পুঁজিবাজারের জন্য বিশেষ কোনো ঘোষণা নেই

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ০১ জুন ২০১৭, ১৬:৫৪

আগামী অর্থবছরের বাজেটে পুঁজিবাজারের জন্য বিশেষ কোনো ঘোষণা দেননি অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। বিনিয়োগকারীদের জন্য কিছুটা স্বস্তির জায়গা কেবল সেবার ওপর থেকে ভ্যাট অব্যাহতির ঘোষণা।

বাজেটে আগে তালিকাভুক্ত কোম্পানির কর কমানোর বিষয়ে প্রত্যাশার কথা জানিয়েছিলেন পুঁজিবাজার সংশ্লিষ্টরা। অর্থমন্ত্রীকে এ বিষয়ে প্রস্তাবও দিয়েছিলেন তারা। কিন্তু এ বিষয়ে কোনো ঘোষণা দেননি মুহিত।

অর্থমন্ত্রীর পুঁজিবাজার সংশ্লিষ্ট বেশিরভাগ বক্তব্যই অতীতের কর্মকাণ্ড নিয়ে। তিনি বলেন, ‘নতুন কোম্পানির অর্থ সংগ্রহের জন্য বিএসইসি বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (অল্টারনেটিভ ইনভেস্টমেন্ট) রুলস, ২০১৫ প্রণয়ন করেছে। শেয়ারবাজাওে লেনদেনে স্বচ্ছতা নিশ্চিতে বিএসইসি-তে আধুনিক সার্ভেইল্যান্স সফ্টওয়্যার স্থাপন করা হয়েছে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘পুঁজিবাজারে স্বল্প ও মাঝারি কোম্পানিগুলো তালিকাভুক্তি এবং লেনদেনের জন্য আলাদা প্লাটফর্ম গঠনের কাজ চলছে। এর জন্য বিএসইসি নীতি সহায়তাও দিচ্ছে। এ প্লাটফার্মে লেনদেনের জন্য যোগ্য বিনিয়োগকারীর জন্য আইন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জে কমিশন (কোয়ালিফায়েড ইনভেস্টর অফার বাই স্মল ক্যাপিটাল কোম্পানিজ) রুলস, ২০১৬ প্রণয়ন করা হয়েছে। এছাড়া এক্সচেঞ্জে নতুন পণ্য এক্সচেঞ্জ ট্রেডেড ফান্ড (ইটিএফ) গঠনে ইটিএফ রুল, ২০১৬ গ্যাজেট হয়েছে।’

অর্থমন্ত্রী বলেন, পুঁজিবাজারে দীর্ঘ মেয়াদে উন্নয়নের জন্য আলাদা ক্লিয়ারিং এন্ড সেটেলমেন্ট কোম্পানি প্রতিষ্ঠান করা হবে। এর জন্য প্রয়োজনীয় আইন ইতোমধ্যে প্রণয়ন হয়েছে। স্টক এক্সচেঞ্জের ডি-মিউচ্যুয়ালাইজেশন বাস্তবায়নের জন্য কৌশলগত বিনিয়োগকারী (স্ট্র্যাটেজিক পার্টনার) খোঁজার কাজ চলছে।

মুহিত বলেন, ‘পুঁজিবাজারকে গতিশীল করতে কাজ করছে বর্তমান সরকার। পুঁজিবাজারের উন্নয়নে বিগত কয়েক বছরে অনেক সংস্কার হয়েছে। সংস্কারের সুফল পেতে শুরু করেছে বিনিয়োগকারীসহ পুঁজিবাজার সংশ্লিষ্ট স্টেইকহোল্ডাররা। বাজারকে আরও গতিশীল করতে পুঁজিবাজারে সেবার সব ধরণের ফিতে ভ্যাট অব্যাহতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।’

গেছে, প্রতি বছর ব্রোকার ও ডিলারদের লাইস্যান্স নবায়ন, সিডিবিএল ফি, মার্চেন্ট ব্যাংকারদের বার্সরিক ফি, ট্রেক নবায়ন, বিক্রয় প্রতিনিধিদের ট্রেড সার্টিফিক্যাট (টিসি) এবং প্রতি ৫ বছর পর অনুমোধিত প্রতিনিধিদের লাইসেন্স নবায়ন করতে হয়। এর সঙ্গে ভ্যাট সম্পৃক্ত আছে। আগামী অর্থবছরে এই ভ্যাট আর দিতে হবে না।

ঢাকাটাইমস/০১জুন/ইউএএ/ডব্লিউবি

সংবাদটি শেয়ার করুন

পুঁজিবাজার বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন ফিচার বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত