ইতালি আওয়ামী লীগে একি হাল!

কমরেড খোন্দকার, ইউরোপ ব্যুরো
 | প্রকাশিত : ২৪ আগস্ট ২০১৯, ২১:৪৪

ইউরোপে ইতালি আ’লীগের নেতাকর্মীরা একসময়ে খুব গর্ব করেই বলতেন আমি ইতালি আ’লীগের ওই পদে আছি। এখন ইতালি আ’লীগ সে জৌলুশ হারিয়েছে।

দলের চেইন অব কমান্ড ভেঙে পড়েছে। মূলত দীর্ঘদিন দলের সম্মেলন না হওয়ায় নেতাকর্মীদের মধ্যে হতাশা বিরাজ করছে। কেউ কেউ আবার দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে আলাদা মিটিং মিছিল করছেন। শাখা কমিটিগুলোরও একই অবস্থা নাপলি, আনকোনা, পালেরমোসহ বেশ কয়েকটি শহরে কমিটির মধ্যে বিদ্রোহ রয়েছে। লোম্বারদিয়া আ’লীগে দীর্ঘদিন যাবত সভাপতির পদটি ফাঁকা রয়েছে। বছরের পর বছর চলছে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি দিয়ে। তাছাড়া লোম্বারদিয়া আ’লীগের কমিটির মেয়াদ শেষ হয়ে গেলেও সম্মেলন দেয়ার কোন আলামত নেই। মূলত ইতালি আ’লীগে দীর্ঘদিন সম্মেলন না হওয়ায় দলে বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হয়েছে।

২০১২ সালে শেষবারের মত সম্মেলনে মোহাম্মদ ইদ্রিস ফরাজীকে সভাপতি ও হাসান ইকবালকে সাধারণ সম্পাদক করে দেয়া কমিটির মেয়াদ সাড়ে চার বছর আগেই শেষ হয়ে গেছে। ইতালি আওয়ামী লীগের তৃণমূল নেতাকর্মীরা বারবার সম্মেলন দাবি করলেও এখনো পর্যন্ত সম্মেলনের দেখা নেই। সভাপতির ভাই দলের সহ-সভাপতি জাহাঙ্গীর ফরাজীর নেতৃত্বে আলাদা একটি মোর্চা করে তারা সভা-সমাবেশ করছেন। ইতোমধ্যে তাদের সভা-সমাবেশের ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। ওই সভায় ফরাজীর ছোট ভাই জাহাঙ্গীর ফরাজী গণ-অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ইদ্রিস ফরাজীকে দলীয় পদ থেকে হটানোর ঘোষণা দিয়েছে সম্প্রতি একটি সভায়।

শুধু তাই নয়, হাসান-ফরাজীর নেতৃত্বে কোন অনুষ্ঠান হলেও জাহাঙ্গীর ফরাজীর অংশটি আরেকটি প্রোগ্রাম করছেন।

সবশেষ রোমে দূতাবাস আয়োজিত ১৫ আগস্টের শোক সভায় জাহাঙ্গীর ফরাজির অংশ যোগ দিলেও ইতালি আওয়ামী লীগের শোক সভায় জাহাঙ্গীর ফরাজীর কোন নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন না।

অন্যদিকে ইতালি আ’লীগের শোক সভায় তারা না গিয়ে অন্য একটি শোক সভার আয়োজন করে- যা রোমের তরপিনাত্তারার রসই রেস্টুরেন্টের হলরুমে হয়।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে দলীয় কয়েকজন নেতাকর্মী বলেন, ‘ইদ্রিস ফরাজীর প্রতি যেখানে আপন ভাইয়ের আস্থা নেই- সেখানে তৃণমূল নেতাকর্মীরা আস্থা রাখে কীভাবে! সর্ব ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের দুই নেতা বিভিন্ন সভা-সমাবেশে অবিলম্বে ইউরোপের দেশগুলোতে  সম্মেলন অনুষ্ঠানের আহ্বান জানালেও ইতালি আওয়ামী লীগ তার ব্যতিক্রম।এ ক্ষেত্রে ওই দুই নেতাই যেন মুখে কুলুপ এঁটে রেখেছেন।

ইতালি আওয়ামী লীগের সম্মেলন অবিলম্বে ঘোষণা করা না হলে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বাইরের অংশ এক হয়ে সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা করতে পারেন বলে ব্যাপক গুঞ্জন রয়েছে রাজধানী রোমে।

শুধু তাই নয়, নানা অনিয়ম চলছে পদ-পদবীর ক্ষেত্রেও। অনিল দাস গুপ্ত ও এমএ গণি স্বাক্ষরিত আওয়ামী লীগের বর্তমান কমিটিতে এমএ রব মিন্টু একজন সদস্য। কিন্তু তিনি নিজেকে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলে দাবি করে আসছেন। এসব অনিয়মেরও প্রতিবাদ করেছেন তৃণমূল নেতাকর্মীরা।

এদিকে হাজী ইদ্রিস ফরাজি শরীয়তপুর জেলা আ’লীগের সহসভাপতি পদে থাকায় অনেকেই ধরে নিয়েছেন- তিনি আর ইতালি আ’লীগের সভাপতি পদে থাকতে পারছেন না। তাই সম্মেলন দিতে বিলম্ব করছেন।’

এ ব্যাপারে ইতালি আ’লীগের সভাপতি ইদ্রিস ফরাজির সাথে বাংলাদেশে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

তবে দলের অন্যতম সহসভাপতি জাহাঙ্গীর ফরাজির সাথে বাংলাদেশে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘শোক দিবসের অনুষ্ঠানে দলের কয়েকজন নেতাকর্মীকে দাওয়াত না দেয়ায় তারা জাতির জনকের রুহের মাগফেরাত কামনা করে অন্য একটি শোক সভার আয়োজন করে।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমাদের কারো প্রতি ব্যক্তি আক্রোশ নেই। আমরা সম্মেলন চাই, দলের শৃঙ্খলা বজায় রাখতে সম্মেলনের কোন বিকল্প নেই।’

সাধারণ সম্পাদক হাসান ইকবাল বলেন, ‘চলতি বছরের শেষের দিকে ইতালি আ’লীগের সম্মেলন হবে।’

দলের বিদ্রোহীদের সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘সভাপতি বাংলাদেশ থেকে ইতালিতে ফিরলেই এ ব্যাপারে আলোচনা করা হবে।’

(ঢাকাটাইমস/২৪আগস্ট/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

প্রবাসের খবর বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :