না ফেরার দেশে কথাশিল্পী শান্তনু কায়সার

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১২ এপ্রিল ২০১৭, ১৪:৪৮

বিশিষ্ট কথাশিল্পী, প্রাবন্ধিক-গবেষক, বাংলা একাডেমির ফেলো অধ্যাপক শান্তনু কায়সার ইন্তেকাল করেছেন। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজেউন।)

খ্যাতিমান এই লেখক মঙ্গলবার রাতে ঢাকার হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন। তার বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর।

১৯৫০ সালে শান্তনু কায়সার চাঁদপুরে জন্মগ্রহণ করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের স্নাতক ও স্নাতকোত্তর শিক্ষা শেষে তিনি শিক্ষকতা পেশায় নিযুক্ত ছিলেন। বিভিন্ন সময় তিনি কুমিল্লা সরকারি কলেজ, জামালপুর জাহেদা সাফির মহিলা কলেজ, লক্ষ্মীপুর চর আলেকজান্ডার কলেজের অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এছাড়া অধ্যাপনা করেছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় এবং কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে।

প্রবন্ধ-গবেষণা, কবিতা, ছোটগল্প, নাটক, অনুবাদ, জীবনী ও সম্পাদনা মিলিয়ে তাঁর গ্রন্থের সংখ্যা পঞ্চাশের অধিক।

সাহিত্যকর্মের স্বীকৃতিস্বরূপ তিনি বাংলা একাডেমি পুরস্কার, আলাওল সাহিত্য পুরস্কার, কুমিল্লার কাগজ পুরস্কার, ভারতের অদ্বৈত মল্লবর্মণ স্মৃতি পুরস্কার, প্রত্যাশা সাহিত্য পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন। শান্তনু কায়সার ছিলেন বাংলাদেশ লেখক শিবিরের সাবেক সভাপতি।

বুধবার সকাল ১০টায় মরহুমের মরদেহ একাডেমি প্রাঙ্গণে আনা হলে একাডেমির মহাপরিচালক অধ্যাপক শামসুজ্জামান খানের নেতৃত্বে একাডেমির সচিব, পরিচালক, উপপরিচালকসহ সর্বস্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ এবং লেখকরা পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

বাংলা একামেীতে শ্রদ্ধা নিবেদন পর্বে আরো অংশ নেন ইমেরিটাস অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, কথাসাহিত্যিক আনোয়ারা সৈয়দ হক, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার, কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা, কবি ইকবাল আজিজ, জাতীয় জাদুঘরের মহাপরিচালক ফয়জুল লতিফ চৌধুরী, জাতীয় রবীন্দ্রসংগীত সম্মিলন পরিষদের পক্ষে সাধারণ সম্পাদক শিল্পী লাইসা আহমেদ লিসা, সোনারগাঁও লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের পরিচালক কবি রবীন্দ্র গোপ, বাংলাদেশ শিশু একাডেমির পরিচালক আনজীর লিটন, বাংলাদেশ লেখক শিবিরের পক্ষে সভাপতি অধ্যাপক হাসিবুর রহমান, কুমিল্লার সাংস্কৃতিক সংগঠন সমতট-এর পক্ষে শিল্পী মানসী সাধু, তপন দেবনাথ, কবি পিয়াস মজিদ, কবি আমিনুর রহমান সুলতান, কবি মুজিবুল বারী, কথাসাহিত্যিক নুরুদ্দীন জাহাঙ্গীর, কবি শরাফত হোসেন এবং প্রয়াত শান্তনু কায়সারের পরিবারের পক্ষে জ্যেষ্ঠ পুত্র অদুদ রায়হান, সহোদর মুজিবুল হক, সিরাজুল হক প্রমুখ।

বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান বলেন, শান্তনু কায়সার ছিলেন একজন মৌলিক চিন্তার প্রাবন্ধিক ও গবেষক। অদ্বৈত মল্লবর্মণ, মীর মশাররফ হোসেন, রবীন্দ্রনাথ, নজরুলসহ বাংলা সাহিত্যে বিভিন্ন বিষয়ে তাঁর উদ্ভাবনাময় সৃষ্টি আমাদের গবেষণা-ভুবনকে সমৃদ্ধ করেছে। বাংলা একাডেমির সাথে ছিল তার নিবিড় ও আন্তরিক যোগাযোগ। একাডেমি থেকে তার বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে। তিনি বলেন, বাংলা একাডেমি শিগগিরই শান্তনু কায়সারের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে স্মরণসভার আয়োজন করবে।

বাংলা একাডেমিতে প্রথম জানাজা শেষে তাঁর মরদেহ কুমিল্লায় নিয়ে যাওয়া হয়। কুমিল্লা টাউন হলে দ্বিতীয় জানাজা শেষে তাকে পৈত্রিক নিবাস চাঁদপুরে দাফন করা হবে।

(ঢাকাটাইমস/১২এপ্রিল/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

সাহিত্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত