কত বড় হলো সাগর-রুনি পুত্র? কোথায় কী পড়ছে, জানুন বিস্তারিত

আল-আমিন রাজু, ঢাকাটাইমস
| আপডেট : ১২ মে ২০২১, ১২:২৪ | প্রকাশিত : ১২ মে ২০২১, ০৯:২১

প্রায় ৯ বছর আগে রাজধানীর পশ্চিম রাজবাজারের বাসায় নৃশংসভাবে খুন হন সাংবাদিক দম্পতি সাগর সারোয়ার ও মেহেরুন রুনি। তাদের একমাত্র পুত্র মাহির সারোয়ার মেঘের বয়স তখন মাত্র পাঁচ বছর। মা-বাবাকে দুর্বৃত্তরা যখন খুন করে তখন মেঘ বাসাতেই ছিল। নৃশংস সেই ঘটনার সাক্ষী মেঘ এখন কিশোর। নানি ও মামার কাছে বড় হচ্ছে। পড়াশোনার পাশাপাশি একজন ক্রিকেটার হিসেবে প্রতিষ্ঠা পাওয়ার চেষ্টাও অব্যাহত রেখেছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বাবা-মায়ের অনুপস্থিতিতে মেঘ বড় হচ্ছে মামা ও নানির কাছে। সে ডিআইটি স্কুলের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র। পড়াশোনার পাশাপাশি ক্রিকেটের প্রতি তার প্রচণ্ড ঝোঁক। ক্রিকেটকেই নিজের ধ্যানজ্ঞান মনে করে সে। ক্রিকেটকে ভালোবেসে জীবনযুদ্ধে জয়ী হওয়ার স্বপ্ন দেখে মেঘ। সে চায় বড় ক্রিকেটার হয়ে দেশের জন্য কিছু করার।

মেঘ ক্রিকেট শিখছে রাজধানীর খামার বাড়ি এলাকায় ইন্দ্রিরা রোড ক্রীড়া চক্র মাঠে। কিছু দিন আগে বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বিকেএসপিতে ভর্তি পরীক্ষা দিয়েছে মেঘ। বিকেএসপিতে ভর্তির সুযোগও পেয়েছিল। তবে তাকে ভর্তি হতে হবে ঢাকার বাইরে। এজন্য এখনই ভর্তি হয়নি।

মেহেরুন রুনির ছোটভাই নওশের আলম রোমান ঢাকা টাইমসকে বলেন, ‘বিকেএসপিতে মেঘ চান্স পেয়েছিল। তবে সেটা চট্টগ্রাম শাখায়, তাই আমরা তাকে দিইনি। আসলে মেঘকে এখন একা ছাড়তে ভয় পাই। আর এখন তো করোনার কারণেও ভর্তি হয়নি। ও এমনিতে খেলা চালিয়ে যাচ্ছে।’

রোমান বলেন, ‘মেঘ অনলাইনে গ্রাফিক্সের কাজ করে। ও প্রচুর গ্রাফিক্সের কাজ পাচ্ছে। বিভিন্ন গেমের জার্সির ডিজাইন করে। পাশাপাশি পড়াশোনা চালিয়ে যাচ্ছে। মেঘ বর্তমানে ডিআইটি স্কুলের অষ্টম শ্রেণিতে পড়ছে।’

বিকেএসপিতে সুযোগ পেয়েও ভর্তি হতে না পারায় মেঘের মন খারাপ কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে রোমান বলেন, ‘না, ওর মন খারাপ না। কারণ ও এখনই দূরে যেতে চাইছে না। ওর ইচ্ছের কারণেই ভর্তি করা হয়নি। তবে আমরা চেষ্টা করছি ঢাকার মধ্যে ভালো কোনো প্রতিষ্ঠানে ভর্তি করে দেয়ার। হয়তো সাকিব আল হাসানের প্রতিষ্ঠানে ভর্তি করা হতে পারে। বিকেএসপির ঢাকার মধ্যে হয়নি। চিটাগাং গিয়ে ওর পক্ষে থাকা কষ্টকর। আর ও এতো দূরে থাকলে সব সময় দেখাশোনা করাটাও আমাদের জন্য কষ্টকর।’

এর আগে ক্রিকেটীয় ভাবনা নিয়ে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে কথা বলেছে মেঘ। সে জানিয়েছে, দেশের ক্রিকেটে সেরা ওপেনার তামিম ইকবালকে তার পছন্দ। তামিমের ডিফেন্স তার ভালো লাগে। এছাড়া বিদেশি খেলোয়াড়দের মধ্যে ভারতীয় দলের অধিনায়ক বিরাট কোহলির ব্যাটিংও তার বেশ পছন্দ। অন্যদিকে বোলারদের মধ্যে অস্ট্রেলিয়ান পেসার মিসেল স্টাককে মেঘের দারুণ পছন্দ। মেঘ নিজেও বোলিং করে। ইয়োর্কার করতে তার পছন্দ। স্বপ্ন দেখে একজন পেস অলরাউন্ডার হয়ে দেশের জন্য খেলার।

মাত্র পাঁচ বছর বয়সে দেখা ভয়াবহ অভিজ্ঞতা ভুলে ক্রিকেট মাঠেই মেঘের নতুন জীবন শুরুর চেষ্টা। আর তার সেই সফল করতে সহযোগী হিসেবে কাজ করছেন মামাসহ স্বজনরা।

২০১২ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি ভোরে রাজধানীর পশ্চিম রাজাবাজারের ভাড়া বাসা থেকে সাংবাদিক দম্পতি সাগর সারোয়ার ও মেহেরুন রুনির লাশ ‍উদ্ধার করে পুলিশ। সাগর বেসরকারি টেলিভিশন মাছরাঙার বার্তা সম্পাদক আর রুনি এটিএন বাংলার জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

(ঢাকাটাইমস/১২মে/এআর/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

বিশেষ প্রতিবেদন বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :