বিএনপি একটি ক্ষমতালোভী গোষ্ঠী: হানিফ

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:৩৬

বিএনপি আদর্শিক কোনো দল নয় বরং তারা ক্ষমতালোভী গোষ্ঠী বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ।

শনিবার (১৮ সেপ্টেম্বর) বিকালে রাজধানীর শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মিলনায়তনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

হানিফ বলেন, ‘২০০১ সালে বিএনপি ক্ষমতায় আসার পর তারেক রহমান চাঁদাবাজি, মানুষ হত্যা, রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ নিধন করে স্থায়ী ক্ষমতার স্বপ্ন দেখেছিল। নিচু মানসিকতার তারেক রহমানের ইন্ধনে আওয়ামী লীগের সমাবেশে গ্রেনেড হামলা করা হয়েছিল। এখন লন্ডন থেকে নেতাকর্মীদের বলছে সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন করার জন্য। আন্দোলন না করলে না-কি তাদের দল থেকে বের করে দেবে। এই বিএনপি আদর্শিক কোনো দল নয়, তারা ক্ষমতালোভী গোষ্ঠী।’

এসময় অভিভাবকদের উদ্দেশে হানিফ বলেন, ‘সারাবিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে অনেক দূর এগিয়ে গেছি। সবকিছু এখন হাতের মুঠোয়। আমরা অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে যাচ্ছি কিন্ত নীতি-নৈতিকতায় পিছিয়ে যাচ্ছি। ঘুষ নেয়া যে অপরাধ, এটা আমরা ভুলে গেছি। সবাই দ্রুততম সময়ে বিত্তবান হতে চায়। যার কারণে নৈতিকতার প্রচণ্ড ঘাটতি দেখা যাচ্ছে। শিশুদের নীতি-নৈতিকতা শেখাতে হবে। মেধার বিকাশে শিশুদের চিত্তবিনোদনের জায়গা করে দিতে হবে।’

হানিফ বলেন, ‘আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দুটি সন্তান রয়েছে। তারা দুজনই উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত, নিজ আলোয় উদ্ভাসিত। উন্নত, ডিজিটাল ও প্রযুক্তিনির্ভর বাংলাদেশ গড়তে কাজ করে যাচ্ছেন। অন্যদিকে বিএনপি ক্ষমতায় আসার পরে সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার ছেলে হাওয়া ভবন বানিয়ে সরকারের মধ্যে সরকার গড়ে তুলেছিল। এমন কোনো খারাপ কাজ নেই সে করেনি।’

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘তারেক রহমানের আশ্রয়ে ১২৫টি জঙ্গি গোষ্ঠী ছিল, বিবিসির সাথে সাক্ষাৎকারে তারা এসব স্বীকার করেছে। শিশুদের মাঝে সঠিক ইতিহাস তুলে ধরতে হবে। শিশুদেরকে আমাদের শিকড় সম্পর্কে, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে জানাতে হবে।’

ওয়াজ মাহফিলে মিথ্যাচারের সমালোচনা করে হানিফ বলেন, ‘লোকজ সংস্কৃতি হারিয়ে যাওয়ায় আজ ওয়াজের সংস্কৃতি চালু হয়েছে। আর এসব ওয়াজের বক্তাদের কেউ কেউ বলেন বাংলাদেশে করোনা আসবে না। করোনা এলে কোরআন মিথ্যা প্রমাণিত হবে। অথচ আজ দেশে লাখো মানুষ করোনায় আক্রান্ত। আবার কেউ বলেন অক্সফোর্ডের শিক্ষক ছিলেন। অথচ তার হয়তো ছাত্র হওয়ার যোগ্যতাও নেই। এসব ওয়াজের ব্যাপারে অভিভাবকদের সচেতন হতে হবে।’

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক কৃষিমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা এমপি ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. নাসরীন আহমাদ।

এছাড়াও অনলাইনে যুক্ত ছিলেন লেখক, গবেষক ও সাংবাদিক আবদুল গাফফার চৌধুরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও চিত্রশিল্পী শাহাবুদ্দিন আহমেদ।

অনুষ্ঠানটির আয়োজন করে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপ-কমিটি। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. খন্দকার বজলুল হক। সঞ্চালনা করেন আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন।

জাতীয় সংগীতের মধ্য দিয়ে শুরু হওয়া অনুষ্ঠানের শেষে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার চার শাখায় ১০১ জন বিজয়ীর হাতে বই, গাছ ও সনদপত্র তুলে দেন অতিথিরা।

(ঢাকাটাইমস/১৮সেপ্টেম্বর/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

রাজনীতি এর সর্বশেষ

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :