স্বাধীনতার ৪৮ বছর পর মোছা হলো ‘পাকিস্তান জিন্দাবাদ’

অনিল চন্দ্র রায়, কুড়িগ্রাম
 | প্রকাশিত : ২৪ জানুয়ারি ২০১৯, ১০:০৯

দেশ স্বাধীনের ৪৮ বছর পর কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে ১১১ বছরের কুয়া থেকে ‘পাকিস্তান জিন্দাবাদ’ লেখা মুছে ফেলা হয়েছে। সেখানে জয় বাংলা স্থাপন করা হবে।

উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের আজোয়াটারি গ্রামের এই কুয়াকে ঘিরে এলাকাটি ইন্দ্রারপাড় নামে পরিচিত। পাকিস্তানের জাতীয় পতাকার প্রতীক চাঁদ-তারা অঙ্কিত কুয়াটির নামফলকে লেখা ছিল ‘পাকিস্তান জিন্দাবাদ, মালিক ভোলা মামুদ, ১৩১৩ চৈত্র মাস, মেরামত ১৩৫৭- গ্রামবাসী ও ইউনিয়ন বোর্ড, সৈয়দ উদ্দিন সরকার, পিইউবি’।

বিষয়টি গণমাধ্যমে প্রকাশিত হলে ১৫ দিন ধরে প্রাচীনতম কুয়াটির সংস্কার করছে উপজেলা প্রশাসন। এরই মধ্যে পাকিস্তান জিন্দাবাদ শব্দটি মুছে ফেলা হয়েছে। কয়েকদিনের মধ্যেই সংস্কার শেষে জয় বাংলা নামকরণ করা হবে। 

কাশিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গোলজার হোসেন জানান, ২০১৭-১৮ অর্থবছরে ‘ইউনিয়ন পরিষদের এলজিএসপি প্রকল্প-৩’ এর আওতায় দেড় লাখ টাকা ব্যয়ে ২০১৯ সালের জানুয়ারি মাস মেয়াদে এর সংস্কার চলছে।

আব্দুর রব, শফিকুল ইসলাম, ছকিনা বেগমসহ এলাকার লোকজন  বলেন, ‘এই এলাকায় বৃটিশ আমলে পানির সংকট ছিল। সংকট দূর করতে মরহুম ভোলা মামুদ নিজ উদ্যোগে আধাশতক জায়গায় কুয়াটি তৈরি করেন। সেই থেকে আজ পর্যন্ত এর পানি শুকিয়ে যায়নি। এখানকার মানুষ খাবার, গোসলসহ সাংসারিক কাজে এখনও এই কুয়ার পানি ব্যবহার করে যাচ্ছেন।’

‘স্বাধীনতার ৪৮ বছর পরে সংস্কারের মাধ্যমে ‘পাকিস্তান জিন্দাবাদ’ নামটি মুছে ফেলায় এলাকায় স্বস্তি ফিরে এসেছে। তাই উপজেলা প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানাই।’

উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার মজিবর রহমান জানান, ‘বঙ্গবন্ধুর ডাকে সাড়া দিয়ে জীবনবাজি রেখে এদেশ স্বাধীন করেছি। সেই দেশের মাটিতেই ছিল পাকিস্তান জিন্দাবাদ শব্দটি, এটা খুবই দুঃখজনক। এত বছর পর তা মুছে ফেলে জয় বাংলা নামকরণ করায় মুক্তিযোদ্ধারাও স্বস্তি পাচ্ছেন। ইউনিয়ন পরিষদ ও উপজেলা প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানাই।’  

ফুলবাড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাছুমা আরেফিন জানান, এদেশে পাকিস্তান জিন্দাবাদ লেখা থাকবে না। কুয়াটির সংস্কার শেষ হলে জয় বাংলা নামকরণ করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত