বোয়ালমারীতে ধর্ষণ-আত্মহত্যা প্ররোচনায় মামলা

বোয়ালমারী (ফরিদপুর) প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৪ জুন ২০১৯, ২১:১৭

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার গুনবহা ইউনিয়নের রেনিনগর গ্রামে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ ও আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেয়ায় একই গ্রামের আবু কালাম মোল্যার পুত্র ইয়াসিন মোল্যাসহ তিনজনের নামে মামলা করেছেন ছাত্রীর মা কাকলি বেগম।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, আত্মহত্যাকারী ছাত্রী উমরনগর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণীতে পড়ত। তাকে স্কুলে  যাতায়াতের পথে এবং বাড়িতে গিয়ে প্রতিনিয়ত উত্ত্যক্ত করত ইয়াসিন। কিছু দিন পূর্বে পরিবারের সদস্যরা আত্মীয় বাড়ি বেড়াতে গেলে কিশোরীটিকে বাড়িতে একা পেয়ে ধর্ষণ করে ইয়াসিন মোল্যা। পরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রতিনিয়ত ধর্ষণ করতে থাকে। এসময় ছাত্রীটি ইয়াসিনকে বিয়ের জন্য চাপ দিলে সে বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানাই।  গত ১১ জুন কিশোরীটি ইয়াসিনের বাড়িতে গিয়ে সব ঘটনা ইয়াসিনের মায়ের নিকট প্রকাশ করে। এ সময় ইয়াসিনের মা জেসমিন বেগম তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে তাড়িয়ে দেয় এবং আত্মহত্যায় প্ররোচরণা দেয়। লোকলজ্জা ও অপমান সহ্য না করতে পেরে বাড়িতে এসে ঘরে থাকা ফসলিক্ষেতের আগাছানাশক বিষ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করে সে। এসময় পরিবারের লোক তাকে দ্রুত বোয়ালমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেন চিকিৎসক। বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার পর অবস্থার অবনতি হলে ১৩ জুন আবারও বোয়ালমারী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হয় তাকে। বিষক্রিয়ায় তার শরীরিক অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠিনো হয়। ফরিদপুরে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় ১৯ জুন রাত ১০টার দিকে মারা যায় কিশোরীটি। খবর পেয়ে ফরিদপুর কোতয়ালি থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই সাইফদ্দিন বলেন, আসামিরা পলাতক রয়েছে। তবে তাদের গ্রেপ্তারে প্রচেষ্টা চলছে।

(ঢাকাটাইমস/২৪জুন/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :