কাশ্মীরিদের ওপর হামলা বন্ধে ভারতীয় সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৭:৪১ | প্রকাশিত : ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৪:২২

ভারতের বিভিন্ন প্রান্তে বসবাসকারী কাশ্মীরিদের ওপর হামলা ও জনরোষ আটকাতে কেন্দ্রের এবং দশটি রাজ্যকে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট।

হামলার পাশাপাশি কাশ্মীরিরা যাতে সামাজিক বয়কট বা হেনস্থার শিকার না হন, সেই বিষয়টিও দেখতে হবে বলে জানিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পাশাপাশি যে দশটি রাজ্যকে এই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, তারা হল কাশ্মীর, উত্তরাখণ্ড, হরিয়ানা, উত্তর প্রদেশ, বিহার, মেঘালয়, ছত্তিশগড়, পশ্চিমবঙ্গ, পাঞ্জাব এবং মহারাষ্ট্র।

তারিক আদিব নামের যে আইনজীবী সুপ্রিম কোর্টে এই মামলাটি করে জরুরি ভিত্তিতে শুনানি দাবি করেছিলেন, তিনি মেঘালয়ের রাজ্যপালের বিতর্কিত মন্তব্য রেখেছিলেন তার আবেদনে।

মেঘালয়ের রাজ্যপাল তথাগত রায় টুইট করে কাশ্মীরিদের বয়কট করার দাবি করেছিলেন।

প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ নেতৃত্বাধীন একটি বেঞ্চে এই মামলার শুনানি হয়। সেখানেই কাশ্মীরিদের নিরাপত্তা দেওয়ার জন্য কিছু নোডাল অফিসারকে দায়িত্ব দেওয়ার কথা বলা হয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে।পাশাপাশি এই নোডাল অফিসারদের নাম ও ফোন নম্বর বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার কথাও বলা হয়েছে, যাতে প্রয়োজন পড়লেই কাশ্মীরিরা তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে নিরাপত্তা চাইতে পারেন।

সুপ্রিম কোর্টে,এই বেঞ্চের অন্যতম বিচারপতি সঞ্জীব খন্না জানিয়েছেন, ‘কাশ্মীরি এবং অন্যান্য সংখ্যালঘুদের ওপর কোনও হামলার ঘটনার খবর পেলেই মুখ্যসচিব, ডিজিপি এবং দিল্লির পুলিশ কমিশনারকে তৎক্ষণাৎ ব্যবস্থা নিতে হবে।’

সুপ্রিম কোর্টের এই রায়কে স্বাগত জানিয়েছেন জম্মু ও কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী এবং ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ওমর আবদুল্লা। তিনি টুইট করেছেন, ‘সুপ্রিম কোর্ট সেটাই করে দেখাল যা আসলে করা উচিত ছিল কেন্দ্রের । এই নির্দেশ দেওয়ার জন্য আমি সুপ্রিম কোর্টের কাছে কৃতজ্ঞ।’

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি কাশ্মীরের পুলওয়ামায় বিচ্ছিন্নতাবাদীদের হাতে ৪০ ভারতীয় সেনা জওয়ানের মৃত্যুর পর থেকেই সারা দেশের বিভিন্ন প্রান্তে জনরোষের মুখে পড়ছিলেন কাশ্মীরিরা। সেই ঘটনায় লাগাম টানতেই শেষ পর্যন্ত হস্তক্ষেপ করল সুপ্রিম কোর্ট।

(ঢাকাটাইমস/২২ফেব্রুয়ারি/এসআই)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :