ফরিদপুরের ২নং পুলিশ ফাঁড়ির জমির দলিল হস্তান্তর

ফরিদপুর প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৬ মে ২০২২, ২২:৪০

ফরিদপুরের ২ নং হাবেলী গোপালপুরে অবস্থিত ২নং পুলিশ ফাঁড়ির জমি হস্তান্তর করা হয়েছে। এ উপলক্ষে সোমবার সন্ধ্যায় এক দলিল হস্তান্তর অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

এসময় দলিল হস্তান্তর অনুষ্ঠানের অয়োজক ও সভাপতির বক্তব্যে ফরিদপুরের পুলিশ সুপার আলিমুজ্জামান বলেন, আইনশৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখতে পুলিশের তৎপরতার পাশাপাশি জনগণেরও ভূমিকা রয়েছে। সমাজের কোথায় কি হচ্ছে এগুলো দেখার দায়িত্ব রয়েছে সমাজের বসবাসকারীদের। তারা যদি তথ্য না দেন, তাহলে পুলিশের একার পক্ষে কাজ করা বেগবান হয়ে যাবে।

তিনি বলেন, শহর ফরিদপুরের পরিসর বাড়ছে। শিগগির হয়তো ফরিদপুর সিটি কর্পোরেশন ও বিভাগ হবে। এজন্য পুলিশের তৎপরতাও বৃদ্ধি পেয়েছে। জনসংখ্যা বৃদ্ধির সাথে সাথে পুলিশের সক্ষমতা বৃদ্ধিও বিষয়টিও মুখ্য হয়ে উঠেছে।

ফরিদপুরের পুলিশ সুপার তার সময়কালে বিভিন্ন ব্যক্তিদের সাহায্য সহযোগিতায় পুলিশ বিভাগের কর্মকান্ডের উন্নয়নের তথ্য তুলে ধরে জানান, শুধু সরকারের একার পক্ষে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনীর সামর্থ্য বৃদ্ধির বিষয়টি দেখভাল করা সম্ভব না। এজন্য আমরা ব্যক্তি উদ্যোগকে এগিয়ে আসার ব্যাপারে উৎসাহ দিয়েছি। আমার সময়কালে ফরিদপুরের শহরের নজরদারির জন্য যে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করা হয়েছে, তা সম্পূর্ণ ব্যক্তি সহযোগিতায়ই হয়েছে। এসময়ে ফরিদপুরের পুলিশ ২৩টি গাড়ি ব্যক্তি সহযোগিতায় পাওয়া গেছে। পুলিশ ফাঁড়ির এই জমিপ্রাপ্তির মাধ্যমে এই অংশগ্রহণ আরো বেড়ে গেল। এজন্য তিনি সংশ্লিষ্ট জমিদাতাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। অনুষ্ঠানে অতিথির বক্তব্যে ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শামীম হক বলেন, ফরিদপুরের উন্নয়নে জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনেক কিছু করেছেন। কিন্তু মাঝে একটি বিশেষ পরিস্থিতির কারণে জননেত্রী মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিলেন। তবে সেই সময় কেটে গেছে। জননেত্রী শেখ হাসিনা আবার ফরিদপুরের প্রতি সদয় দৃষ্টি দিয়েছেন।

তিনি বলেন, কোয়ালিটি লাইফের জন্য আরো কাজ করতে হবে। ফরিদপুরের জনগণ ট্যাক্স দিচ্ছে, বিদ্যুৎ বিল দিচ্ছে, পানির বিল দিচ্ছে। তাদেরকে তাই প্রয়োজনীয় সেবাও দিতে হবে।

এ ব্যাপারে তিনি ফরিদপুর পৌর মেয়রের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, আপনারও দায়িত্ব রয়েছে জনগণের এসব দিকগুলো দেখভালের জন্য। শহরের অনেক সড়কে অ্যাম্বুলেন্স ঢুকতে পারে না। শহরের কুমার নদ খনন কাজে টেন্ডার হয়েছে, টাকা বরাদ্দ এসেছে তারপরও কাজ হয়নি। পানিসম্পদ উপমন্ত্রীকে বিশেষ অনুরোধ করে সামান্য একটু কাজ করা গেছে।

তিনি ফরিদপুরের জীবনমান উন্নয়নে কুমার নদ খননের গুরুত্ব তুলে ধরে বলেন, ফরিদপুরবাসীর কোয়ালিটি লাইফ স্টাইল গড়ে তুলতে কুমার নদকে ঘিরে অনেক কিছুই করার আছে। এই নদ খনন করে দুই পাশে তাদের বিশ্রামের স্থান তৈরি করে দিতে পারলে তারা উপকৃত হবেন।

ফরিদপুরের পৌর মেয়র অমিতাভ বোস এসময় তার বক্তব্যে পুলিশ ফাঁড়ির জন্য জমি প্রদান করায় সংশ্লিষ্টদের প্রশংসা করে বলেন, এই পরিবার ফরিদপুরের একটি স্বনামধন্য পরিবার। তাদের মতো আরো অনেকেই এগিয়ে আসবেন বলে আশা করছি।

দলিল হস্তান্তর অনুষ্ঠানে এসময় ফরিদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অর্থ) জামাল পাশা, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সুমন রঞ্জন সরকার, অতিরিক্ত পুলি সুপার (ডিএসবি) মো. হেলালুদ্দিন ভুঞা, ২নং পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক সুনীল কুমার কর্মকার, ফরিদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি কবিরুল ইসলাম সিদ্দিকী, জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মানিক মজুমদার, ফরিদপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল ইসলাম পিকুল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সংশ্লিষ্ট সত্রে জানা গেছে, শহরের ঈশান গোপালপুর গ্রামের খগেন্দ্র নাথ সরকারের পুত্র উত্তম সরকার, উজ্জ্বল সরকার, উৎপল সরকার এই জমি দলিল করে হস্তান্তর করে দেন। হস্তান্তর অনুষ্ঠানে মৃত খগেন্দ্র নাথ সরকারের স্ত্রী লিপিকা সরকার উপস্থিত ছিলেন।

(ঢাকাটাইমস/১৬মে/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :