ইফতারে চেতনানাশক: আটক ১৫

নিজস্ব প্রতিবেদক,ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১১ জুন ২০১৭, ১৪:২৮

গণপরিবহনে বিক্রি হওয়া ইফতারে চেতনানাশক মিশিয়ে অচেতন করে মূল্যবান সামগ্রী লুটে নেয়া একটি প্রতারক চক্রকে আটকের কথা জানিয়েছে পুলিশ। রাজধানীর জুরাইন, মৌচাক, মগবাজার এবং ফকিরাপুল এলাকা থেকে এই চক্রের ১৫ জনকে ধরে বাহিনীটি।

রবিবার দুপুরে ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার আবদুল বাতেন। তিনি জানান, শনিবার সন্ধ্যা সাতটা থেকে রাত পৌনে তিনটা পর্যন্ত এদেরকে ধরা হয়।

আটকরা হলেন: মিজানুর রহমান, আলমগীর হোসেন, ইদ্রিস ব্যাপারী, খোকন মোল্লা, আবুল কালাম মিয়া, বাবুল পাটোয়ারী, শাহ আলম শেখ, আবদুল মান্নান, রিপন, শরিফ, হুমায়ুন কবির, আবদুর রহমান,ইউনুস মিয়া, শ্যামল এবং মামুনুল ইসলাম।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার বলেন, ‘রাজধানীবাসী ইফতারের সময়ে তাড়াহুড়ো করে বাসে ওঠে। তাদের কাছে ইফতারের সঙ্গে চেতনানাশক মিশ্রিত খাবার বিক্রি করে এসব প্রতারকরা। ওইসব রোজাদাররা বাসে বসে ওই চেতনানাশত মিশ্রিত খাবার খেয়ে অচেতন হয়ে যায়। তখন তাদেরই আরেকজন সদস্য ওই ব্যক্তির কাছ খেকে টাকা পয়সা সবকিছু লুটে নেয়।’

এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ‘আমরা রাজধানীর বিভিন্ন রুটের বাসের মালিক সমিতির সঙ্গে কথা বলেছি যাতে বাসের মধ্যে কোন হকার তাদের খাদ্যদ্রব্য বিক্রি করতে না পারে। এছাড়াও আপনাদের মাধ্যমে নগরবাসীদের প্রতি আহ্বান জানাতে চাই যাতে তারা যেন বাইরের কোন হকারের কাছ থেকে কোন খাবার কিনে না খান।’

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে আবদুল বাতেন বলেন, ‘যাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল তারা জামিনে বেরিয়ে পুনরায় পুরাতন পেশায় প্রবেশ করে। তবে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’ 

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের উত্তর বিভাগের উপকমিশনার শেখ নাজমুল আলম, দক্ষিণ বিভাগের ভারপ্রাপ্ত উপ কমিশনার মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ, পূর্ব বিভাগের উপকমিশনার খোন্দাকার নুরুন্নবী, পশ্চিম বিভাগের উপকমিশনার সাজ্জাদুর রহমান, জনসংযোগ ও গণমাধ্যম শাখার উপকমিশনার মাসুদুর রহমান এবং সিরিয়াস ক্রাইম বিভাগের উপ কমিশনার মোদাচ্ছের হোসেন প্রমুখ সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

ঢাকাটাইমস/১১জুন/এএ/ডব্লিউবি

সংবাদটি শেয়ার করুন

রাজধানী বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত