‘ধর্ষণের মতো অপরাধ করলে এনকাউন্টার হবে’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ১৮:৪৫

সম্প্রতি ভারতের তেলেঙ্গানা রাজ্যের হায়দরাবাদে এক নারী পশুচিকিৎসককে ধর্ষণের পরে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত চার ধর্ষককে আটক করে। কিন্তু পরে তারা এক কথিত বন্দুকযুদ্ধে মারা যায় বলে দাবি করে পুলিশ।  বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের পক্ষে-বিপক্ষে আলোচনার মধ্যেই কথিত বন্দুকযুদ্ধ সমর্থন করলেন রাজ্যের পশুপালনমন্ত্রী মন্ত্রী তালাসানি শ্রীনিবাস যাদব। 

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি অনলাইনের প্রতিবেদনে বলা হয়, গতকাল শনিবার স্থানীয় একটি টেলিভিশনে সাক্ষাৎকার দেন পশুপালনমন্ত্রী। সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, পুলিশ যে পদক্ষেপ (এনকাউন্টার) নিয়েছে, তা সম্ভাব্য ধর্ষকদের জন্য একটি বার্তা। নৃশংস অপরাধ যে করবে, সে পুলিশের এনকাউন্টারে নির্মূল হতে পারে।

শ্রীনিবাস যাদব বলেন, ‘এর (এনকাউন্টার) মাধ্যমে আমরা একটি কঠিন বার্তা দিয়েছি। আমরা দেশের জন্য একটি আদর্শ নির্ধারণ করেছি।’

পুলিশের দাবি, নারী পশুচিকিৎসক হত্যার পুননির্মাণ ধারণ করার জন্য তারা অভিযুক্ত চারজনকে নিয়ে হত্যার স্থানে যান। কিন্তু সেখানে তারা পুলিশের অস্ত্র ছিনিয়ে পালানোর চেষ্টা করে। তখনই ‘এনকাউন্টার’ হয়। 

এনকাউন্টারের ঘটনা প্রসঙ্গে তেলেঙ্গানার পশুপালনমন্ত্রী বলেন, এটা একটা শিক্ষা। কেউ অপরাধ করলে কারাদণ্ড বা জামিনের মতো সুবিধা পাবেন না। ওসব কিছু আর হবে না। এই ঘটনার মধ্য দিয়ে এমন বার্তা দেওয়া হয়েছে যে নৃশংস অপরাধ করলে এনকাউন্টার হবে।

এছাড়া তেলেঙ্গানার যোগাযোগমন্ত্রী পি অজয় কুমারও শ্রীনিবাস যাদবের মতো মন্তব্য করেছেন। গত শুক্রবার তিনি বলেন, ‘দ্রুত বিচার নিশ্চিতে রাজ্য একটি রোল মডেল স্থাপন করেছে। আমরা দেখিয়েছি, কেউ যদি আমাদের মেয়েদের দিকে খারাপ নজর দেয়, তবে আমরা তার চোখ তুলে নেব।’

(ঢাকাটাইমস/০৮ডিসেম্বর/আরআর)

সংবাদটি শেয়ার করুন

আন্তর্জাতিক বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :