নিরাপদ পরিবেশ নিশ্চিতের দাবি গাইবান্ধার সাংবাদিক নেতাদের

গাইবান্ধা প্রতিনিধি, ঢাকা টাইমস
 | প্রকাশিত : ১৩ জুন ২০২৪, ১৮:১৪

রাষ্ট্রের চতুর্থ স্তম্ভ হিসেবে গণমাধ্যম যাতে শক্ত ভিত্তির ওপর দাঁড়াতে পারে সে জন্য সাংবাদিকরা যেন নিরাপদ পরিবেশে দায়িত্ব পালন করতে পারে তা নিশ্চিত করতে হবে। আর এই পরিবেশ নিশ্চিত করা সরকারের দায়িত্ব বলে জানিয়েছেন গাইবান্ধার সাংবাদিক নেতারা।

বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা শহরের কাছারি বাজার এলাকায় গাইবান্ধা প্রেস ক্লাবের সামনে পেশিশক্তি ও অপসাংবাদিকতা বন্ধের দাবিতে আয়োজিত সাংবাদিক সমাবেশে নেতারা এসব কথা বলেন।

তারা বলেন, সাংবাদিকদের প্রকৃত স্বাধীনতা ছাড়া মুক্ত গণমাধ্যম সম্ভব নয়। গণমাধ্যম এখন অস্তিত্বের সংকটে পড়েছে বলেও দাবি করেন সাংবাদিক নেতারা।

দৈনিক জনসংকেত পত্রিকার সম্পাদক দীপক কুমার পালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ও সাংবাদিক মেহেদী হাসান বাবুর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে স্বাগত বক্তব্য দেন গাইবান্ধা প্রেস ক্লাবের নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক ইদ্রিসউজ্জামান মনা।

এছাড়া সমাবেশে বক্তব্য দেন, সাংবাদিক রেজাউন্নবী রাজু, অমিতাভ দাশ হিমুন, মো. খালেদ হোসেন, অধ্যাপক শফিউল ইসলাম, কুদ্দুস আলম, রজতকান্তি বর্মণ, জাভেদ হোসেন, মিলন খন্দকার, উত্তম সরকার, কেএম নিয়ামুল ইসলাম পামেল, গোলাম রব্বানী মুসা, উজ্জ্বল চক্রবর্তী (মাধুকর), মিজানুর রহমান রাজু, কায়সার রহমান রোমেল, শাহজাহান সিরাজ, সালাম আশেকী ও শাহীন নূরী।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, অনেকেই আজ ‘সাংবাদিক’ বনে গেছেন। নামসর্বস্ব অনলাইন ও নিজেদের ফেসবুকের টাইমলাইনে কিছু লেখা পোস্ট করেই তারা নিজেকে সাংবাদিক দাবি করে। বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা ও সাধারণ মানুষকে জিম্মি করে চাঁদাবাজিই করাই এসব ব্যক্তিদের প্রধান কাজ।

তারা বলেন, প্রভাবশালী মহলের চাপ, হামলা-মামলা, রাজনৈতিক হুমকির কারণে স্বাধীন সাংবাদিকতাকে অনেক ক্ষেত্রেই বাধার সম্মুখীন হতে হয়। মাঠপর্যায়ে সরকারি কর্মকর্তারাও এ ব্যাপারে কম যান না। সুযোগ পেলেই তারা সাংবাদিকদের নানাভাবে হয়রানি করে থাকেন এমনকি সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মাঝেমধ্যে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের অপপ্রয়োগ কিংবা ভ্রাম্যমাণ আদালতের অপব্যবহারও হয়ে থাকে। অথচ বর্তমান সরকার কর্তৃক ঘোষিত ‘ডিজিটাল বাংলাদেশকে স্মার্ট বাংলাদেশে উত্তোরণের’ কর্মসূচি সফলভাবে বাস্তবায়ন করতে সাংবাদিকদের স্বাধীনভাবে ভূমিকা পালনের কোনো বিকল্প নেই।

তারা বলেন, বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের মাধ্যমে বিশ্বাসযোগ্যতা অর্জন করতে না পারাসহ নানা কারণে আমাদের দেশের গণমাধ্যম তার বিশ্বাসযোগ্যতা হারাতে বসেছে। সাংবাদিকতা পেশার মর্যাদার প্রশ্নে এটি মোটেও সুখকর নয়। কাজেই হলুদ সাংবাদিকতা, অপসাংবাদিকতা কিংবা দায়িত্বহীন সাংবাদিকতা যেন কোনোভাবেই তাদের স্পর্শ না করে সে ব্যাপারে সাংবাদিকদের অবশ্যই সতর্ক থাকতে হবে।

সাংবাদিকতা একটি মহান পেশা উল্লেখ করে বক্তারা বলেন, এটি মেধা ও মননের পেশা, অধ্যয়ন ও অধ্যবসায়ের পেশা। এ পেশায় নিয়োজিত মানুষের জীবনমানের উন্নয়ন ও জীবনের নিরাপত্তা প্রদানের ক্ষেত্রে সব মহলেরই এগিয়ে আসা উচিত।

(ঢাকাটাইমস/১৩জুন/প্রতিনিধি/পিএস)

সংবাদটি শেয়ার করুন

সারাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

সারাদেশ এর সর্বশেষ

মুক্তিযোদ্ধাদের কোনো কোটাই এখন আর নেই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

মাদারীপুরে বৈষম্যবিরোধী ছাত্র আন্দোলনে হামলার শিকার ৬ সাংবাদিক

শেরপুরে পুলিশ সদস্যের সম্পদের পাহাড়, দুদককে তদন্তের নির্দেশ আদালতের

চাঁদপুর সদরে পুলিশের অভিযান, ৯ বিএনপি নেতা গ্রেপ্তার

সোনামসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি হলো ২ হাজার ৮শ মেট্রিক টন পেঁয়াজ

কুমিল্লায় আট মামলায় আসামি ৮ হাজার, গ্রেপ্তার ১৬০

সমুদ্র উত্তাল: নিষেধাজ্ঞা শেষেও ইলিশ শিকারে যেতে পারছে না জেলেরা

সাভারে শিক্ষার্থী, পুলিশ ও আ.লীগ নেতাকর্মীদের ত্রিমুখী সংঘর্ষ, নিহত ১

বগুড়ায় শিক্ষার্থী-পুলিশ সংঘর্ষ, অবরোধে আটকা ট্রেন

পাবনায় সাধারণ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ 

এই বিভাগের সব খবর

শিরোনাম :