এমপিদের জন্য বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের হ্যান্ডরাব

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০৩ জুন ২০২০, ২১:১০

করোনাকালে আসন্ন জাতীয় সংসদের বাজেট অধিবেশনে অংশগ্রহণকারী সংসদ সদস্যদের জন্য উপহার হিসেবে হ্যান্ডবার দেয়া হয়েছে। বিসিএসআইআরের ডিআরআইসিএম কর্তৃক প্রস্তুতকৃত হ্যান্ডরাব প্রদান করেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান।

বুধবার বিসিএসআইআরের ডিআরআইসিএম অডিটোরিয়ামে সংসদের হুইপ সাঈদ আল মাহমুদ স্বপনের কাছে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে এ উপহার তুলে দেয়া হয়।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব আনোয়ার হোসেন, বিসিএসআইআরের চেয়ারম্যান ফারুক আহমেদ ও ডিআরআইসিএমের পরিচালক ড. মালা খান।

দেশে সম্প্রতি উদ্ভূত করোনা ভাইরাসজনিত স্বাস্থ্যঝুঁকি মোকাবেলায় প্রতিরোধ কৌশল হিসেবে জনসাধারণের হাত জীবাণুমুক্ত করার উপাদান- হ্যান্ডরাব প্রস্তুত করেছে বিসিএসআইআরের আন্তর্জাতিকমানের রেফারেন্স ল্যাবরেটরি ডিআরআইসিএম। করোনা ভাইরাসজনিত রোগের ঝুঁকি ক্রমশ প্রবল হতে থাকার প্রেক্ষাপটে বাজারে হ্যান্ডরাব স্যানিটাইজারের দুষ্প্রাপ্যতা সৃষ্টি হওয়ায় ডিআরআইসিএম এই উদ্যোগ গ্রহণ করে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সুপারিশকৃত ফর্মুলায় প্রস্তুতকৃত বি ক্লিন নামের এই হ্যান্ডরাব ইতিমধ্যে কেবিনেট ডিভিশনসহ বিভিন্ন সংস্থায় বিতরণ করা হয়েছে। এই হ্যান্ডরাব প্রধানত বিনামূল্যে সাধারণ জনগণের হাত জীবাণুমুক্ত করার কাজে ব্যবহারের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

আইইডিসিআরসহ দেশের স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ অনুযায়ী করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সবার হাত সময়ান্তরে জীবাণুমাক্ত করা একটি অন্যতম প্রধান উপায়। সে লক্ষ্যেই ডিআরআইসিএমের এই উদ্যোগ। ইতিমধ্যে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমান হ্যান্ডরাব উৎপাদনের এই কার্যক্রম পরিদর্শন করে সংশ্লিষ্টদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

প্রাথমিক পর্যায়ে ঢাকার ছয়টি হাসপাতাল - বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতাল ও শিশু হাসপাতালে দায়িত্বরত ডাক্তার, আগত রোগী ও জনসাধারণের হাত জীবানমুক্ত করতে প্রতিদিন প্রয়োজনীয় পরিমাণ স্যানিটাইজার সরবরাহ করার নির্দেশ দিয়েছেন মন্ত্রী। এছাড়াও ডিআরআইসিএম কর্তৃক প্রস্তুতকৃত বি ক্লিন নামে হ্যান্ডরাব, স্যানিটাইজার ও ডিজইনফেকটেন্ট মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়, অর্থ বিভাগ, ধর্ম মন্ত্রণালয়, ভূমি মন্ত্রণালয়, নির্বাচন কমিশনসহ সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, বিভাগ, সংস্থা, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী, ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের প্রশাসনাধীন বিভিন্ন সংস্থা, রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ নির্মাণ প্রকল্প, বাংলাদেশ পুলিশ ও বিভিন্ন ব্যক্তি পর্যায়ে সরবরাহ করা হয়েছে এবং হচ্ছে।

দেশের মানুষের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় গৃহীত এ উদ্যোগকে মুজিববর্ষের উপহার হিসেবে নিবেদন করছে উদ্যোক্তারা। উদ্যোক্তারা বলছেন, এই কর্মসূচির মাধ্যমে হয়তো দেশের সব মানুষের হাত জীবাণুমুক্ত করা সম্ভব হবে না, কিন্তু মানুষের মধ্যে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সচেতনতা সৃষ্টি করা সম্ভব হবে।

(ঢাকাটাইমস/০৩জুন/বিইউ/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :