বিচার শেষ হতে পারে কলঙ্ক শেষ হয়নি: আইনমন্ত্রী

প্রকাশ | ১৫ আগস্ট ২০২২, ১৭:৩৪

আখাউড়া (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস

আইন বিচার ও সংসদ বিষয়কমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতার কারণে বঙ্গবন্ধর তিন খুনির হদিস নেই। তারা কোথায় আছে- কেউ জানে না। এই তিন খুনিকে ধরে এনে যতক্ষণ পর্যন্ত বিচারের রায় কার্যকর না করা হবে, ততক্ষণ পর্যন্ত তাদের খোঁজা হবে। ইঁদুরের গর্তে গিয়েও তারা লুকিয়ে থাকতে পারবে না।

সোমবার সকালে আখাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের আয়োজনে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আখাউড়া রেলস্টেশন চত্বরে আলোচনা সভা, মিলাদ ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী আরও বলেন, এখন সময় এসেছে বঙ্গবন্ধুর ঋণ শোধ করার। সবাই মিলে শেখ হাসিনার হাতকে শক্ত করে সোনার বাংলার গড়ার তার যে প্রত্যয় এবং কর্ম- সেটাকে সফল করতে পারলেই জাতি পিতাকে আমরা বলতে পারব, কলঙ্ক ইতিহাস থেকে যাবে না মুছা, আমরা তোমার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে পেরেছি। তুমি সারাজীবন যে জন্য যুদ্ধ করেছ, আমরা সেটাকে সত্য করেছি। আমরা ভুল করেছি, আমাদেরকে ক্ষমা কর। এই কথাটুকু বলার সময় এখনও আসে নাই। বিচার শেষ হতে পারে- কলঙ্ক শেষ হয়নি।

দ্রব্যমূল্য ও জ্বালানির মূল্য বৃদ্ধি প্রসঙ্গে আইনমন্ত্রী বলেন, এখন খুব কঠিন সময় চলছে। সারাবিশ্বে অভাব।  বাংলাদেশের মানুষের জীবনেও সেই কঠিনত্ব আছে। মানুষের কষ্ট শেখ হাসিনা বুঝে। আমরা বুঝি। আমরা আপ্রাণ চেষ্টা করছি জনগণের কষ্ট লাঘব করার জন্য। আমি আপনাদের সন্তান, আপনাদের সেবক। সেই দাবি থেকে বলছি, আপনাদের কষ্ট, আমার কষ্ট। আমরা চেষ্টা করছি। আমি জানি শুধু চালের দাম বাড়ায় নাই। তেলের দাম, ডিজেলের দাম। তারপরেও ভর্তুকি দেয়া হচ্ছে। আওয়ামী লীগ চায় না জনগণকে কষ্ট দিতে। আমরা খুব সুখে ৮৪ টাকা থেকে ১১৪ টাকা করি নাই। আমরা বাধ্য হয়ে দাম বাড়িয়েছি। আমরা করোনা ভাইরাস পার করেছি। এই ঝড়ও পার করতে পারব ইনশাল্লাহ।

তিনি আরও বলেন, শেখ হাসিনা এটাই প্রমাণ করেছে যে বঙ্গবন্ধুর রক্তকে দাবাই রাখা যায় না এবং বঙ্গবন্ধুর রক্তকে যখন দাবাই রাখা যায় না তখন বাংলার মানুষকেও দাবাই রাখা যায় না। আমরা বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঘুরে দাঁড়াতে শিখেছি। বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে সোনার বাংলা গড়ে ছাড়বেন।

আখাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী চৌধুরীর সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন- আইন সচিব গোলাম সারোয়ার, আখাউড়া পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. তাকজিল খলিফা কাজল, ইউএনও অংগ্যজাই মারমা, আখাউড়া-কসবা সার্কেল এএসপি কামরুল ইসলাম, উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদিকা পিয়ারা আক্তার প্রমুখ।

এর আগে মন্ত্রী আন্তঃনগর মহানগর এক্সপ্রেস ট্রেনে ঢাকা থেকে সকাল সোয়া ১০টায় আখাউড়া রেলস্টেশনে এসে পৌঁছেন। পরে শোক র‌্যালিতে অংশ নিয়ে উপজেলা পরিষদ চত্বরে স্থাপিত বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানান।

(ঢাকাটাইমস/১৫আগস্ট/এলএ)