তাহিরপুরে ইউপি নির্বাচনে এক গ্রামে ১১ সদস্য প্রার্থী

প্রকাশ | ২৫ জানুয়ারি ২০২২, ২১:৩৪

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার সদর ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ড মধ্য তাহিরপুর গ্রামে সাধারণ সদস্য প্রার্থী ১১ জন। এ নিয়ে উপজেলায় ব্যাপক আলোচনা চলছে। প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা ও পোস্টারে ছেয়ে গেছে চারদিক।

চলমান ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের সপ্তম ধাপে সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার সাতটি ইউনিয়নে নির্বাচন ৭ ফেব্রুয়ারি। এ উপজেলার সাতটি ইউনিয়নের সাধারণ সদস্য প্রার্থীর সংখ্যায় তাহিরপুর সদর ইউনিয়নের ওয়ার্ডে সর্বোচ্চ।

সদর ইউনিয়নের মধ্য তাহিরপুর ৪ নম্বর ওয়ার্ডে খলাহাটি, মমিসিঙ্গাহাটি ও রায়পাড়া নিয়ে তিনটি মহল্লা রয়েছে। আর ভোটার সংখ্যা ২৩১২ জন। পুরুষ ভোটার ১১০৭ ও নারী ভোটার ১২০৫। মধ্য তাহিরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে গত নিবার্চনে ভোটাররা ভোট দিয়েছেন ১৬৫০ জন। প্রার্থী বেশি হওয়ায় ভোটাররা পড়েছেন মহাবিপদে।

প্রার্থীরা হলেন- মমিসিঙ্গাহাটিতে বর্তমান সদস্য মতিউর রহমান মতি (ভ্যানগাড়ি), আশরাফুল ইসলাম (টিউবওয়েল), হাবিব সারোয়ার (লাঠিম), নাসির উদ্দিন (বৈদ্যুতিক পাখা), আবুল কাশেম (আপেল), জসিম উদ্দিন (ঘোড়া), রায়পাড়ায় সাবেক সদস্য মনধীর রায় (মোরগ), জয় রায় (ক্রিকেট ব্যাট), রুনো (পানির পাম্প), খলাহাটা পাড়ায় প্রার্থী সত্তময় বর্মন (তালা) ও রেন্টু রায় (ফুটবল)।

ভোটাররা জানান, প্রার্থীর দিক দিয়ে এই ওয়ার্ডেই ব্যতিক্রম। কারণ ভোটার কম আর প্রার্থী সংখ্যাই বেশি। গত নিবার্চনে সদর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান প্রার্থী ছিল ১১ জন। আর এবার ৪ নম্বর ওয়ার্ডে সদস্য প্রার্থী ১১ জন। প্রার্থী বেশির কারণে আমরাও আছি মহাবিপদে। তবে যারা যোগ্য তাদেরকেই ভোট দিয়ে নির্বাচিত করব।

১১ জন প্রার্থীর সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, তারা সবাই নিজের বিজয়ের বিষয়ে আশাবাদী। নির্বাচনে যে কেউ প্রার্থী হতে পারে। ভোটাররা যোগ্যতার ভিত্তিতেই তাদের পছন্দের প্রতিনিধি নির্বাচন করবেন।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মঞ্জুরুল হক জানান, আগামী ৭ ফ্রেরুয়ারি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। আমাদের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। ৪ নম্বর ওয়ার্ডে সদস্য পদে ১১ জন প্রার্থী মনোনয়ন দাখিলের পর প্রতীক দেওয়া হয়েছে।

তাহিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল লতিফ তরফদার জানান, আমরা আমাদের পক্ষ থেকে কঠোর অবস্থানে আছি। সবাইকে নিয়ম মেনে চলতে হবে। আমাদের পক্ষ থেকে সরকারি নিদের্শনা ও নির্বাচনের আচরণবিধি মেনে চলতে প্রচারণা চালাচ্ছি।

তাহিরপুর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা রায়হান কবির জানান, নির্বাচনী আচরণবিধি প্রতিপালনে অভিযান অব্যাহত থাকবে। প্রত্যেক প্রার্থীকে আইন মেনে চলার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। অন্যথায় কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

(ঢাকাটাইমস/২৫জানুয়ারি/আইএইচ/কেএম)