দারকিনা মাছ বিলুপ্তির পথে

মনোনেশ দাস, ময়মনসিংহ
 | প্রকাশিত : ২২ ডিসেম্বর ২০১৭, ১১:৩১

ময়মনসিংহের দূষণ, প্রজনন ঋতুতে অবাধে শিকার, কীটনাশকের ব্যবহার বৃদ্ধির কারণে বাংলার ঐতিহ্যবাহী এক-দেড় ইঞ্চি আকারের মাছ দারকিনার অস্তিত্ব বিপন্ন হয়ে পড়ছে। মিঠা পানিতে বসবাসকারী হিসেবে পরিচিত, দৃষ্টিনন্দন ও সুস্বাদু এই মাছের সংরক্ষণ নিয়ে সচেতনতা বাড়ান জরুরি বলে মনে করছেন ভোজনরসিকরা।

তারা বলছেন, জনপ্রিয় ও পরিচিত দারকিনা মাছের অস্তিত্ব রক্ষায় সংশ্লিষ্টরা উদ্যোগী হলে থালার পাতে দারকিনা মাছের মেনু দেখার সুযোগও পাবে প্রজন্মরা।

ময়মনসিংহের সর্বত্র পরিবারিক খাবার এমনকি আত্মীয়-স্বজন বাড়িতে এলে তাদের খাবারের মেনুতে থাকত দারকিনা মাছ। জেলার সকল বাজারেই এর চাহিদা এখনও ব্যাপক। কেজিপ্রতি ৪/৫শ’ টাকা দামে বিক্রি হয়। চাহিদার তুলনায় উৎপাদন কম বলে অন্য বিলুপ্তপ্রায় দারকিনা মাছের দামও বেশি। অনেকক্ষেত্রেই তা সাধারণ ভোজনরসিক বা মৎস্যপ্রেমীদের নাগালের বাইরে থাকছে।

একসময় নদী-নালা, খাল-বিল, পুকুর-ডোবায় সবচেয়ে বেশি যে মাছটি চোখে পড়ত তার নাম দারকিনা। যদিও অঞ্চলভিত্তিক এই মাছটিকে দারকিনি, দারখিলা, ডানকানা, ডানখিনা, চুক্কুনি, মলঙ্কা নামেও সম্বোধন করা হয়।

সোনারাঙা মাছটির গোটা গায়ের মাঝে কাল দাগ দেখা যায়। ৮০ এর দশকে ক্ষত রোগে এ মাছটি বড় ধরনের ক্ষতির শিকার হয়। মানুষের মত গবাদি ও বন্য বহু পাখিরও প্রিয় খাবার দারকিনা মাছ।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ১৯৯৮ সালে আইইউসিএন সমীক্ষা করে জানিয়েছে- পরিবেশের পরিবর্তন, আবাসস্থলের সংকোচন ও মানবসৃষ্ট নানাবিধ কারণে বাংলাদেশের ৫৪ প্রজাতির মাছ বিপন্ন হয়ে পড়েছে। এর মধ্যে দারকিনাও একটি।

(ঢাকাটাইমস/২২ডিসেম্বর/ব্যুরো প্রধান/এলএ)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত