প্রত্যাবাসন সাক্ষাৎকারে আসেনি তালিকাভুক্ত রোহিঙ্গারা

টেকনাফ (কক্সবাজার) প্রতিনিধি
| আপডেট : ২০ আগস্ট ২০১৯, ১৭:২৯ | প্রকাশিত : ২০ আগস্ট ২০১৯, ১৭:০৮

মিয়ানমারে ফেরত যাওয়ার বিষয়ে মতামত দিতে আসেনি তালিকাভুক্ত রোহিঙ্গারা। মঙ্গলবার টেকনাফের শালবাগান রোহিঙ্গা শিবিরে নির্ধারিত স্থানে সাক্ষাৎকার দেয়ার কথা থাকলেও কোনও রোহিঙ্গা সেখানে যাননি।

জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর এবং শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনারের (আরআরআরসি) কার্যালয়ের প্রতিনিধিরা তালিকাভুক্ত রোহিঙ্গাদের সাক্ষাৎকার দিতে উৎসাহিত করার চেষ্টা করে যাচ্ছেন।

তবে প্রত্যাবাসন তালিকায় নাম থাকা কয়েকজন রোহিঙ্গা বলছেন, তালিকায় তাদের পরিবারের নাম রয়েছে জানিয়ে তাদেরকে সাক্ষাৎকারে ক্যাম্পে যাওয়ার জন্য বলা হয়েছে। কিন্তু যে দেশ থেকে নির্যাতনের স্বীকার হয়ে এসেছেন, সে বিচার না পেলে তারা সেখানে ফেরত যাবেন না।

শালবাগান রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ইনচার্জ মোহাম্মদ খালেদ হোসেন বলেন, ‘প্রত্যাবাসনের তালিকায় নাম থাকা রোহিঙ্গা নারী-পুরুষদের ঘরে ঘরে গিয়ে তাদের সাক্ষাৎকার দিতে আসার জন্য বলা হয়েছে। তবে কেউ সাক্ষাৎকার দিতে আসেননি।’

২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট মিয়ানমারের রাখাইনে পুলিশি চৌকিতে কথিত হামলার ধুয়ো তুলে রোহিঙ্গাদের ওপর সেনা নিপীড়ন শুরু হলে প্রাণ বাঁচাতে বাংলাদেশে পালিয়ে আসে তারা। কক্সবাজারের বিভিন্ন ক্যাম্পে অবস্থান নেয় আট লাখের বেশি রোহিঙ্গা। আর আগে থেকে বাংলাদেশে আশ্রিত রোহিঙ্গাদের নিয়ে এ সংখ্যাটি ছাড়িয়ে যায় ১২ লাখের বেশি।

রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেয়ার পাশাপাশি তাদের নিজদেশে ফেরাতে কূটনৈতিক প্রচেষ্টা চালিয়ে আসছে বাংলাদেশ। কিন্তু দফায় দফায় চেষ্টা করেও প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া শুরু করা যায়নি। গত বছরের শেষ সময়ে এবং চলতি বছরের শুরুতে প্রত্যাবাসন শুরুর কথা দিয়েও সে কথা রাখেনি মিয়ানমার।

সবশেষ গত মাসে দুই দেশের প্রতিনিধি দলের বৈঠকে প্রত্যাবাসন চুক্তির অংশ হিসেবে কথিত যাচাইবাছাইয়ের জন্য মিয়ানমারের হাতে ২৫ হাজার রোহিঙ্গার একটি তালিকা দেয় বাংলাদেশ। আর সেখান থেকেই ৩ হাজার ৫৪০ জনকে নেয়ার বিষয়ে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে বলে সম্প্রতি মিয়ানমারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মিন্ট থু জানান।

ঢাকাটাইমস/২০আগস্ট/ডিএম

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :