ঐ বিষ্যুদবার শীতের সেই সন্ধ্যায় আমার ড্রয়িং-খাতা পেন্সিল নিয়ে দাদাজানে’র গায়ের চাদরের এক ধার টেনে গায়ে জড়িয়ে ওম-ওম ভাব  নিয়ে পাশে বসতেই দাদাজান আমার গায়ে গোটা চাদরটাই জড়িয়ে দিলেন।   আমাকে পোটলা বানিয়ে এদিক ওদিকের ফাঁক-ফোঁকর পরীক্ষা করলেন। চাদরের গিঁট আমার গলায় কষতে কষতে বললেন, ‘নেও দাদাভাই! শীত এই বার বিলাত পালাইবো’।   খাটের পাশের কুচকুচে কালো সোওয়া আলমারিটা থেকে  একটা ময়লা-মলিন হলদেটে কাগজ বের করে দাদাজি এমন আলতো হাতে এর ভাঁজ খুলতে লাগলেন যেনো জোড়ালাগা গোলাপ পাপড়ি আলগা করছেন; কিংবা যেমন করে খেলাচ্ছলে আমরা বালকবেলায় জলফড়িং প্রজাপতি  কিংবা  জোনাকি অতি সাবধানে  দুহাতের তালুর খাঁচায় আটকে রাখতাম: এতোটা...
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :