ফুসফুসের ক্যানসার সারাবে রোবোটিক ব্রঙ্কোস্কোপি: গবেষণা

ফিচার ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৯ নভেম্বর ২০২২, ১০:২৯

ফুসফুস মানবদেহের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গগুলোর একটি। শ্বাস-প্রশ্বাস, রক্তে অক্সিজেন প্রবেশ, কার্বন-ডাই অক্সাইড নির্গমনসহ দেহের অনেক জরুরি কাজ করে। ফুসফুস প্রাণীর চালিকাশক্তি। সুস্থ ফুসফুসের কারণে মানুষ সুস্থভাবে জীবনযাপন করে থাকে। সারা বিশ্বে ফুসফুস ক্যানসারে আক্রান্ত হয়ে ১৮ লাখ লোক মারা যায়।

সম্প্রতি ফুসফুসের ক্যানসার নিরাময়ে যুগান্তকারী আবিষ্কার রোবোটিক ব্রঙ্কোস্কোপি প্রযুক্তি। আমেরিকার মেন লাইন হেলথের চিকিৎসকরা রোবোটিক প্রযুক্তিতে ফুসফুসের ক্যানসারকে প্রাথমিকভাবে খুঁজে বের করতে সক্ষম হয়েছে। চিকিৎসকদের দাবি, ক্যানসারের চিকিৎসা করাও সম্ভব হচ্ছে এই পদ্ধতির সাহায্যে। প্রাণঘাতী হয়ে ওঠার আগেই ফুসফুসের ক্যানসার কোষ চিহ্নিত করবে রোবোটিক টেকনোলজি, সেই ক্যানসার কোষ নির্মূলও করতে পারবে। চিকিৎসা বিজ্ঞানের ইতিহাসে নতুন মাইলফলক রোবোটিক ব্রঙ্কোস্কোপি প্রযুক্তি।

নতুন রোবোটিক পদ্ধতি ফুসফুসের ক্যানসারে আক্রান্ত অনেক মানুষের জীবন বাঁচাতে সফল হচ্ছে। ফুসফুসের ক্যানসার মারাত্মক হয়ে ওঠে, কারণ এটি প্রাথমিক ভাবে শনাক্ত করা কঠিন। কলম্বিয়া ব্রডকাস্টিং সিস্টেমের খবর অনুযায়ী, আমেরিকার মেন লাইন হেলথের চিকিৎসকরা বলছেন যে রোবোটিক প্রযুক্তি ফুসফুসের ক্যানসারকে প্রাথমিক ভাবে খুঁজে বার করা সম্ভব হচ্ছে। শুধু তা-ই নয়, ক্যানসারের চিকিৎসা করাও সম্ভব হচ্ছে এই পদ্ধতির সাহায্যে।

রোবোটিক ব্রঙ্কোস্কোপি এই নতুন প্রযুক্তির সাহায্যে চিকিৎসকরা ইমেজিং গাইডেন্স এবং মিনি-টিউবের মাধ্যমে রোগীর ফুসফুসের একেবারে গভীরে গিয়ে পরীক্ষা করতে পারেন।

চিকিৎসকদের মতে, ধূমপানই ফুসফুসের ক্যানসারের প্রধান কারণ। তাই ধূমপায়ীদের মধ্যেই এই অসুখের প্রবণতা বেশি। তবে আজকাল ‘প্যাসিভ স্মোকার’ কিংবা একেবারেই ধূমপান করেন না এমন ব্যক্তিও এই অসুখের শিকার হচ্ছেন। নারী-পুরুষ নির্বিশেষে। ধূমপায়ীদের আশপাশে থাকা ছাড়াও এই রোগের আরও একটি কারণ অবশ্যই পরিবেশ দূষণ। এ ছাড়া আরও এক ধরনের ফুসফুসের ক্যানসার আছে, যার অন্যতম কারণ জিনগত পরিবর্তন। কিন্তু এর কারণ আজও অজানা।

রোবোটিক ব্রঙ্কোস্কোপি প্রযুক্তির সবচেয়ে বিশেষ দিকটি হল, যদি এই পদ্ধতিতে ফুসফুসে ক্যানসার কোষের হদিস মেলে, তা হলে অ্যানেস্থেশিয়ার মাধ্যমে রোগীর অচৈতন্য অবস্থায় থাকাকালীন চিকিৎসকরা তাঁর চিকিৎসাও করতে সফল হচ্ছেন। চিকিৎসকদের মতে, এই রোবোটিক প্রযুক্তি বিশেষ ভাবে গুরুত্বপূর্ণ হতে পারে, এমন লোকেদের জন্য যাঁদের ফুসফুসের ক্যানসারে হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে। ক্যানসার ছড়িয়ে পড়ার আগেই তা ধরা পড়লে অনেক মানুষের প্রাণ বাঁচতে পারে। চিকিৎসকদের মতে, এই আবিষ্কার যুগান্তকারী।

ব্রঙ্কোস্কোপি হল এমন একটা পদ্ধতি যেখানে একটি সরু ও ধাতব নল সোজা শ্বাস নেওয়ার পথে ঢুকিয়ে দেওয়া হয়। এই নলকে বলে ব্রঙ্কোস্কোপ। এই ব্রঙ্কোস্কোপ ঢুকিয়ে ডাক্তাররা গলা, ল্যারিংক্স বা স্বরনালী, ট্রাকিয়া বা শ্বাসনালীর পরীক্ষা করে থাকেন। শ্বাসনালী কোনও ‘ফরেন পার্টিকল’ আটকে গেলে বা সংক্রমণ হলে, এই পদ্ধতিতে চিকিৎসা করেন ডাক্তাররা। অনেক সময় বুকের এক্স-রে বা চেস্ট এক্স-রে তে সবটা ধরা পড়ে না। তখন ব্রঙ্কোস্কোপির সাহায্য নেওয়া হয়। এই পদ্ধতিতে শ্বাসনালি বা ফুসফুসে ব্লকেজ থাকলে সেটাও ছাড়ানো যায়। আবার বায়োপসির জন্য কোষ বা মিউকাসের নমুনাও সংগ্রহ করা যায়।

উল্লেখ্য, ক্যানসারে মৃত্যুর প্রায় এক-তৃতীয়াংশই তামাক ও অ্যালকোহল সেবন, শাকসবজি ও ফল কম খাওয়া, শারীরিক পরিশ্রমের অভাবের কারণে হয়ে থাকে। আর ফুসফুস ক্যানসারে আক্রান্তদের ৯০ ভাগই প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ তামাক সেবনকারী। এছাড়া যানবাহন ও কারখানার কালো ধোঁয়া, বায়ুদূষণ, অজৈব পদার্থের ক্ষুদ্র কণা বা আঁশ (যেমন অ্যাসবেসটস, নিকেল, ক্রোমিয়াম) এবং জৈব পদার্থ (যেমন বেনজিন, বেনজোপাইরিন) বায়ুর সঙ্গে ফুসফুসে প্রবেশ করে ফুসফুসের ক্যানসার সৃষ্টি করতে পারে।

ফুসফুসের ক্যানসারে আক্রান্ত রোগীর আত্মীয়ের ক্যানসার হওয়ার ঝুঁকিও অন্যদের তুলনায় প্রায় দ্বিগুণ। এ ছাড়া সিলিকোসিস, ইন্টারস্টিশিয়াল লাং ডিজিজ, সিস্টিক ফাইব্রোসিস, ক্রনিক ব্রঙ্কাইটিস রোগগুলোয় ফুসফুসের ক্যানসারের ঝুঁকি বেশ বৃদ্ধি পায়। অনাকাঙ্ক্ষিত তেজস্ক্রিয়তাও ফুসফুসের ক্যানসারের উল্লেখযোগ্য কারণ। অতিরিক্ত মদ্যপান ও ফুসফুস ক্যানসারের সঙ্গে সম্পর্কিত।

(ঢাকাটাইমস/২৯ নভেম্বর/আরজেড)

সংবাদটি শেয়ার করুন

ফিচার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :