অধ্যাপক মোর্শেদকে বাসা ছাড়ার নোটিশ অমানবিক: ইউট্যাব

ঢাবি প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ০৬ জুলাই ২০২২, ১৭:১৯ | প্রকাশিত : ০৬ জুলাই ২০২২, ১৬:২৪

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) মার্কেটিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মোর্শেদ হাসান খানকে বরাদ্দকৃত আবাসিক বাসা ছাড়ার নোটিশকে অগ্রহণযোগ্য, নজিরবিহীন এবং অমানবিক আখ্যা দিয়েছে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের সংগঠন ইউনিভার্সিটি টিচার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ইউট্যাব)। একইসাথে গত মঙ্গলবার (৫ জুলাই) বাসা ছাড়ার নোটিশ স্থগিত চেয়ে অধ্যাপক ড. মোর্শেদ হাসান খানের আবেদন আদালত খারিজ করে দেওয়ায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে সংগঠনটি।

বুধবার (০৬ জুলাই) ইউট্যাবের সভাপতি অধ্যাপক ড. এবিএম ওবায়দুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক নিন্দা ও প্রতিবাদলিপিতে এই উদ্বেগ জানানো হয়েছে।

প্রতিবাদলিপিতে বলা হয়, একটি জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত তথাকথিত একটি লেখাকে কেন্দ্র করে প্রথমে ড. মোর্শেদ হাসান খানের বাকস্বাধীনতা হরণ করা হয়েছে। এমনকি ওই লেখায় শেখ মুজিবুর রহমানকে অবমাননা ও মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতির মিথ্যা অভিযোগ তুলে বিশ্ববিদ্যালয়ের চাকুরি থেকে বেআইনীভাবে অব্যহতি দেওয়া হয়েছে। এই সিদ্ধান্ত যে কেবল রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত তা সকলেই বিশ্বাস করে।

প্রতিবাদলিপিতে আরো বলা হয়, অধ্যাপক মোর্শেদ হাসান খান রাজনৈতিক প্রতিহিংসার টার্গেটে পরিণত হয়েছেন। চাকুরি থেকে বরখাস্ত হওয়ার পর বর্তমান চরম সঙ্কটকালে অসুস্থ স্ত্রী ও কন্যা সন্তান নিয়ে তিনি কোথায় গিয়ে আশ্রয় নিবেন? তার চাকুরি ফিরে পাওয়ার বিষয়টি এখনো আদালতে বিচারাধীন। এমনই পরিস্থিতিতে তাকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক বাসা ছাড়তে নোটিশ দেওয়া অত্যন্ত অগ্রহণযোগ্য, নজিরবিহীন এবং অমানবিক। এর মাধ্যমে প্রমাণিত হয় কোনো বিচারাধীন বিষয়কে তোয়াক্কা না করেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বাসা ছাড়ার যে নোটিশ দিয়েছে তা উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। অধ্যাপক মোর্শেদ হাসান খান দেশের সর্বোচ্চ আদালতে ন্যায় বিচার পাবেন।

মানবিক বিবেচনায় অধ্যাপক মোর্শেদ হাসান খানের মামলার চূড়ান্ত নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত বাসা ছাড়ার নোটিশ প্রত্যাহার অথবা স্থগিত করার দাবি জানায় ইউট্যাব।

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালের ২৬ মার্চ একটি জাতীয় দৈনিকে মোর্শেদ হাসানের লেখা ‘জ্যোতির্ময় জিয়া’ শিরোনামে নিবন্ধে বঙ্গবন্ধুর অবমাননা, মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্পর্কে ঔদ্ধত্যপূর্ণ বক্তব্যের অভিযোগে ওই বছরের ২ এপ্রিল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রম থেকে সাময়িক অব্যাহতি দেয়। পরে ২০২০ সালের ৯ সেপ্টেম্বর মোর্শেদ হাসানকে স্থায়ীভাবে অপসারণ করা হয়।

অব্যহতির সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আচার্যের কাছে আপিল করে সাত মাসেও কোনো ফল না পেয়ে গত বছর রিট করেন মোর্শেদ হাসান। ওই রিটের পরিপ্রেক্ষিতে গত বছরের ৮ জুন রুল জারি করেন হাইকোর্ট। রুলে মার্কেটিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মোর্শেদ হাসান খানকে চাকরি থেকে অপসারণের আদেশ কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চাওয়া হয়। এ রুল বিবেচনাধীন থাকা অবস্থায় চলতি বছরের ২৯ জুন বাসা ছাড়তে এই অধ্যাপককে নোটিশ দেওয়া হয়। সেই নোটিশ স্থগিত চেয়ে তিনি আবেদন করেন। যেটি মঙ্গলবার (০৫ জুলাই) খারিজ হয়ে যায়।

(ঢাকাটাইমস/৬জুলাই/এসএটি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

শিক্ষা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিক্ষা এর সর্বশেষ

বুয়েটে ছাত্রলীগের সাবেক নেতাদের সভা, শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

ভর্তি পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকদের পাশে ইবি ছাত্রলীগ

জাবি উপ-উপাচার্য নুরুল আলমের মেয়াদ শেষ হবে রবিবার

কুবিতে গুচ্ছের 'বি' ইউনিটের পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন

রাবিতে ‘বিডিঅ্যাপস হ্যাকাথন’ এর আঞ্চলিক পর্ব অনুষ্ঠিত

জাবি উপাচার্য প্যানেল নির্বাচনে জয়ী তিন অধ্যাপক আমির আলম অজিত

জাবির উপাচার্য প্যানেল নির্বাচনে প্রথম হলেন অধ্যাপক আমির হোসেন

উপাচার্য নির্বাচনে জাবি অধ্যাপক মোতাহার হোসেনের প্রার্থিতা প্রত্যাহার

রাবিতে পাওয়া গেল ৭ ফুটের বিষধর খৈয়া গোখরা

গুচ্ছের বি ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষার জন্য প্রস্তুত কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :