করোনাকালে অনলাইন লেনদেনে সুরক্ষিত থাকবেন যেভাবে

তথ‌্যপ্রযুক্তি ডেস্ক, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১৩ জুলাই ২০২০, ০৮:১৪ | প্রকাশিত : ১৩ জুলাই ২০২০, ০৮:০৭

করোনা মোকাবিলায় দেশজুড়ে চলছে নানা রকম বিধিনিষেধ, লকডাউন। আর এর জেরে বন্ধ স্কুল, কলেজ, অফিস-আদালতসহ বিভিন্ন কর্মসংস্থান। অফিসের কাজ বাড়িতে থেকেই হচ্ছে। ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোমে’ই অভ্যস্ত হয়ে পড়ছেন কর্মচারীরা। সংক্রমণের ভয়ে খোলা নেই অধিকাংশ দোকানপাটও। তাই এখন অনলাইন শপিংই একমাত্র ভরসা। এ পরিস্থিতিতে গ্রাহকের দুর্বলতা বা অজ্ঞতার সুযোগ নিয়ে অসংখ্য প্রতারক ও জালিয়াতি চক্র গজিয়ে উঠেছে মাঠে। তারা জনগণকে সমানে প্রতারিত করে যাচ্ছে। অসহায় মানুষগুলো চরমভাবে আর্থিক ক্ষতগ্রস্ত হচ্ছে। এক্ষেত্রে সঠিকভাবে অনলাইনে লেনদেন করলে আপনার সমস্ত তথ্য সুরক্ষিত থাকবে।

অনলাইনে একদিকে কেনাকাটা চলছে, অন্যদিকে তেমনই অনলাইনে ব্যবসাও জমে উঠেছে। অধিকাংশ মানুষ অনলাইনেই শুরু করেছেন ব্যবসা। কিন্তু ব্যবসা শুরু করার আগে এবং অনলাইন থেকে কোনও জিনিস কেনার আগে হাজারও প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে সাধারণ মানুষের। আপনি যখন অনলাইনে ব্যবসা শুরু করছেন বা অনলাইনে শপিং করছেন তখন কীভাবে বুঝবেন যে আপনার ইনপুট করা সমস্ত তথ্য সুরক্ষিত থাকছে।

সাধারণ মানুষ যদি অনলাইন শপিং করতে চায় তাহলে তিনি কীভাবে বুঝবেন যে, অনলাইন শপিংয়ের জন্য কোন সাইটটা সুরক্ষিত আর কোন সাইটটা সুরক্ষিত নয়। প্রথমেই দেখতে হবে যে অনলাইন শপিং-এর জন্য যে সাইটটি বেছে নিয়েছেন সেটি এসএসএল দ্বারা স্বীকৃত কি না। সুরক্ষিত অনলাইন সাইট সবসময় শুরু হবে https:// (instead of http://) ঠিক এইভাবে। অনলাইন সাইটটি সুরক্ষিত কিনা তা জানতে সবসময় লক্ষ্য রাখতে হবে প্যাডলক সাইনের দিকে। ওয়েবসাইট URL এ https আছে কিনা যাচাই করে নিন। https থাকলে সেই ওয়েবসাইটটি সুরক্ষিত।

অনলাইনে শপিং সাইট পরিদর্শনকালে কোনও পপআপ ক্লিক করা যাবে না।

সাইটে ব্যক্তিগত তথ্য যতটা সম্ভব কম দেওয়ার চেষ্টা করতে হবে।

সুপরিচিত এবং পরিচিত অনলাইন মার্কেট প্লেসের ওয়েবসাইটগুলো ব্যবহার করুন। অন্য কোনও উচ্চ-স্তরের ডোমেইন ব্যবহার করে ভুল বানান বা সাইটগুলো সম্পর্কে সতর্ক থাকুন (যেমন .net-এর পরিবর্তে .com)।

অনলাইন শপিংয়ে বিপুল অফার থাকলে সেই দিকে আর আগাবেন না।

অনলাইনে কোনও জিনিস কেনার জন্য যখন আমরা আমাদের কার্ড নাম্বার, পিন নাম্বার, ওটিপি নাম্বার এবং সিভিভি কোড ব্যবহার করি। কীভাবে বুঝব সেই অনলাইন পেজটা সুরক্ষিত আছে কিনা। সেক্ষেত্রে জনপ্রিয় অনলাইন মার্কেট প্লেসের সম্পূর্ণ ওয়েব ঠিকানা মনে রাখা ভাল। এমন কোনও সাইট খোলা যাবে না যার কোনও এসএসএল ছাড়পত্র নেই। আপনি যখন আপনার ব্যাংক থেকে লেনদেনের আগে কার্ড নম্বর দেন তখন সাধারণত আপনার ফোনে একটি ওটিপি আসে। কাউকে এই ওটিপি শেয়ার করবেন না।

পাসওয়ার্ড ওটিপি বা ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড, পিন, সিভিভি , ইউপিআই পাসওয়ার্ড কাউকে জানাবেন না

পিন নাম্বার আর ওটিপি নাম্বারে বেশি সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে। পিন নাম্বার আর ওটিপি নাম্বার আপনার মোবাইল ব্যাংক যেমন-বিকাশ, রকেট, নগদ ইত্যাদিতে দিলে সব টাকা গায়েব হয়ে যাবে। কোনভাবেই আপনার পিন বা ওটিপি নাম্বার কাউকে দেবেন না বা মেসেজ ফরোয়ার্ড করবেন না।

অনলাইনে কেনাকাটার ক্ষেত্রে ফোন এবং কম্পিউটারে ডাউনলোডের জন্য লাইসেন্সযুক্ত অ্যান্টিভাইরাস ভাল। কেবলমাত্র ভাল লাইসেন্সযুক্ত অ্যান্টিভাইরাস (নিয়মিতভাবে প্যাচড আপ) ব্যবহার করতে হবে। এবং কোনও অযৌক্তিক লিংকে ক্লিক করা যাবে না। অনেকে বলে থাকেন Google Pay, Phone Pay, Paytm, UPI-এগুলোর মধ্যে কোনটি বেশি সুরক্ষিত। এ সমস্ত পেমেন্ট ওয়ালেট নিরাপদ।

তবে এটি নির্ভর করে আপনার ব্যবহারের পদ্ধতির উপর। আপনি কীভাবে এই অ্যাপ্লিকেশনগুলো ব্যবহার করছেন। ব্যবহার করার আগে অর্থপ্রদান প্রক্রিয়াটি সাবধানে এগোতে হবে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি হলো এসব অর্থ প্রদানের ক্ষেত্রে কোনও অংশীদারি করবেন না। ফোনে একটি ওটিপি আসবে। সেটি কারওর সঙ্গে ভুলেও শেয়ার করবে না। আপনি QR কোডটি স্ক্যান করার সময় সতর্ক থাকুন (যেখানে প্রযোজ্য)।

সুরক্ষার অন্যান্য পদক্ষেপগুলো বিস্তারিত জেনে নিন

একটি ই-ওয়ালেট ইনস্টল করার সময়, আপনি যে অ্যাপ থেকে অ্যাপটি ডাউনলোড করেছেন তা নিশ্চিত করুন।

আপনার ফোনটি একটি আর্থিক পাওয়ার হাউসে পরিণত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে এটা গুরুত্বপূর্ণ যে, আপনি এটিকে সুরক্ষিত রাখুন। যেমন আপনি অ্যান্টি-ম্যালওয়্যার এবং অ্যান্টি-ভাইরাস অ্যাপ্লিকেশনগুলো ইনস্টল করে আপনার ল্যাপটপ বা ডেস্কটপটি ব্যবহার করেন।

কিছু ই-ওয়ালেট দ্বি-গুণক প্রমাণীকরণের জন্য জিজ্ঞাসা করে না এবং শেষপর্যন্ত আপনার কোনও নিশ্চিতকরণ ছাড়াই আপনাকে তহবিল স্থানান্তর করতে দেয়। এর কারণে, আপনার ফোনটি হারাতে পারে, আপনার পরিচয় চুরি এবং আপনার আর্থিক ক্ষতি হতে পারে। তাই নিজেকে সুরক্ষিত রাখার জন্য, আপনার ফোনে একটি স্ক্রিন লক এবং তার পাশাপাশি একটি অ্যাপ লক-ও ব্যবহার করা জরুরি।

বেশিরভাগ ই-ওয়ালেটগুলো ব্যবহার শুরু করার পরে আপনাকে লগইন করে রাখে। তাই সুরক্ষা বজায় রাখতে, আপনার ই-ওয়ালেটটি যতবার ব্যবহার করা হবে ততবারই লগ আউট করা বুদ্ধিমান।

আপনার মোবাইল ওয়ালেট স্টেটমেন্টটি নিয়মিত সাবধানতার সঙ্গে দেখে রাখুন।

অনলাইনে লেনদেনের সময় সর্বজনীন ফ্রি ওয়াইফাই ব্যবহার করবেন না।

সংখ্যা, অক্ষরের মিশ্রণ-সহ শক্তিশালী পাসওয়ার্ড ব্যবহার করুন।

সমস্ত ওয়ালেটের জন্য একটি পাসওয়ার্ড ব্যবহার করবেন না। প্রত্যেকটির জন্য আলাদা পাসওয়ার্ড ব্যবহার করুন।

ইন্টারনেট থেকে কোনও অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করবেন না।

(ঢাকাটাইমস/১৩জুলাই/আরজেড/এজেড)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :