গোয়ালন্দের মরা পদ্মায় পলো বাইছ উৎসব

এম,মনিরুজ্জামান,রাজবাড়ী
 | প্রকাশিত : ০৬ মার্চ ২০১৭, ১৯:১০

প্রতি বছরের মতো রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার মরা পদ্মা নদীর বিশাল জলাশয়ে পলো দিয়ে মাছ ধরার উৎসবে মেতে ওঠেন শত শত সৌখিন মৎস্য শিকারি। পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী সোমবার সকাল হতে উপজেলার বিভিন্ন এলাকা হতে শত শত সৌখিন মৎস্য শিকারিরা পলো নিয়ে এসে মরাপদ্মা নদীর উন্মুক্ত এলাকায় মাছ ধরা শুরু করেন।

ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে গ্রাম-বাংলার হারিয়ে যাওয়া ঐতিহ্যবাহী এ পলো বাইচে অংশ নিয়ে বিভিন্ন বয়সী মানুষ ব্যাপক আনন্দ উপভোগ করেন। গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া ক্যানেল ঘাট থেকে শুরু হয়ে এই পলো বাইচ শেষ হয় উজানচর ইউনিয়নের মাখন রায়ের পাড়া নতুন ব্রিজ এলাকায়।

উজানচর নতুন পাড়া এলাকার মাছ শিকারি আব্দুল জব্বার, খোরশেদ সরদার, লিটনসহ অনেকেই বলেন, গোয়ালন্দে মিঠা পানির মৎস্য ভাণ্ডার হিসেবে খ্যাত এ মরা পদ্মায় দীর্ঘদিন ধরে শীতের শেষে শুরু হয়ে গ্রীষ্মের দীর্ঘ সময় পর্যন্ত পালাক্রমে এভাবে মাছ ধরা হচ্ছে বহুকাল ধরে। পলো বাইচ তেমনি একটি উৎসব। দলবদ্ধ হয়ে পলো দিয়ে এভাবে মাছ শিকার করে তারা বেশ আনন্দ পান। এটা এলাকার একটি ঐতিহ্যে পরিণত হয়েছে। সেই ঐতিহ্য ধরে রাখতেই এই পলো বাইচের আয়োজন।

সরেজমিন দেখা যায়, দেশি জাতের মাছের মধ্যে বড় বড় শোল, বোয়াল, রুই ও কাতলা মাছ পলোতে বেশি ধরা পড়ছে। তবে ধরা পরা মাছের মধ্যে ছোট আকৃতির মাছও কম নয়। পলো বাইচ উৎসবে অংশ নেয়া পূর্ব উজানচরের নুরুল ইসলাম জানান, শখের বশে পলো বাইতে আসছি, একটি বোয়াল মাছ পাইছি। আলাউদ্দিন বিশ্বাস জানান, তিনি ছোট আকৃতির ১০-১২টি রুই ও ১টি কাতলা মাছ ধরেছেন। এ সময় দেখা যায়, কারো পলোর নিচে একটি মাছ পড়লে চিৎকার দিয়ে সবাই তা উপভোগ করছেন।

স্থানীয় মৎস্যজীবী কুদ্দুস হালদার, আলাউদ্দিন খাসহ কয়েকজন জানান, বেশ কয়েক বছর ধরে এ জলাশয়টি অবৈধ দখলদারমুক্ত থাকায় প্রাকৃতিক মাছের প্রজনন বেড়েছে। স্থানীয় লোকজন সারা বছরই কোন বাধা ছাড়াই এ মাছ ধরতে পারছে।

(ঢাকাটাইমস/৬মার্চ/প্রতিনিধি/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত