সভা-সমাবেশ বিএনপির রাজনৈতিক অধিকার তবে উন্মুক্ত মাঠেই করতে হবে: ডিএমপি কমিশনার

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ১৯:২৬ | প্রকাশিত : ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ১৮:৩২

বিএনপিকে রাজধানীর নয়াপল্টনের রাস্তায় কোনো সমাবেশ করতে দেওয়া হবে না বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার খন্দকার গোলাম ফারুক।

তিনি বলেছেন, ‘সভা-সমাবেশ বিএনপির রাজনৈতিক অধিকার। তবে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান বা ঢাকার কোনো উন্মুক্ত স্থানেই সমাবেশ করতে হবে। অনুমতির বাইরে অন্য কোথাও সমাবেশ করার চেষ্টা করলে পুলিশ আইন অনুযায়ী সর্বোচ্চ ব্যবস্থা নেবে।’

বুধবার বিকাল পাঁচটার দিকে ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসে তিনি এসব কথা বলেন।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, ‘মিরপুরের কালসি, টঙ্গি বিশ্ব ইজতেমার মাঠ অথবা পূর্বাচলের বাণিজ্য মেলার মাঠে বিএনপি চাইলে সমাবেশ করতে পারবে। সেক্ষেত্রে পুলিশ তাদের সব ধরনের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করবে।’

‘কয়েকদিন আগে বিএনপির কিছু নেতাকর্মী আমার কাছে এসে একটি আবেদন করেন। ওনারা পল্টন সমাবেশ করবেন। পরে গোয়েন্দা তথ্যের মাধ্যমে জানতে পারি বিএনপি ঢাকায় ১০ লাখের লোকের সমাবেশ করবে। এরপর আমি বিএনপিকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করতে বলি।’

বিএনপির সমাবেশে ১০ লাখ হলে পল্টনের জায়গা কোথায় প্রশ্ন রেখে ডিএমপি কমিশনার বলেন, ‘কিন্তু ওনারা (বিএনপি) রাস্তাঘাটে সমাবেশ করতে চাইছে। এখন ওনারা সারাদেশ থেকে ১০ লাখ লোক আনবে। এর মধ্যে ৫০ হাজার লোক পল্টনে জায়গা দিতে পারবেন, বাকী সাড়ে নয় লাখ লোকের কী ব্যবস্থা ওনারা করবেন?’

সভা-সমাবেশ করা বিএনপির রাজনৈতিক অধিকার মন্তব্য করে ডিএমপি কমিশনার বলেন, ‘কিন্তু সেটা আইনের মধ্যে থেকে করতে হবে। বিএনপি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করতে চাইলে ডিএমপির পক্ষে থেকে তাদের সব ধরনের নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হবে। আর বিএনপি যদি আইনশৃঙ্খলা না মেনে অপরাজনীতি করতে চায়, তাহলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

নয়াপল্টনে পুলিশ-বিএনপির সংঘর্ষের বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে ঢাকা মহানগরের এই পুলিশ প্রধান বলেন, ‘আজকে তাদের কোনো রাজনৈতিক কর্মসূচি ছিল না। কিন্তু তারা রাস্তাঘাট বন্ধ করে পল্টনে অবস্থান করছিল। তখন পুলিশ তাদের রাস্তা থেকে সরিয়ে দেয়।’

নয়াপল্টনের ঘটনায় হতাহতের বিষয়ে জানতে চাইলে গোলাম ফারুক বলেন, এমন কোনো তথ্য তার জানা নেই।’

পাড়া-মহল্লায় ছাত্রলীগ-যুবলীগের নেতাকর্মীদের পাহারা বসানোর বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে ডিএমপি কমিশনার বলেন, ‘যুবলীগ বা ছাত্রলীগ কোথায় পাহারা বসিয়েছে আমার জানা নেই। তবে তাদের রাজনৈতিক কোনো কর্মসূচি থাকতে পারে।’

রাজধানীতে প্রবেশের পথ গাবতলী, আব্দুল্লাহপুর এবং যাত্রাবাড়ী এলাকায় পুলিশ তল্লাশি চৌকি বসানো নিয়ে অপর এক প্রশ্নের জবাবে গোলাম ফারুক বলেন, ‘১ ডিসেম্বর থেকে ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত আমাদের বিশেষ অভিযান রয়েছে।’

‘১৪ ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস, ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবস এবং ২৫ ডিসেম্বর খৃষ্টান ধর্মাবলম্বীদের বড়দিন রয়েছে। এসব কথা মাথায় রেখে বিশেষ অভিযান চলছে।’

(ঢাকাটাইমস/০৭ডিসেম্বর/এএ/ডিএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :