জলঢাকায় সরকারি কাজে অবৈধ বোমা মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন

নীলফামারী প্রতিনিধি, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২৩ মার্চ ২০২১, ২২:১২

নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় সরকারি কাজে অবৈধ ড্রেজার মেশিন বসিয়ে ভূগর্ভস্থ বালু উত্তোলনের মহোৎসব শুরু হয়েছে। অব্যাহতভাবে নদী ও পুকুর খননের নামে বালু উত্তোলনের ফলে হুমকির মুখে পড়েছে ফসলি জমি, বাড়িঘর, গাছপালা।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলার বুড়ি তিস্তা নদী খনন ও মীরগঞ্জের পাতার ডাঙ্গা আশ্রয়ন প্রকল্প প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে ভূমিহীনদের বিতরণের জন্য ঘর নির্মাণে সরকারি খাস জমিতে পুকুর খননের নামে বালু উত্তোলন করছে। এলাকার আওয়ামী লীগ নেতাদের যোগসাজশে ঠিকাদার, সরকার ও হাইকোর্ট কর্তৃক নিষিদ্ধ অবৈধ ড্রেজার বোমা মেশিন বসানো হয়েছে।

অবৈধভাবে এই বালু উত্তোলনের ফলে হুমকিতে পড়েছে কৃষি জমি, বাড়িঘর, সড়ক, গাছপালা ও শহর রক্ষা বাঁধ।

সরজমিন গিয়ে দেখা যায়, মীরগঞ্জ পাতার ডাঙ্গা আশ্রয়ন প্রকল্প এলাকার ভূমিহীনদের মাঝে বিতরণের জন্য প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক ঘর নির্মাণ কাজে বালু দেয়ার জন্য খাস জমির একটি পুকুরে নিষিদ্ধ ঘোষিত ড্রেজার বোমা মেশিন বসানো হয়েছে। এই মেশিন দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন ও বিক্রি করছে ঠিকাদারের নিযুক্ত লোকজন।

অন্যদিকে সরকার ও হাইকোর্ট কতৃক নিষিদ্ধ ঘোষিত বোমা, ড্রেজার মেশিন দিয়ে অবৈধভাবে বুড়ি তিস্তা নদী খনন ও বাঁধ নির্মাণ কাজের জন্য বালু উত্তোলন করছে পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তাদের যোগসাজশে ঠিকাদার।

এসব বালু উত্তোলনলের সঙ্গে ওইসব এলাকার কিছু ব্যক্তি জড়িত বলে জানিয়েছেন ড্রেজার মালিক ও এলাকাবাসী।

তারা বলছেন, ওই সব এলাকায় মাটি খনন করা হলে দেবে যাওয়াসহ কৃষি ও জীব বৈচিত্রের প্রতি বিরূপ প্রভাব পরতে পারে।

বুড়ি তিস্তার পার ও মীরগঞ্জ পাতার ডাঙ্গা আশ্রয়ন এলাকার বাসিন্দারা অভিযোগ করে জানান, সরকার ও দেশের সর্বোচ্চ আদালত ড্রেজার, বোম মেশিন ও বালু উত্তোলন অবৈধ ও নিষিদ্ধ ঘোষণা করে আইন ও রায় ঘোষণা করলেও তা ভঙ্গ করে সরকারি প্রকল্পে ও নদী পুকুর খনন কাজে তা ব্যাবহার করছে পানি উন্নয়ন বোর্ড ও ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তর। তাহলে সাধারণ মানুষ এসব কাজে উৎসাহী হলে তাদের দোষ দেবে কীভাবে প্রশাসন।

তিস্তার পারের আব্দুল কুদ্দুস জানান, মেশিন দিয়ে নদী খনন করার কথা থাকলেও বৈধ মেশিনের বদলে অবৈধ ঘোষিত মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন করছে। ফলে হুমকির মুখে তিস্তার দুই পারের বাসিন্দারা ও বাঁধ।

এ বিষয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ডের নীলফামারী জোনের প্রকৌশলী, আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, বিষয়টি তদন্ত করা হবে। এবং দোষী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হবে।।

(ঢাকাটাইমস/২৩মার্চ/কেএম)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :