রোগ প্রতিরোধে ক্ষমতা বাড়ায় যোগাসন

ফিচার ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৬ মার্চ ২০২০, ১৬:২২

মানুষের শরীরে যখন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায় তখন যে কোন ভাইরাস খুব সহজেই আক্রমণ করতে পারে। তাই শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা থাকা জরুরি। করোনা আতঙ্কের দিনে সব থেকে জরুরি হল নিজেকে সুরক্ষিত রাখা।

বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে পারলে অনেকটাই নিশ্চিন্ত থাকা যায়। আর সহজেই যোগাসনের মাধ্যমে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে পারেন। ব্যক্তিসত্তার সঙ্গে বিশ্বসত্তা একত্র করে প্রশান্তি অর্জনের মাধ্যম হলো, যোগ বা যোগাসন।

হাত ধুয়ে সাধারণ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পাশাপাশি নিয়ম করে কিছু যোগাসন করলে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে। এই সব আসনের মধ্যে তালাসন অত্যন্ত উপযোগী।

তালাসন এক ধরনের স্ট্রেচিং এক্সারসাইজ। নিয়ম করে তালাসন করলে হাঁটু, গোড়ালি-সহ বিভিন্ন অস্থিসন্ধির নমনীয়তা বাড়ে। শুধু তাই নয়, নিয়মিত তালাসন অভ্যাস করতে পারলে ফুসফুসের কার্যক্ষমতা ভাল হয়। দূষণ ও অন্যান্য কারণে যারা অ্যাজমা ও অন্যান্য ফুসফুসের অসুখে ভুগছেন, তারা নিয়ম করে প্রতিদিন তালাসন অভ্যেস করলে সুস্থ থাকবেন।

শারীরিক ভারসাম্য বজায় রাখতে, পশ্চার বা মেরুদন্ড সংক্রান্ত সমস্যা দূর করতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা নেয়। একই সঙ্গে এই আসন সাধারণ জ্বর সর্দি বা শ্বাসকষ্ট থেকে অনেকাংশে রক্ষা করতে পারবে। হজম ক্ষমতা বাড়ানোর পাশাপাশি মেরুদণ্ডের নমনীয়তা ঠিক থাকে এবং ফ্ল্যাট ফুটের সমস্যা অনেকাংশে দূর করা যায় তালাসনের সাহায্যে।

তালগাছের মতো টানটান ও ঋজু ভঙ্গিমায় দাঁড়িয়ে আসনটি করা হয় বলে এই আসনের এই রকম নাম।

শিখে নিন তালাসন

মেরুদণ্ড সোজা করে টানটান হয়ে মেঝেতে ম্যাটের ওপর দাঁড়ান। ম্যাট না থাকলে পরিষ্কার মেঝেতে দাঁড়াতে পারেন।

দুই পায়ের মাঝে ৪–৫ ইঞ্চি ফাঁক রাখুন।

দেওয়ালের দিকে সোজা তাকিয়ে ধীরে ধীরে শ্বাস নিতে নিতে হাত দু’টি মাথার উপরে তুলুন। দু’হাতের আঙুল ইন্টারলক করুন।

পায়ের আঙ্গুলে ভর দিয়ে গোড়ালি তুলে সোজা হয়ে দাঁড়ান।

শ্বাস-প্রশ্বাস স্বাভাবিক থাকবে। এই অবস্থায় দাঁড়িয়ে মনে মনে ১০ থেকে ২০ গুনুন। হাত নামিয়ে স্বাভাবিক পজিশনে ফিরে আসুন। একই ভাবে ৫–৭ বার অভ্যেস করুন।

শুরুতে অনেকের আঙুলে ভর দিয়ে দাঁড়াতে অসুবিধে হতে পারে। কিন্তু অভ্যেস করলে ঠিক হয়ে যাবে। যে কোন বয়সে এই আসন শুরু করা যায়। তবে অল্প বয়স থেকে অভ্যাস করলে ভাল হয়।

কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়

খাবার গ্রহণের দুই ঘণ্টার মধ্য ব্যতীত দিনের যেকোনো সময় অনুশীলন করা যেতে পারে। সময়ের অভাবে যোগাসন থেকে বিরত না থেকে আমরা যদি আমাদের কাজের ফাঁকে ফাঁকে কিছু অনুশীলন করি, তবে সারা দিন প্রাণবন্ত থাকা যাবে।

অনুশীলনের জন্য কোনো বয়সসীমা নাই, যেকোনো বয়সের নারী–পুরুষ যোগাসন করতে পারেন।

শরীরের ওপর অতিরিক্ত জোর দিয়ে অথবা শরীরে ব্যথা নিয়ে যোগাসন চর্চা করা ঠিক না, সে ক্ষেত্রে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

পোশাক হবে হালকা এবং আরামদায়ক। অনুশীলনের সময় চশমা, ঘড়ি খুলে রাখতে হবে।

অনুশীলন করার জন্য শুধু নিরামিষ খাবার খেতে হবে, এমন কোনো কথা নেই। তবে পরিমিত ও সহজপাচ্য খাবার খাওয়া ভালো। সঙ্গে প্রচুর পরিমাণে পানি পান করা জরুরি।

অনুশীলনের সময় বিশ্রাম খুবই গুরুত্বপূর্ণ। প্রতিটি আসনের মধ্যে বিশ্রাম নিতে হবে।

(ঢাকাটাইমস/২৬ মার্চ/আরজেড/এজেড)

সংবাদটি শেয়ার করুন

ফিচার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :