মুরাদের নাগরিকত্ব কেটে দেওয়া উচিত: এ্যারোমা দত্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ১৮:০৯

নানা বিতর্কিত মন্তব্য ও কর্মকাণ্ডের জেরে মন্ত্রিত্ব ও দলীয় পদ হারানো ডা. মুরাদ হাসানের শাস্তিটা কম হয়েছে বলে মনে করেন মানবাধিকারকর্মী এ্যারোমা দত্ত। মুরাদ হাসান যে জঘন্য অপরাধ করেছেন তাতে তার নাগরিকত্ব কেটে দেওয়া উচিত বলে মনে করেন সংরক্ষিত নারী আসনের এই সদস্য।

মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা টাইমসের সঙ্গে আলাপকালে এ্যারোমা দত্ত বলেন, ‘এটা খুবই খারাপ, খুবই খারাপ কাজ করেছেন, এটা মুখেই আসছে না। ওনার শাস্তিটা আরও বেশি দেওয়া উচিত। ওনাকে ব্লাকলিস্ট করা উচিত সমস্ত কিছু থেকে। ওনার সিটিজেন সিপটাই (নাগরিকত্ব) কেটে দেওয়া উচিত।’

নারীদের প্রতি মুরাদ হাসানের আক্রোশের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘নারীদের প্রতি তার আক্রোশের কারণ হলো, নারীরা আজকাল অনেক এগিয়ে গেছে। তারা তাদের জায়গাগুলো দখল করে নিচ্ছে। নারীদের বিপরীতে মুরাদ হাসানরা নিজেদের দুর্বল মনে করছে। তাদের মন মানসিকতা বিকৃত। তারা বিকৃত লোক। তারা জঘন্য। তারা পশুরও অধম। পশুকে, কুকুরকে মারলে কুকুর কামড়ে আসে। এমনিতে কামড়ায় না। তারা কুকুরেরও অধম।’

এই সমাজকর্মী বলেন, ‘এটি একটি রাষ্ট্র। এখানে সব ধরনের উপাদান থাকবে। ভালো লোক থাকবে, খারাপ লোক থাকবে। এটা রাষ্ট্রের দোষ না। ভালো দেখেই তো সবাইকে নেওয়া হয়। কিন্তু পরে যদি দেখা যায় ওই লোকটা বিকৃত তাহলে তো এটা নির্বাচকদের দোষ না।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ বিষয়ে দ্রুত সময়ে পদক্ষেপ নিয়েছেন। যা এ ধরনের অপরাধীদের জন্য শাস্তির অন্যতম উদাহরণ হয়ে থাকবে বলে মনে করেন এই নারীনেত্রী।

এ্যারোমা দত্ত বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী তো তাকে ১২ ঘণ্টার মধ্যে ঘাড় ধাক্কা দিয়ে বের করে দিয়েছেন। আমাদের প্রধানমন্ত্রী সুবিচারক। এটা শাস্তির একটি উদাহরণ।’

(ঢাকাটাইমস/০৭ডিসেম্বর/কারই/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :