টাকার জন্য মা'কে কুপিয়ে জখম, গ্রেপ্তার ৩

নোয়াখালী প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:০৭

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বসুরহাট পৌরসভায় পারুল আক্তার (৫০) নামে একজনকে কুপিয়ে আহত করা হয়েছে। পারুলের পালিত ছেলে মো. রুবেল (২০) সন্ত্রাসী দুই বন্ধু মিলে এ ঘটনা ঘটায়। ঘটনার সময় হামলাকারীরা নগদ টাকাও লুট করে নিয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে।

শনিবার গভীর রাতে বসুরহাট পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের জমিন মাঝির বাড়ির মুকবুল আহাম্মদের বসত ঘরে এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত রুবেল ও তার দুই সহযোগী একই এলাকার আলী মাঝি বাড়ির সিরাজ উল্যার ছেলে সালাউদ্দিন (২০) ও মো. ইউসুপের ছেলে মো. ইউনুছকে (২১) আটক করা হয়েছে।

গুরুতর আহত পারুল আক্তারকে প্রথমে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসার পর নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনায় আহত পারুলের স্বামী প্যারালাইসিস রোগী বৃদ্ধ মুকবুল আহম্মদ (৬০) বাদী হয়ে আটক তিনজনকে আসামি করে কোম্পানীগঞ্জ থানায় মামলা করেছেন।

মুকবুল আহম্মদ জানান, চিকিৎসার জন্য নগদ টাকা প্রয়োজন। আর উপার্জনক্ষম কোনো সন্তান না থাকায় তার বসতবাড়িতে দেড় শতাংশ জমি বিক্রি করেন। ওই জমির বায়না বাবদ ২০ হাজার টাকা ঘরে রাখেন। ওই রাতে পারুল আক্তার প্রকৃতির ডাকে ঘরের বাইরে গেলে টাকার লোভে পালক ছেলে রুবেল ও তার দুই সহযোগী মিলে শনিবার রাত ১টায় তার বসত ঘরে ঢুকে। এসময় ঘরে ফেরা মা পারুল আক্তারের কাছে শো-কেসের চাবি চায় রুবেল। চাবি দিতে অস্বীকার করলে তার সহযোগীরাসহ এলোপাতাড়ি মা পারুল আক্তারকে হত্যার উদ্দেশ্যে বটি দিয়ে কুপিয়ে আহত করে। পারুলের পিঠসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম করে ওই টাকা নিয়ে যান তারা। আশপাশের লোকজন বৃদ্ধ মুকবুল ও তার স্ত্রী পারুলের চিৎকার শুনে তিনজনকে আটক করে। পরে পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলরের মাধ্যমে পুলিশে দেয়া হয় তিনজনকে।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাইফুদ্দিন আনোয়ার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আটক তিনজনকে আদালতের মাধ্যমে নোয়াখালীর কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/১৯সেপ্টেম্বর/কেএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :