খুলনায় সওজ’ প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ

খুলনা ব্যুরো, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ১৮ জুলাই ২০১৯, ২৩:৪৩

খুলনার সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী তাপসী দাশের বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। নগরঘাটা ফেরীঘাট পছন্দের ব্যক্তিকে পাইয়ে দেয়ার অভিযোগ করেছেন ইউপি চেয়ারম্যান মোল্যা  ফিরোজ হোসেন।

বৃহস্পতিবার খুলনা প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, গত ২৬ মে নগরঘাটা ফেরিঘাটের ইজারার দরপত্র বিক্রয়ের শেষ দিন ছিল। দরপত্র জমাদানের (ড্রপিং) শেষ দিন ছিল ২৭ মে বেলা সাড়ে ১২টা পর্যন্ত। নির্ধারিত সময় শেষ হওয়ার পর বেলা তিনটার দিকে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে গিয়ে অফিস পিওন একটা দরপত্র নিয়ে আসে। সড়ক ও জনপথ বিভাগের কিছু দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা নিয়ম বহির্ভূতভাবে দরপত্র দাখিল করে। এ ব্যাপারে তিনি সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী বরাবর পুনরায় দরপত্র আহ্বানের আবেদন করেন।

দরপত্র আহ্বানের আবেদন করলেও প্রকৌশলী নানা টালবাহানার মাধ্যমে সময় ক্ষেপণ করেন। পরে  ফিরোজ হোসেন আদালতের শরণাপন্ন হন। ২৬ জুন মামলা করলে আদালত নগরঘাটা ফেরিঘাটটি ফিরোজ হোসেনের অনুকূলে ২০ আগস্ট পর্যন্ত স্থিতিবস্থা বজায় রাখার আদেশ দেন। এছাড়াও নির্বাহী প্রকৌশলী তাপসী দাশকে ২১ দিনের মধ্যে কারণদর্শানোর নোটিশ দেন। আদালতের আদেশ অমান্য করে প্রকৌশলী পছন্দের ব্যক্তিকে নগরঘাট ইজারা দেয়ার জন্য মরিয়া হয়ে ওঠেন।

নির্বাহী প্রকৌশলী নগরঘাটের ইজারা পছন্দের ব্যক্তিকে পাইয়ে দিতে ওয়ার্কঅর্ডার করার জন্য ৮ জুলাই ঢাকায় সিএস প্রেরণ করেন। এ অবস্থায় ১৫ জুলাই ফিরোজ হোসেন সহকারী জজ আদালতে একটি আরজি দাখিল করেন। আদালত আরজি গ্রহণ করে বিবাদী নির্বাহী প্রকৌশলী তাপসী দাশকে ২০ আগস্ট নিজে অথবা একজন উকিল দ্বারা উপস্থিত হয়ে দরখাস্তের বিরুদ্ধে কারণদর্শানোর জন্য আদেশ দেন।

এ ব্যাপারে তাপসী দাশ তার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘ফিরোজ হোসেন যে অভিযোগ করেছেন- তা সম্পূর্ণ মিথ্যা। নগরঘাটার ইজারা নিয়মতান্ত্রিকভাবে দেয়া হয়েছে।’

(ঢাকাটাইমস/১৮জুলাই/ইএস)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :