মাদক-ইয়াবা কারবারে বদির দুই ভাইয়ের সংশ্লিষ্টতা পেয়েছে সিআইডি

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা টাইমস
| আপডেট : ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ১৬:১৩ | প্রকাশিত : ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ১৫:১০

ইয়াবাসহ মাদক কারবারিতে কক্সবাজার জেলার আলোচিত রাজনীতিবিদ ও সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুর রহমান বদির দুই ভাইয়ের সংশ্লিষ্টতা পেয়েছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ-সিআইডি। মাদক ব্যবসার মাধ্যমে অর্থ উপার্জনের বিষয়ে ১০ গডফাদারের মামলা তদন্ত করতে গিয়ে এই সংশ্লিষ্টতা মিলেছে বলে জানান ‍সিআইডিপ্রধান মোহাম্মদ আলী মিয়া।

বুধবার দুপুরে রাজধানীর মালিবাগে সিআইডির নিজস্ব কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানান তিনি।

‘সিআইডির জালে মাদকের গডফাদাররা: বিপুল পরিমাণ স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি ক্রোকশিরোনামে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

মোহাম্মদ আলী মিয়া বলেন, মাদক মামলার মানিলন্ডারিং সংক্রান্ত বিষয়ে তদন্ত করতে গিয়ে আমরা বদির ভাইসহ অনুসারীদের সংশ্লিষ্টতা পেয়েছি। তার ভাইরাও আছে এবং তাদের অনুসারীরাও আছে। আব্দুস শুক্কুর ও আমিনুর রহমান- এই দুজন বদির ভাই।

তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত আমরা ওই পরিবারের অবৈধভাবে অর্জিত ৬ দশমিক ৯ একর সম্পত্তি শনাক্ত করেছি, আরও সম্পত্তির সন্ধান পাওয়া যাচ্ছে। বিষয়টি এখনো তদন্তাধীন।

‘বদির বিরুদ্ধেও যদি আমরা সাক্ষ্য-প্রমাণ পাই তাহলে ছাড় দেওয়া হবে না। যার বিরুদ্ধেই তথ্য-প্রমাণ পাবো তাকেই ধরা হবে।’

সিআইডি জানায়, ১০ মাদক মামলায় মাদকের গডফাদারদের গাড়ি, বাড়ি, জমি, ব্যাংকে থাকা টাকা ক্রোক করা হয়েছে। এসব মামলা ২০১৯ সাল থেকে বিভিন্ন সময়ে হয়েছে। সারা দেশে মোট মাদক মামলা রুজু হয়েছে ২০২১ সালে ৭৯ হাজার ৬৭৫টি, ২০২২ সালে ৮২ হাজার ৬৭২টি এবং ২০২৩ সালে ৭৬ হাজার ৪০৩টি। এসব মামলা থেকে স্পর্শকাতর ৩৫টি মামলা তদন্ত করে মামলার মূল হোতা তথা গডফাদারদের মাদক ব্যবসা থেকে অবৈধভাবে অর্জিত ব্যাংক অ্যাকাউন্টে জমাকৃত অর্থ, ক্রয়কৃত জমি, বাড়ি ও ফ্ল্যাটসহ লন্ডারকৃত বিভিন্ন স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তির সন্ধান পায়। এসব মামলায় অবৈধভাবে অর্জিত অর্থের পরিমাণ প্রায় ১৭৮.৪৪ কোটি টাকা।

মোহাম্মদ আলী বলেন, সিআইডি ইতোমধ্যে উল্লিখিত মামলাসমূহের মধ্যে তিনটি মামলায় গডফাদারদের ৯.১৪ একর জমি ও ২টি বাড়ি যার মূল্য আনুমানিক ৮.১১ কোটি টাকা ক্রোক এবং মাদক সংক্রান্ত মানিলন্ডারিং বিভিন্ন মামলায় ব্যাংকে গচ্ছিত ১ কোটি ২৩ হাজার ৪২৫ টাকা ফ্রিজ করেছে। আরও ৩৫.১৭৩ একর জমি, ১২টি বাড়ি ও ১টি গাড়ি যার মূল্য অনুমান ৩৬.৮২ কোটি টাকা- এসব ক্রোকের প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে বলে জানান তিনি।

সিআইডিপ্রধান বলেন, ১০ মামলার তদন্ত শেষে আমরা আদালতের অনুমতি নিয়ে তাদের সম্পত্তিগুলো ক্রোক করেছি। বাকি মামলার সম্পত্তিগুলো ক্রোক করার বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন। দেশের ৬৪ জেলায় মাদক মামলা আছে।

প্রতি বছর ৮০ থেকে ৮৫ হাজার মাদক মামলা হয় জানিয়ে তিনি আরও বলেন, বিভিন্ন সময়ে মাদক বহনকারীদের গ্রেপ্তার করা হয়। কিন্তু গডফাদাররা ধরাছোঁয়ার বাইরে থাকে। যেহেতু আমরা গডফাদারদের নিয়ে কাজ করা শুরু করছি দেখি কতগুলো ধরতে পারি। এখন পর্যন্ত ১০ মামলায় ১২২ জনকে গ্রেপ্তার করেছি। তার মধ্যে ১০ জন গডফাদার রয়েছে।

ঢাকাটাইমস/১৭এপ্রিল/এএম/ইএস

সংবাদটি শেয়ার করুন

অপরাধ ও দুর্নীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

অপরাধ ও দুর্নীতি এর সর্বশেষ

এবার এলজিইডির মুজিবুর সিকদারের স্ত্রীর বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

শিশু অপহরণ করে বিক্রি করতেন সুমাইয়া, অবশেষে গ্রেপ্তার

ডাকাতি করতে গিয়ে কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, অভিযুক্তরা গ্রেপ্তার

ভেজাল শিশুখাদ্য তৈরি, জেনেরিক অ্যাগ্রোকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা

হেফাজতে নারীর মৃত্যু: র‌্যাব-১৪ অধিনায়ককে সরানো হচ্ছে?

পাবজি খেলার লোভ দেখিয়ে ৩০ শিশুকে বলাৎকার, যুব অধিকার পরিষদ নেতা গ্রেপ্তার

রাজধানীতে সাড়ে ৮ হাজার লিটার বিদেশি মদসহ গ্রেপ্তার ৩

সংসদ ভবন এলাকায় ছাত্রলীগ কর্মী খুন

বিদেশ ভ্রমণের প্রলোভনে নারী খেলোয়াড়দের ধর্ষণ করতেন নিউটন: র‌্যাব

হেফাজতে নারীর মৃত্যুর ঘটনা তদন্ত করবে র‍্যাব: মুখপাত্র

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :