করোনা আক্রান্ত মির্জা ফখরুল ও মেয়র তাপস-লিটন কেমন আছেন? কতটা সুস্থ হয়ে উঠলেন তারা?

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৮ জানুয়ারি ২০২২, ১৯:২১ | প্রকাশিত : ১৮ জানুয়ারি ২০২২, ১৮:০৪

কোভিড-১৯ (করোনাভাইরাস) আক্রান্ত বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। একই সঙ্গে এই ভাইরাসের সঙ্গে লড়ছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস এবং রাজশাহী সিটি মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন। তাদের সবারই এখন শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে। কাউকে হাসপাতালমুখী হতে হয়নি।

তাদের মধ্যে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর গত ১০ জানুয়ারি সস্ত্রীক কোভিড-১৯ আক্রান্ত হন। তখন থেকে তিনি তার উত্তরার বাসায় অবস্থান করছেন।

মির্জা ফখরুলের ব্যক্তিগত সহকারী মো. ইউনূস ঢাকা টাইমসকে জানান, কাশি ও শারীরিক দুর্বলতা ছাড়া বিএনপির মহাসচিবের আর কোনো সমস্যা নেই।

ফখরুলের ব্যক্তিগত সহকারী বলেন, ‘মহাসচিব স্যার ছাড়া বাসার বাকি সবাই সুস্থ আছেন। স্যারের কাশি এবং শারীরিক দুর্বলতা ছাড়া তেমন কোনো সমস্যা নেই। চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে বাসায় আছেন। কয়েক দিন পরে দ্বিতীয় দফা করোনা পরীক্ষা করাবেন।’

মির্জা ফখরুল ও তার স্ত্রী ছাড়াও মেয়ে, ভাই, ভাবি, গৃহকর্মীসহ সবাই আক্রান্ত এই বৈশ্বিক মহামারিতে।

এদিকে করোনা আক্রান্ত ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস শারীরিকভাবে সুস্থ আছেন। গত বৃহস্পতিবার কোভিড-১৯ পরীক্ষায় মেয়রের কোভিড পজিটিভ আসে।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে দক্ষিণ সিটির জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. আবু নাছের ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘স্যার ভালো আছেন। বাসাতেই আইসোলেশনে আছেন। হালকা জ্বর ছিল। গতকাল (সোমবার) থেকে জ্বর নেই। হালকা শরীর ব্যথা আছে। স্যারের বাচ্চারা আগে আক্রান্ত হয়েছিল। তারা নেগেটিভও হয়ে গেছে।’

মো. আবু নাছের জানান, মেয়র তাপস কোভিড-১৯ আক্রান্ত হওয়ার এক সপ্তাহ আগে তার স্ত্রীও কোভিড আক্রান্ত হয়েছিলেন। তারা শারীরিক অবস্থাও ভালো।

ওদিকে গত শনিবার কোভিড-১৯ শনাক্ত হয় রাজশাহী সিটি করপোরেশনের (রাসিক) মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটনের।

এখন আগের চেয়ে অনেকটাই সুস্থ আছেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর এই সদস্য। তিনি ঢাকাতে নিজ বাসায় অবস্থান করছেন। সেখানে একজন চিকিৎসক তাকে দেখাশোনা করছেন।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে মেয়র লিটনের স্ত্রী শাহিন আক্তার রেনী ঢাকা টাইমসকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, গত ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে বঙ্গবন্ধুর মাজারে ফুল দিতে ঢাকায় যান মেয়র লিটন। পরে গত শুক্রবার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে করোনা টেস্ট করান তিনি। শনিবার রিপোর্টে তিনি জানতে পারেন যে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

এরপর থেকে মেয়র লিটন বাসায় আইসোলেশনে চলে যান। ১৫ দিন পর আবার তাকে করোনা টেস্ট করানো হবে। রিপোর্ট নেগেটিভ এলে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে রাজশাহীতে ফিরবেন বলে জানান তিনি।

(ঢাকাটাইমস/১৮জানুয়ারি/কারই/মোআ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :