কারাগারে যেমন আছেন নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪ ট্রাস্টি

আশিক আহমেদ, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৬ জুন ২০২২, ২২:৩৩

টাকা আত্মসাতের মামলায় আগাম জামিন নিতে গিয়ে আটক হয়ে কারাগারে যেতে হয়েছে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের চারজন ট্রাস্টিকে। ৩০৩ কোটি ৮২ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ছয়জনের বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক। এদের মধ্যে চারজন কারাগারে থাকলেও বাকি দুজন পলাতক রয়েছেন।

মামলাটির এখনও তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছে দুদক। কারাগারে কেমন আছেন এই চারজন ট্রাস্টি, জানতে চাইলে কারাগারের একটি সূত্র জানিয়েছে, কারাগারে ভালো আছেন তারা।

চার ট্রাস্টির মধ্যে রেহানা রহমান এখন কাশিমপুর মহিলা কারাগারে বন্দি আছেন। আর অন্য তিনজন ট্রাস্টি এম এ কাশেম, মোহাম্মদ শাহজাহান ও বেনজীর আহমেদ ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি রয়েছেন। কারাগারে তারা ভালো আছেন। খুব সকালে ঘুম থেকে ওঠেন। নিয়ম করে পেপার পত্রিকা পড়েন। সকালের চা-নাস্তা খেয়ে তাদের রুমের মধ্যেই বিশ্রাম নেন। মাঝেমধ্যে পরিবারের সঙ্গে কারাগার থেকে মুঠোফোনে কথা বলেন তারা।

গত ২২ মে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের চার ট্রাস্টিকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায় পুলিশ। এই চারজন হলেন রেহানা রহমান, এম এ কাশেম, মোহাম্মদ শাহজাহান ও বেনজীর আহমেদ। ওই মামলায় জামিন চেয়ে চারজনের করা পৃথক আবেদনের শুনানি শেষে বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কাজী মো. ইজারুল হক আকন্দের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

এর আগে শুনানিকালে আদালত বলেন, মানি লন্ডারিং ও দুর্নীতি হত্যার চেয়ে বিপজ্জনক অপরাধ। একটি হত্যা একজন ব্যক্তি বা পরিবার বা সমাজকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে। তবে মানি লন্ডারিং ও দুর্নীতি দেশ ও জাতিকে ধ্বংস করে দিতে পারে।

নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের জমি কেনা বাবদ অতিরিক্ত ৩০৩ কোটি ৮২ লাখ টাকা ব্যয় দেখিয়ে তা আত্মসাতের অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয়টির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে ৫ মে মামলাটি করে দুদক। ছয়জনের মধ্যে ওই চারজন আগাম জামিন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেন। এই ছয়জন হলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান আজিম উদ্দিন আহমেদ, সদস্য এম এ কাশেম, বেনজীর আহমেদ, মোহাম্মদ শাহজাহান, রেহানা রহমান ও আশালয় হাউজিংয়ের আমিন মো. হিলালী। এদের মধ্যে সদস্য এম এ কাশেম, বেনজীর আহমেদ, মোহাম্মদ শাহজাহান, রেহানা রহমান গ্রেপ্তার হয়ে কারাগারে গেলেও বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান আজিম উদ্দিন আহমেদ এবং আশালয় হাউজিংয়ের আমিন মো. হিলালী এখনও পলাতক রয়েছে।

গত ২৫ মে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যানসহ ছয় জনের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা ঢাকা মহানগরের জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ কে এম ইমরুল কায়েশ এই আদেশ দেন।

এর আগে দুদকের করা মামলায় গতকাল সোমবার রেহানা রহমান, এম এ কাশেম, মোহাম্মদ শাহজাহান ও বেনজীর আহমেদকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদ করার নির্দেশ দিয়েছিলেন আদালত।

মামলাটি তদন্ত করছেন দুদকের উপপরিচালক ফরিদ আহমেদ পাটোয়ারী । তিনি ঢাকাটাইমসকে বলেন, এই মামলায় ছয়জন আসামির মধ্যে চারজন আসামি করাগারে আছেন। আর অন্য দুইজন আসামি এখনও পলাতক আছেন। মামলার তদন্ত চলছে।

(ঢাকাটাইমস/২৬ জুন/এএ/কেএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিশেষ প্রতিবেদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :