পূর্ব ইউক্রেনে চলছে তীব্র লড়াই, রাশিয়ার বিরুদ্ধে অবস্থান বজায় রাখতে চায় ন্যাটো

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকা টাইমস
 | প্রকাশিত : ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১৬:৫৮

রুশ বাহিনী সম্প্রতি পূর্ব ইউক্রেনে তাদের মনোনিবেশ করেছে। এছাড়াও দক্ষিণে খেরসনে প্রশিক্ষিত সেনাদের মাধ্যমে ট্যাঙ্ক, মর্টার এবং আর্টিলারি ফায়ার করেছে বলে ইউক্রেনের সামরিক বাহিনী জানিয়েছে। এমন অবস্থায় ইউক্রেন এবং তার প্রতিবেশীরা যেন মস্কোকে চাপে রাখে পশ্চিমা মিত্ররা আপ্রাণ সে চেষ্টা করে যাচ্ছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

ওয়াশিংটনে, ইউক্রেনের জন্য ছয়টি ন্যাশনাল অ্যাডভান্সড সারফেস-টু-এয়ার মিসাইল সিস্টেমের জন্য ১.২ বিলিয়ন ডলারের চুক্তি রেথিয়নকে দেওয়া হয়েছিল বলে পেন্টাগন জানিয়েছে।

ইউক্রেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী দিমিত্রো কুলেবা বুধবার বলেছেন, তার দেশের বেসামরিক অবকাঠামো রক্ষার জন্য মার্কিন-তৈরি প্যাট্রিয়ট ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার প্রয়োজন, যা শীতের শুরুতে রাশিয়ার মাধ্যমে প্রবল আক্রমণের শিকার হয়েছে।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন বলেছেন, রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ইউক্রেনের বেসামরিক জনগণের ওপর ‘তার ক্রোধ এবং আগুন’ কেন্দ্রীভূত করেছেন। তিনি রাশিয়াকে সতর্ক করে বলেছেন, তাদের কৌশল ইউক্রেনের সমর্থকদের বিভক্ত করতে পারবে না, ব্যর্থ হবে।

ব্লিঙ্কেন রোমানিয়ার বুখারেস্টে অনুষ্ঠিত দুই দিনের ন্যাটো বৈঠকের পর এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘তাপ, পানি, বিদ্যুৎ...এগুলো হল প্রেসিডেন্ট পুতিনের নতুন টার্গেট। তিনি এগুলোতে কঠোরভাবে আঘাত করছেন। ইউক্রেনের জনগণের প্রতি এটি তাদের বর্বরতার প্রমাণ।’

বুধবার ন্যাটো পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠকে মিত্ররা রাশিয়ার চাপের মুখে মোল্দোভা, জর্জিয়া এবং বসনিয়া-হার্জেগোভিনাকে সাহায্য করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে বলে ন্যাটো মহাসচিব জেনস স্টলটেনবার্গ এবং মন্ত্রীরা জানিয়েছেন।

রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা বলেছেন, ফলাফলে দেখা যাচ্ছে ন্যাটো ইউক্রেনের রাজনৈতিক ও কূটনৈতিক সমাধানে একেবারেই আগ্রহী নয়।

রাশিয়া নয় মাস আগে ইউক্রেনে আগ্রাসন চালায়। এটিকে তারা বিপজ্জনক বলে মনে করা ইউক্রেনকে জাতীয়তাবাদীদের হাত থেকে মুক্ত করতে ‘বিশেষ সামরিক অভিযান’ বলে আখ্যা দিয়েছে। ইউক্রেন এবং পশ্চিমা মিত্ররা রাশিয়াকে বিনা উস্কানিতে, সাম্রাজ্যবাদী ভূমি দখলের অভিযোগ এনেছে।

মাদ্রিদে ইউক্রেনের রাষ্ট্রদূত এবং ইউক্রেনে দান করা রকেট লঞ্চার তৈরিকারী স্পেনের একটি অস্ত্র কোম্পানির কাছে দুটি লেটার বোমা পাঠানোর পর ইউক্রেন বিদেশে কিয়েভের সমস্ত দূতাবাসকে নিরাপত্তা জোরদার করার নির্দেশ দেয়। স্প্যানিশ পুলিশ জানিয়েছে, তারা দুটি বোমার মধ্যে সম্ভাব্য যোগসূত্র পরীক্ষা করছে, যার মধ্যে দূতাবাসের এক নিরাপত্তা কর্মকর্তা আহত হয়েছেন।

(ঢাকাটাইমস/০১ ডিসেম্বর/ এসএটি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :