মনোনয়নের পর মাদারীপুরে আওয়ামী লীগে সংঘর্ষ, আহত ৫

প্রকাশ | ২৬ নভেম্বর ২০২৩, ২৩:২৮

মাদারীপুর প্রতিনিধি, ঢাকা টাইমস

মাদারীপুরের কালকিনিতে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে কমপক্ষে পাঁচজন আহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার রাত ৮টার দিকে। এ সময় আওয়ামী লীগের দলীয় ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মীসমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

স্থানীয় ও দলীয় সূত্রে জানা গেছে, মাদারীপুর-৩ নির্বাচনি এলাকায় আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আব্দুস সোবহান গোলাপকে রবিবার কেন্দ্র থেকে দলীয় মনোনয়ন দেওয়া হয়। অন্যদিকে উপজেলা আওয়ামী লীগ থেকে মাদারীপুর-৩ আসনে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি তাহমিনা সিদ্দিকীকে প্রার্থী ঘোষণা করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রবিবার রাত ৮টার দিকে কালকিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে সভা করে উপজেলা আওয়ামী লীগ। মিটিং শেষে তাহমিনা সিদ্দিকার অনুসারীরা কালকিনি শহরে একটি মিছিল বের করে। মিছিলের সময় তাহমিনা সিদ্দিকার অনুসারী এনায়েতনগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সালাম সরদারের উপর প্রতিপক্ষের লোকজন হামলা করে। এতে অন্তত পাঁচজন আহত হয়েছে। পরে তাহমিনার সমর্থকরা প্রতিপক্ষকে পাল্টা ধাওয়া করে।

দুই পক্ষের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার পরপরই কালকিনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও কালকিনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাজমুল হাসান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। 

ওসি নাজমুল হাসান জানান, বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। যেকোন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের জন্য গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় পুলিশ মোতায়ন রাখা হয়েছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি তাহমিনা সিদ্দিকা বলেন, আমার সমর্থক সালাম সরদারের উপর প্রতিপক্ষের লোকজন হামলা করে। এরপর উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। আমার কয়েকজন কর্মীকে আহত করেছে। তবে আগামীতে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। পুলিশকে অনুরোধ করবো, তারা যেন নিরপেক্ষ থাকে। কারণ প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, স্বতন্ত্র প্রার্থী হলে তাদের নিরাপত্তা দেওয়া হবে।’

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আব্দুস সোবহান গোলাপের সঙ্গে  যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

(ঢাকাটাইমস/২৬নভেম্বর/কেএম)