ন্যূনতম ২৫ হাজার টাকা বেতনসহ ৭ দফা দাবি সরকারি কর্মচারীদের

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২২ মে ২০২২, ২১:১৬ | প্রকাশিত : ২২ মে ২০২২, ২১:০৫

বর্তমান বাজারদর এবং ছয় সদস্য বিশিষ্ট পরিবারের ব্যয় বিবেচনা করে সর্বনিম্ন পঁচিশ হাজার টাকা বেতন, নবম জাতীয় পে-কমিশন গঠন এবং নবম পে-স্কেল ঘোষণা না হওয়া পর্যন্ত ১১-২০তম গ্রেডভুক্ত কর্মচারীদেরকে ৫০ শতাংশ মহার্ঘ ভাতা প্রদানসহ ৭ দফা দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ সরকারি কর্মচারী দাবি বাস্তবায়ন ঐক্য ফোরাম।

রবিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের মওলানা মোহাম্মদ আকরাম খাঁ হলে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব দাবি জানান তারা।

সংবাদ সম্মেলনে ঐক্য ফোরামের মুখ্য সমন্বয়ক জনাব মো. ওয়ারেছ আলী লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ সরকারি কর্মচারী দাবি বাস্তবায়ন ঐক্য ফোরামটি ১৪টি সংগঠন নিয়ে গঠিত। সংগঠনগুলো হলো– ‘বাংলাদেশ সরকারি কর্মচারী কল্যাণ ফেডারেশন’; ‘১১-২০ গ্রেডের সরকারি চাকরিজীবিদের সম্মিলিত অধিকার আদায় ফোরাম’; ‘বাংলাদেশ ১৬-২০ গ্রেড সরকারি কর্মচারী সমিতি(সাবেক ৪র্থ শ্রেণি কর্মচারী সমিতি)’; ‘বাংলাদেশ সরকারি গাড়িচালক সমিতি’; ‘বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি(তোতা-গাজী)’; ‘বাংলাদেশ প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি (কাসেম-শাহীন)’; ‘বাংলাদেশ প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক সমাজ (আনিস-রবিউল)’; ‘বাংলাদেশ প্রাথমিক সহকারী শিক্ষক সমাজ (শাহীনুর-আল আমিন)’; ‘বাংলাদেশ সরকারি কর্মচারী সংহতি পরিষদ’; ‘বাংলাদেশ তৃতীয় শ্রেণি সরকারি কর্মচারী সমিতি’; ‘বাংলাদেশ বিচার বিভাগীয় কর্মচারী অ্যাসোসিয়েশন’; ‘বাংলাদেশ ডাক কর্মচারী সমন্বয় পরিষদ’; ‘বাংলাদেশ জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল শ্রমিক কর্মচারী সংগঠন’; এবং ‘বাংলাদেশ সরকারি কর্মচারী উন্নয়ন পরিষদ’।

ফোরামের দাবিগুলো হচ্ছে -

* জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কর্তৃক প্রদত্ত ১৯৭৩ সনের জাতীয় বেতন স্কেলের অনুরূপ ১০ (দশ) ধাপ বিশিষ্ট বেতন স্কেল নির্ধারণ-পূর্বক ০৬ (ছয়) সদস্য বিশিষ্ট পরিবারের ব্যয় বিবেচনায় সর্বনিম্ন ২৫,০০০/- (পঁচিশ হাজার) টাকা করতে হবে এবং এ উপলক্ষ্যে নবম জাতীয় পে-কমিশন গঠন করতে হবে। নবম পে-স্কেল ঘোষণা না হওয়া পর্যন্ত অন্তবর্তীকালীন সময়ের জন্য ১১-২০তম গ্রেডভূক্ত কর্মচারীদেরকে ৫০% মহার্ঘ ভাতা প্রদান করতে হবে, শতভাগ পেনশন প্রদান, স্বেচ্ছায় অবসরে চাকরির বয়সসীমা ২০ বছর নির্ধারণ এবং আনুতোষিক প্রতি ১ (এক) টাকায় ৩০০/- (তিনশত) টাকা নির্ধারণ করতে হবে এবং পে-কমিশনে কর্মচারীর প্রতিনিধি রাখতে হবে।

* সচিবালয়ের ন্যায় সচিবালয়ের বাহিরে সকল দপ্তর/অধিদপ্তরে কর্মরত কর্মচারীদের পদবী ও গ্রেড পরিবর্তনসহ প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীদের জন্য এক ও অভিন্ন নিয়োগ বিধি প্রণয়ন এবং প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদেরকে প্রথম শ্রেণি ও সহকারী শিক্ষকদেরকে দ্বিতীয় শ্রেণির কর্মকর্তার পদমর্যাদা ও শতভাগ বিভাগীয় পদোন্নতি প্রদান করতে হবে।

* ব্লক পদ প্রথা প্রত্যাহার, পদোন্নতিযোগ্য পদ শূণ্য না থাকলেও নির্ধারিত সময়ের পর উচ্চতর পদের বেতন স্কেল প্রদান, ঝুঁকিপূর্ণ কর্মে নিয়োজিত কর্মচারীদেরকে যৌক্তিকভাবে ঝুঁকিভাতা প্রদান করতে হবে এবং আউট সোর্সিং নিয়োগ প্রথা বিলুপ্ত করতে হবে।

* ১১-২০তম গ্রেডভূক্ত কর্মচারীদের ক্ষেত্রে বার্ষিক বেতন বৃদ্ধির হার ৫% এর পরিবর্তে ২০% এ উন্নীত করতে হবে। টাইম স্কেল-সিলেকশন গ্রেড, টেকনিক্যাল কর্মচারীদের জন্য দু’টি বিশেষ ইনক্রিমেন্ট পুনর্বহাল। এলাকা ভেদে ৭০% হতে ১০০% হারে বাড়িভাড়া ভাতা, সামঞ্জস্যপূর্ণ চিকিৎসা ভাতা, টিফিন ভাতা, যাতায়াত ভাতা প্রদান করতে হবে।

* ১১-২০তম গ্রেডভুক্ত কর্মচারীদেরকে বিনাসুদে ২৫-৩০ লাখ টাকা গৃহঋণ সুবিধা ও গ্যাস, বিদ্যুৎ, পানির বিল বাবদ প্রতিমাসে ০৫ (পাঁচ) হাজার টাকা প্রদান করতে হবে।

* উন্নয়ন খাত থেকে রাজস্বখাতে স্থানান্তরিত কর্মচারীদের চাকরি শুরু থেকে গণনা, অযাচিত ২০% হারে পেনশন কর্তনের হয়রানি বন্ধ করতে হবে। ১১-২০তম গ্রেডভুক্ত কর্মচারীদের জন্য সকল নিয়োগে ৩০% পোষ্য কোটা সংরক্ষণ করতে হবে। অফিসার্স ক্লাব, বিএমএ, কেআইবি, ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট, ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন এর মতো চাকরিরত ও অবসর প্রাপ্ত কর্মচারীদের জন্য রাজধানীতে একটি কর্মচারী কমপ্লেক্স নির্মাণ করতে হবে।

* সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়স সীমা ৩৫ (পঁয়ত্রিশ) ও অবসরের বয়সসীমা ৬২ (বাষট্টি) বছর এবং অধঃস্তন আদালতে কর্মচারীদের বিচার বিভাগীয় কর্মচারী হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে।

উল্লেখ্য, ফোরামটি আগামী ৩ জুন কর্মচারী মহাসমাবেশের ঘোষণা দিয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/২২মে/এমএইচ/ইএস)

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :