যুক্তরাষ্ট্রের ভিসা পেলেন আইজিপি

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২৫ আগস্ট ২০২২, ১৯:২২ | প্রকাশিত : ২৫ আগস্ট ২০২২, ১৭:২৮

জাতিসংঘ পুলিশ সামিটে যোগ দিতে যুক্তরাষ্ট্র যাচ্ছেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ। বৃহস্পতিবার তিনি ভিসা পেয়েছেন।

পুলিশ সদরদপ্তর ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একাধিক সূত্র এ তথ্য ঢাকাটাইমসকে নিশ্চিত করেছে।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের পুলিশপ্রধানদের নিয়ে আগামী ৩১ আগস্ট থেকে ১ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দুই দিনব্যাপী জাতিসংঘের তৃতীয় সম্মেলন হবে। এ সম্মেলনে বেনজীর আহমেদসহ ছয় সদস্যের প্রতিনিধি দলের অংশ নেওয়ার কথা। ৩০ আগস্ট তাদের ঢাকা ছাড়ার কথা রয়েছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানের নেতৃত্বে ৬ সদস্যের এই দলে আরও রয়েছেন- স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের যুগ্ম সচিব আবু হেনা মোস্তফা জামান, মন্ত্রীর একান্ত সচিব (উপসচিব) মু. আসাদুজ্জামান, অতিরিক্ত পুলিশ মহাপরিদর্শক (অতিরিক্ত ডিআইজি) নাশিয়ান ওয়াজেদ ও সহকারী পুলিশ মহাপরিদর্শক (এআইজি) মোহাম্মদ মাসুদ আলম।

গত বছরের ১০ ডিসেম্বর র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব) এবং র‌্যাবের সাবেক মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদসহ বাহিনীর সাবেক ও বর্তমান ছয় কর্মকর্তার ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয় আমেরিকা। এ নিষেধাজ্ঞার কারণে তার যুক্তরাষ্ট্র যাওয়া নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছিল। অবশেষে তিনি ভিসা পেয়েছেন।

বেনজীর আহমেদ আইজিপি হওয়ার আগে র‌্যাব ও ডিএমপির প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। প্রতিটি ক্ষেত্রে তিনি চৌকস নেতৃত্বগুণের স্বাক্ষর রাখেন। বাহিনীতে দক্ষতা, সৃজনশীলতার পাশাপাশি মানবিকতার চেতনাও গড়ে তোলেন তিনি। বাহিনীর বিভিন্ন ক্ষেত্রে ঘটে উন্নয়ন।

গত ২৯ মে শুদ্ধাচার পুরস্কারে ভূষিত হন ড. বেনজীর আহমেদ। ২০২১ সালে জননিরাপত্তা বিভাগের আওতাধীন দপ্তর বা সংস্থাপ্রধানদের মধ্যে তিনি এ সম্মানে ভূষিত হন। পুরস্কারের অর্থ সিলেট ও সুনামগঞ্জে বন্যাকবলিতদের কল্যাণে দেওয়ার ঘোষণা দেন পুলিশপ্রধান।

দেশে জঙ্গি-সন্ত্রাস নির্মূলে তার অবদান অগ্রগণ্য। মাদক নির্মূলেও ভূমিকা পালন করে চলেছেন তিনি।

সাহসিকতা, দক্ষতা আর সময়োপযোগী ও দূরদর্শী নেতৃত্বগুণ তার ওপর প্রধানমন্ত্রীর আস্থার জায়গাটি তৈরি করেছে। অনিয়ম কোনো কাজকে কখনো প্রশ্রয় দেন না মেধাবী, সৎ ও চৌকস কর্মকর্তা হিসেবে সুপরিচিত বেনজীর আহমেদ।

২০২০ সালের ৮ এপ্রিল দেশের ৩০তম আইজিপি হিসেবে নিয়োগ পান ড. বেনজীর আহমেদ। ১৫ এপ্রিল আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্ব নেন তিনি। এর আগে তিনি র‌্যাবের মহাপরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। সেখানেও তিনি নিজের সৃজনশীলতা ও দক্ষতার পরিচয় দিয়ে এসেছেন।

মেধাবী, সৎ ও চৌকস কর্মকর্তা হিসেবে সুপরিচিত বেনজীর আহমেদ ১৯৬৩ সালের ১ অক্টোবর গোপালগঞ্জের এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি সাহিত্যে এমএ এবং এলএলবি ডিগ্রি অর্জন করেন তিনি। সপ্তম বিসিএসের মাধ্যমে ১৯৮৮ সালে সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) হিসেবে চাকরিতে যোগ দেন। ২০১৯ সালে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ডক্টরেট ডিগ্রি অর্জন করেন।

র‌্যাবের ডিজি হিসেবে সাড়ে পাঁচ বছরের বেশি সময় দায়িত্ব পালনের আগে বেনজীর আহমেদ প্রায় সাড়ে চার বছর ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার ছিলেন। পুলিশ সদর দপ্তরে ডিআইজি (প্রশাসন), ডিআইজি (অর্থ) এবং গুরুত্বপূর্ণ অনেক পদে দক্ষতা, যোগ্যতা ও মেধার স্বাক্ষর রেখেছেন।

ড. বেনজীর আহমেদ চাকরিজীবনে সর্বোচ্চ সফলতার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের স্বীকৃতি হিসেবে অর্জন করেছেন পুলিশের সর্বোচ্চ পদক বাংলাদেশ পুলিশ মেডেল (বিপিএম)। ২০২০ সালে ষষ্ঠবারের মতো বিপিএম (সাহসিকতা) অর্জনের রেকর্ড গড়েন তিনি। এর আগে ২০১১, ২০১২, ২০১৪, ২০১৬ ও ২০১৯ সালে এই পদক তার সাফল্যের মুকুটে যোগ হয়।

(ঢাকাটাইমস/২৫আগস্ট/ইএস)

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :