সপ্তাহের ব্যবধানে বাজার মূলধন বেড়েছে দুই হাজার কোটি টাকা

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক,ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ০৯ এপ্রিল ২০২১, ১১:৩১ | প্রকাশিত : ০৯ এপ্রিল ২০২১, ১১:২৯

সপ্তাহের ব্যবধানে দেশের দুই পুঁজিবাজারে বেড়েছে বাজার মূলধন। সূচকের মিশ্র প্রবণতায় কমেছে বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিট দর। লেনদেন বাড়ার পাশাপাশি উভয় পুঁজিবাজারে বিনিয়োগকারীরা এক সপ্তাহে বাজার মুলধন ফিরে পেয়েছে দুই হাজার কোটি টাকা।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

জানা গেছে, সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে লেনদেন শুরুর আগে ডিএসইতে বাজার মূলধন ছিল ৪ লাখ ৫৮ হাজার ৬৮০ কোটি ৫০ লাখ ২৮ হাজার টাকা। আর সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস লেনদেন শেষে বাজার মূলধন দাঁড়ায় ৪ লাখ ৫৯ হাজার ২৩৯ কোটি ৯৮ লাখ ৫৮ হাজার টাকায়। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে বিনিয়োগকারীরা পাঁচশত হাজার ৫৯ কোটি ৪৮ লাখ ৩০ হাজার টাকা বাজার মূলধন ফিরে পেয়েছে।

জানা গেছে, সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবসে লেনদেন শুরুর আগে সিএসইতে বাজার মূলধন ছিল ৩ লাখ ৭০ হাজার ৯০০ কোটি ৮১ লাখ ২০ হাজার টাকা। আর সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস লেনদেন শেষে বাজার মূলধন দাঁড়ায় তিন লাখ ৮৬ হাজার ৫৮৩ কোটি ৫০ লাখ ২০ হাজার টাকায়। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে বিনিয়োগকারীরা এক হাজার ৫৬৮ কোটি ৬৯ লাখ টাকা বাজার মূলধন ফিরে পেয়েছে।

অর্থাৎ সপ্তাহ জুরে উভয় পুঁজিবাজারে বিনিয়োগকারীরা মূলধন ফিরে পেয়েছে দুই হাজার কোটি টাকার বেশি।

বিদায়ী সপ্তাহে পাঁচ কার্যদিবসে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) মোট লেনদেন হয়েছে দুই হাজার ৩২৪ কোটি ৬৩ লাখ ৫৩ হাজার ২৯ টাকার লেনদেন হয়েছে। যা আগের সপ্তাহ থেকে ২৯৫ কোটি ৮১ লাখ ৬২ হাজার ৬৫৮ টাকা বা ১৪.৫৮ শতাংশ বেশি হয়েছে। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ২ হাজার ২৮ কোটি ৮১ লাখ ৯০ হাজার ৩৪৪ টাকার।

ডিএসইতে বিদায়ী সপ্তাহে গড় লেনদেন হয়েছে ৪৬৪ কোটি ৯২ লাখ ৭০ হাজার ৬০৬ টাকার। আগের সপ্তাহে গড় লেনদেন হয়েছিল ৫০৭ কোটি ২০ লাখ ৪৭ হাজার ৫৮৬ টাকার। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইতে গড় লেনদেন ৪২ কোটি ২৭ লাখ ৭৬ হাজার ৯৮০ টাকা বা ৮.৩৪ শতাংশ কম হয়েছে।

সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ১৫ পয়েন্ট বা ০.৩০ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ২৫৪ পয়েন্টে। অপর সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক চার পয়েন্ট বা ০.৪১ শতাংশ কমে দাঁড়িয়ে এক হারাজ ১৯৭ পয়েন্টে এবং ডিএসই-৩০ সূচক সাত পয়েন্ট বা ০.৩৬ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়ে এক হাজার ৯৯০ পয়েন্টে।

বিদায়ী সপ্তাহে ডিএসইতে মোট ৩৭৫টি প্রতিষ্ঠান শেয়ার ও ইউনিট লেনদেনে অংশ নিয়েছে। প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে দর বেড়েছে ১০৮টির বা ২৮.৮০ শতাংশের, কমেছে ২০৫টির বা ৫৪.৬৬ শতাংশের এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৫৪টির বা ১৪.৪০ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) বিদায়ী সপ্তাহে টাকার পরিমাণে লেনদেন হয়েছে ২৯৭ কোটি ৫৫ লাখ ৬১ হাজার ৯২ টাকার। আর আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ২৮৫ কোটি ৭৯ লাখ ৩২ হাজার ৫৮৪ টাকার।

সপ্তাহটিতে সিএসইর সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ২৫ পয়েন্ট বা ০.১৬ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ১৫ হাজার ২৩১ পয়েন্টে। সিএসইর অপর সূচকগুলোর মধ্যে সিএসসিএক্স ১২ পয়েন্ট বা ০.১৩ শতাংশ কমে অবস্থান করছে নয় হাজার ১৯০ পয়েন্টে। সিএসই-৩০ সূচক ৯০ পয়েন্ট বা ০.৭৮ শতাংশ বেড়ে অবস্থান করছে ১১ হাজার ৬৯৪ পয়েন্টে। সিএসই-৫০ সূচক ০.৮১ পয়েন্ট বা ০.০৭ শতাংশ বেড়ে অবস্থান করছে এক হাজার ১৫৬ পয়েন্টে এবং সিএসআই ১১ পয়েন্ট বা ১.১৫ শতাংশ কমে অবস্থান করছে ৯৬৭ পয়েন্টে।

সপ্তাহজুড়ে সিএসইতে ২৮৫টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেনে অংশ নিয়েছে। প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে ৯১টির বা ৩১.৯২ শতাংশের দর বেড়েছে, ১৪৭টির বা ৫১.৫৭ শতাংশের কমেছে এবং ৪৭টির বা ১৬.৪৯ শতাংশের দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

(ঢাকাটাইমস/০৯এপ্রিল/এসআই)

সংবাদটি শেয়ার করুন

অর্থনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :