চিরুনি অভিযানের পঞ্চম দিনে জরিমানা ৫৭ হাজার

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাটাইমস
 | প্রকাশিত : ২০ মে ২০২০, ১৮:০৯

জাতীয়/রাজধানী/ছবি

ডেঙ্গু দমনে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) বিশেষ অভিযান বা চিরুনি অভিযানে দুই হাজার ১৫০টি বাড়ি, স্থাপনা, নির্মাণাধীন ভবন ইত্যাদি পরিদর্শন করে বেশি কিছু জায়গায় এডিসের লার্ভা পাওয়া গেছে। এসময় সাতটি মামলায় এসব বাড়ির মালিকদের মোট ৫৭ হাজার টাকা জরিমানা করেছে নগর কর্তৃপক্ষ।

বুধবার অভিযানের পঞ্চম দিনে করপোরেশনের পাঁচটি ওয়ার্ডে সকাল থেকে মশক নিধনে বিশেষ পরিচ্ছন্নতা অভিযানে এ জরিমানা আদায় হয়।

অঞ্চল-১ (উত্তরা) এর আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জুলকার নায়ন এর নেতৃত্বে উত্তরা ৪ নম্বর সেক্টরে মোট এক হাজার ২০টি বাসাবাড়ি, নির্মাণাধীন ভবন ও প্রতিষ্ঠানে বেলা ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত অভিযান পরিচালিত হয়। এসময়ে প্রায় ৭৮১টি স্থানে এডিস মশার প্রজনন উপযোগী পরিবেশ পাওয়া যায়। যার মধ্যে ২২টি স্থানে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া গেছে। এডিস মশার প্রজনন উপযোগী সম্ভাব্য সকল স্থানে কীটনাশক স্প্রে এবং বাড়ির মালিকদেরকে সতর্ক করা হয়। এসময়ে দুজনকে দুটি মামলায় মোট দুই হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

অঞ্চল-২ (মিরপুর-২) এর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কামাল মোহাম্মদ রাসেদের নেতৃত্বে মিরপুর এলাকার ৬নং ওয়ার্ডের সেক্টর-৭ এ ৬২৫টি বাসা-বাড়ি, প্রতিষ্ঠান ও স্থাপনায় বেলা ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত চিরুনি অভিযান পরিচালিত হয়। এসময়ে ১৩৯টি স্থানে এডিস মশার মশার প্রজনন উপযোগী পরিবেশ পাওয়া গেলে সেসব স্থানে কীটনাশক স্প্রে করা হয়েছে। একই সঙ্গে চারটি স্থাপনায় জমে থাকা পানিতে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া যাওয়ায় চারটি মামলায় মোট ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়াও ১০টি বাড়িতে নোটিশ দেয়া হয়েছে।

অঞ্চল-৩ (মহাখালী) এর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শরিফুল ইসলাম এর নেতৃত্বে ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের নর্দা কালাচাঁদপুর এলাকায় ১৫১টি বাড়ি, স্থাপনা ও নির্মাণাধীন ভবনে বেলা ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত চিরুনি অভিযান পরিচালিত হয়। এসময়ে ১৪৪টি স্থানে এডিস মশার মশার প্রজনন উপযোগী পরিবেশ পাওয়া গেলে সেসব স্থানে কীটনাশক স্প্রে করা হয়। এছাড়া ছয়টি প্রতিষ্ঠানে জমে থাকা পানিতে এডিস মশার লার্ভা পাওয়া যাওয়ায় ছয়টি মামলায় মোট ৩০ হাজার টাকা জরিমানা এবং আরও ১৬টি প্রতিষ্ঠানকে সতর্ক করা হয়েছে।

অঞ্চল-৪ (মিরপুর-১০) এর ১২ নম্বর ওয়ার্ডের ১৮৭টি বাসা-বাড়ি, প্রতিষ্ঠান ও স্থাপনায় বেলা ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত চিরুনি অভিযান পরিচালিত হয়। এসময়ে ১১৯টি স্থাপনায় এডিস মশার মশার প্রজনন উপযোগী পরিবেশ পাওয়া গেলে সেসব স্থানে কীটনাশক স্প্রে করা হয়েছে একইসাথে তাদেরকে সতর্ক করা হয়েছে, তবে কোনো জরিমানা করা হয়নি।

অঞ্চল-৫ (কারওয়ান বাজার) এর আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাসুদ হোসেনের নেতৃত্বে মোহাম্মদপুরের ৩২নং ওয়ার্ডের লালমাটিয়া নিউ কলোনি ও স্বপ্নপূরী এলাকায় ১৬৭ টি বাড়ি পরিদর্শন করা হয়। এসময়ে উক্ত স্থাপনাসমূহে এডিস মশার লার্ভা ও প্রজননউপযোগী পরিবেশ পাওয়া যায়নি। সন্তোষজনক পরিবেশ পাওয়ায় সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে পরবর্তী সময়েও এমন সতর্ক থাকার আহ্বান জানানো হয়।

উল্লেখ্য, চলমান চিরুনি অভিযানসহ ডেঙ্গু দমনে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে গত ১০ মে থেকে পরিচালিত অভিযানে বুধবার পর্যন্ত মোট চার লাখ পাঁচ হাজার ৩০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে ডিএনসিসির চিরুনি অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছে নগর কর্তৃপক্ষ।

(ঢাকাটাইমস/২০মে/কারই/জেবি)

সংবাদটি শেয়ার করুন

জাতীয় বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বিশেষ প্রতিবেদন বিজ্ঞান ও তথ্যপ্রযুক্তি বিনোদন খেলাধুলা
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত

শিরোনাম :