের করে দেখতে হবে তার বাজার সম্ভাব্যতা।

৭. পরিচালকদের মালিকানার অনুপাত: কোম্পানির ডিরেক্টরদের অবশ্যই ৪৫ থেকে ৬০ শতাংশ শেয়ার ধারণ করতে হবে। তাহলেই কোম্পানির গ্রোথ ভালো হওয়ার সম্ভাবনা আছে।

৮. সেক্টর নির্বাচন: ভবিষ্যতে কোন খাতে ব্যবসা-বাণিজ্য ভালো হতে পারে তার ওপর ভিত্তি করে কোম্পানির শেয়ার নির্বাচন করতে হবে।

৯. নগদ প্রবাহ ও দায়: অবশ্যই কম দায়সম্পন্ন অর্থাৎ দশমিক ৫০ শতাংশের কম ঋণ বা দায় গ্রহণকারী কোম্পানির শেয়ার নির্বাচন করতে হবে। অন্যদিকে যেসব কোম্পানির দায় বেশি তাদের লাভ থেকে ঋণের সুদ বেশি খরচ হয়ে যায়। যেসব কোম্পানির নগদ প্রবাহ বেশি তারা অন্যান্য কোম্পানি থেকে অনেক বেশি স্থিতিশীল হয়।

১০. অবমূল্যায়িত: অবশ্যই অবমূল্যায়িত কোম্পানিগুলোর শেয়ারে বিনিয়োগ করতে হবে। নিম্নোক্তভাবে অবমূল্যায়িত কোম্পানির শেয়ার নির্বাচন করতে হবে:

ক। Price Earning Ratio (PE Ratio): পিই রেশিও ১৫ বা তার আশপাশে থাকা স্টকগুলো নির্বাচন করতে হবে।

খ। Price to Book Value ( PB Ratio): শেয়ারের ক্রয়মূল্য যেন NAV এর তিন গুণের বেশি না হয়।

গ। Price earning to Growth (PEG): কোম্পানির শেয়ার নির্বাচনের ক্ষেত্রে অবশ্যই ১৫-এর ঊর্ধ্বে কোম্পানির স্টক ক্রয়ের ক্ষেত্রে সতর্ক থাকতে হবে। পিই রেশিও ১০-এর মধ্যে থাকলে ভালো।

ওয়ারেন বাফেট বলেন, ‘১৫ পিই রেশিও-এর ঊর্ধ্বে শেয়ারের বিনিয়োগ কখনো ভালো বিনিয়োগ হতে পারে না।’ বিনিয়োগকারী হিসেবে সফলতা পেতে হলে সব পুঁজি একটি কোম্পানির শেয়ারে বিনিয়োগ না করে একাধিক ভালো কোম্পানি নির্বাচনপূর্বক বিনিয়োগই আপনার জীবন পাল্টে দিতে পারে।

লেখক: কলামিস্ট।

সংবাদটি শেয়ার করুন

অর্থনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :