পদ হারানোর শঙ্কায় সানি দেওল

বিনোদন ডেস্ক
 | প্রকাশিত : ২০ জুন ২০১৯, ১৭:৪৯

প্রথমবারের মতো নির্বাচনে লড়েই পাঞ্জাবের গুরুদাসপুর থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন বলিউড অভিনেতা সানি দেওল। তবে সেই পদ হারানোর শঙ্কায় রয়েছেন ক্ষমতাসীন দল বিজেপির নবনির্বাচিত এই সাংসদ। সানির বিরুদ্ধে অভিযোগ, লোকসভা ভোটের আগে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণায় তিনি অতিরিক্ত টাকা খরচ করে ফেলেছেন।

ভারতে নির্বাচনী বিধি অনুযায়ী, লোকসভা নির্বাচনে প্রত্যেক প্রার্থীর প্রচার-প্রচারণা চালানোর জন্য নির্বাচন কমিশন থেকে ৭০ লাখ রুপি নির্ধারণ করে দেয়া হয়। কিন্তু সানি দেওল খরচ করেছেন ৮৬ লাখ রুপি। তার বিরুদ্ধে এ সংক্রান্ত একাধিক অভিযোগ নির্বাচন কমিশনে জমা পড়েছে। যার কারণে কমিশন থেকে ইতোমধ্যে সানির নামে নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সানিকে এই নোটিশের জবাব দিতে বলা হয়েছে। সেই জবাবে যদি নির্বাচন কমিশন সন্তুষ্ট না হয় এবং তার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ প্রমাণিত হয়, তবে  সর্বোচ্চ শাস্তি হিসেবে সংসদ সদস্য পদ হারাতে হতে পারে অভিনেতা ধর্মেন্দ্রর বড় ছেলে সানিকে। তখন দ্বিতীয় স্থানে থাকা কংগ্রেসের প্রার্থী সুনীল জাখরকে বিজয়ী বলে ঘোষণা করা হতে পারে।

তবে এবারই প্রথম নয়। ভোটগ্রহণের আগেও একবার সানি দেওলের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণবিধি ভঙ্গের অভিযোগ উঠেছিল। তখন অভিযোগ করা হয়, নির্বাচনের আগে নির্বাচন কমিশনের বেঁধে দেয়া সময়সীমার বাইরে গিয়ে সানি প্রচার-প্রচারণা চালিয়েছেন। সে সময় ধর্মেন্দ্র-পুত্রকে এ ব্যাপারে সতর্ক করে দেয়া হয়েছিল।

প্রসঙ্গত, ১৭ তম লোকসভা নির্বাচনে পাঞ্জাব কংগ্রেসের প্রধান সুনীল জাখরকে ৮০ হাজার ভোটে হারিয়ে গুরুদাসপুর থেকে প্রথমবারের মতো সাংসদ নির্বাচিত হন ৬২ বছর বয়সী সানি দেওল। গত মঙ্গলবার তিনি সাংসদ হিসেবে শপথও নিয়েছেন। এবারের নির্বাচনে উত্তরপ্রদেশের মাথুরা থেকে জয়ী হয়েছেন সানির সৎমা অভিনেত্রী হেমা মালিনীও। তিনিও বিজেপির ব্যানারে সাংসদ হয়েছেন। তবে ছেলে সানির মতো রাজনীতিতে হেমা নতুন নন।

ঢাকাটাইমস/২০ জুন/এএইচ

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিনোদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :