‘বৈষম্যহীন সমাজই শিশুদের জন্য নিরাপদ বাংলাদেশ গড়তে পারে’

ঢাকাটাইমস ডেস্ক
 | প্রকাশিত : ১৭ অক্টোবর ২০২১, ১৯:৪৭

বৈষম্যহীন সমাজই একমাত্র শিশুদের জন্য নিরাপদ বাংলাদেশ গড়ে তুলতে পারে বলে মনে করেন জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. মশিউর রহমান। তিনি বলেন, ‘সারা বিশ্বে আজকে আমরা পুঁজিবাদী সমাজব্যবস্থা দেখছি। এটি সমাজে সাম্য সৃষ্টি করতে পারে না। বৈষম্যহীন ও মানবিক সমাজ সৃষ্টি করতে হলে আমাদেরকে ১৯৭২ সালের সংবিধানে ফিরে যেতে হবে। যে সংবিধানে বঙ্গবন্ধু সমাজতন্ত্রের কথা বলেছিলেন। কারণ তিনি জানতেন ক্ষুধা, দারিদ্র্য, শোষণহীন সমাজ তথা রাষ্ট্র সৃষ্টি করতে হলে সমাজতন্ত্রের বিকল্প নেই। একারণেই আগামী হাজার বছরে পৃথিবী যত বেশি আধুনিক হবে বঙ্গবন্ধু আমাদের কাছে তত বেশি প্রাসঙ্গিক হবেন। কারণ ক্যারিশমেটিক লিডাররা আগামী শতাব্দীকে বুঝতে পারেন।’

রবিবার (১৭ অক্টোবর) রাজধানীর প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ প্রগতিশীল কলামিস্ট ফোরাম আয়োজিত শহীদ শেখ রাসেল- এর ৫৮তম জন্মদিন উপলক্ষে ‘শিশুদের জন্য নিরাপদ বাংলাদেশ’ শীর্ষক সেমিনারে এসব কথা বলেন উপাচার্য।

উপাচার্য প্রফেসর ড. মশিউর রহমান বলেন, ‘শেখ রাসেল বঙ্গবন্ধুর রক্তের উত্তরাধিকার। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ঘাতকের নির্মম বুলেটে নিহত হন। একই দিনে এত বড় হত্যাকাণ্ডের দৃষ্টান্ত আর নেই। এই হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদ আমরা সব সময় জানাবো। কারণে যেই বাংলাদেশ নামক রাষ্ট্রটি সৃষ্টি করেছিলেন বঙ্গবন্ধু। সেই বাংলাদেশে তার সন্তান নিরাপদ তো দূরে থাক, বেঁচে থাকার অধিকারটুকু হারালেন। এর চেয়ে নির্মম আর কী হতে পারে! আজকে সেই বাংলাদেশের নেতৃত্ব দিচ্ছেন বঙ্গবন্ধুর রক্তের আরেক উত্তরাধিকার। এ কারণেই আমরা আজকে দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাচ্ছি। তা না হলে হয়তো এই দেশ আফগানিস্তান, মিয়ানমার বা পাকিস্তানের মতো রাষ্ট্রে পরিণত হতো।’

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ও বাংলাদেশ প্রগতিশীল কলামিস্ট ফোরামের আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা আসাদুজ্জামান খান এমপি, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ডা. কামরুল হাসান খান, সাবেক আইজিপি এ কে এম শহীদুল হক। সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন মিথুশিলাক মুরমু, স্বাগত বক্তব্য দেন ফোরামের সদস্য সচিব অধ্যাপক ড. মিল্টন বিশ্বাস।

(ঢাকাটাইমস/১৭অক্টোবর/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

শিক্ষা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :